ঢাকা, ২০ জুলাই ২০২৪, শনিবার, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৩ মহরম ১৪৪৬ হিঃ

অনলাইন

মুখে পরপর সাতটি গুলি করে নৃশংসভাবে খুন

মানবজমিন ডিজিটাল

(১ মাস আগে) ১৮ জুন ২০২৪, মঙ্গলবার, ৮:৩২ অপরাহ্ন

আমেরিকার নিউ জার্সিতে নিজের আবাসনের সামনেই খুন হয়ে গেলেন এক ভারতীয় বংশোদ্ভূত নারী । আক্রমণকারী এক জন ভারতীয় যুবক বলে জানিয়েছে নিউ জার্সির পুলিশ। এই ঘটনায় আহত হন আরও এক জন। গুরুতর জখম অবস্থায় ২ জনকেই হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় জসবীর নামে ওই নারীর  । হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গগনদীপ।নিউ জার্সির কার্টিরেটের এক রেসিডেন্সিয়াল বিল্ডিংয়ের বাইরে এই ঘটনাটি ঘটে। হামলার কয়েক ঘণ্টা পর হামলাকারী যুবককে  পাকড়াও করেছে পুলিশ, সিবিএস নিউজের তরফে এমনটাই জানানো হয়েছে।সূত্রের খবর, অভিযুক্তের নাম গৌরব গিল। সম্প্রতি সে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি দিয়েছিল। ওয়াশিংটন স্টেটের কেন্ট শহরে থাকতে শুরু করেছিল।  গৌরব এবং হামলায় জখম গগনদীপ কৌর পূর্ব পরিচিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন
দু’জনে একসঙ্গে পঞ্জাবের নকোদারে আইইএলটিএস কোচিংয়ে পড়াশোনা করতেন। গৌরবের গুলিতে যে নারী  প্রাণ হারিয়েছেন, তাঁর নাম জসবীর কওর। সম্পর্কে তিনি গগনদীপের তুতো দিদি। আদতে পঞ্জাবের নূরমহলের নিকটবর্তী গোরসিয়ানের বাসিন্দা জসবীর। তিনি নিউ জার্সির কার্টিরেটে অ্যামাজন ফেসিলিটিতে কর্মরত। তাঁর স্বামী পেশায় গাড়িচালক। ঘটনার সময় তিনি শহরে ছিলেন না।  গগনদীপ নিউ জার্সির কার্টিরেটে তাঁর দিদি জসবীর কৌরের বাড়িতে যান। সেখানেই হানা দেন গৌরব। বাড়ির সামনে গগনদীপের সঙ্গে তর্কাতর্কি শুরু করেন তিনি। এমনকি গগনদীপকে মারধর করা হয় বলেও অভিযোগ। সে সময় ঝামেলা মেটাতে এলে জসবীরকে লক্ষ্য করে পরপর সাতটি  গুলি চালিয়ে বসেন গৌরব। গুলি লাগে গগনদীপেরও।জসবীরের বাবা কেওয়াল সিং  জানিয়েছেন, “আমার মেয়েই ওকে রেখেছিল। প্রতিটা পদে ওকে সাহায্য করছিল।  যখন ঘটনাটি ঘটে, তখন জসবীর  ঘুমোচ্ছিল। বাড়ির বাইরে গগনদীপের সঙ্গে গৌরবের ঝামেলা হয়। গগনদীপ সাহায্যের জন্য জসবীরকে ডাকে। আর জসবীর বিষয়টায় হস্তক্ষেপ করতেই অভিযুক্ত সটান তাঁর মুখে পরপর সাতটি গুলি চালায়। ঘটনাস্থলেই মারা যায় জসবীর '। ঠিক কী কারণে এই হামলার চালালেন গৌরব? কোথা থেকে বন্দুক পেলেন তা এখনও স্পষ্ট নয়। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ আনা হয়েছে যার মধ্যে রয়েছে প্রথম-ডিগ্রি হত্যা,  বেআইনী উদ্দেশ্যে  অস্ত্র রাখার মতো অভিযোগ।  গৌরবের বাবা চরণ মাস্কটে থাকেন। ঘটনার কথা জানার পরেই অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি তার মা।

সূত্র : ইন্ডিয়া টুডে

অনলাইন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

অনলাইন সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status