ঢাকা, ১২ জুন ২০২৪, বুধবার, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৫ জিলহজ্জ ১৪৪৫ হিঃ

অনলাইন

সরজমিন উপজেলা নির্বাচন

গাঁও গেরামের ভোটের হাওয়া, ভোট দিলে কি আর বাজারদর কমবে?

ইমাদ উদ দীন,মৌলভীবাজার থেকে

(৩ সপ্তাহ আগে) ১৮ মে ২০২৪, শনিবার, ৫:৪০ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১২:১৭ পূর্বাহ্ন

mzamin

এ কেমন ভোট সবাইতো একদলের। বলা চলে জিতলে আওয়ামী লীগ। আর হারলেও আওয়ামী লীগ। সব প্রার্থী একই দলের হওয়ায় ভোটের আমেজ থাকে কি করে। আমরা ভোট দিলেও যা না দিলেও তা। ভোটে প্রার্থী ও তার দলীয় নেতাকর্মীদের ভাগ্য পরিবর্তন হলেও আমরাতো যেই সেই। বছর জুড়ে আমাদের না পেট ভরে, না পিঠ ঘুরে। আমাদের খাওয়া বাঁচা নিয়েতো কেউ কিচ্ছুই ভাবেনা। যত্তসব কদর ভোট এলে। এখনতো আবার ভোট কেন্দ্রে না গেলেও মরা- জিতার ভোট দেওয়া হয়ে যায়।

বিজ্ঞাপন
নির্দিষ্ট প্রার্থীও বিজয়ী হয়ে যান। তা হলে এসব নিয়ে ভাবার কি দরকার। বলেনতো ভোট দিলে কি নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য দ্রব্যের বাজার দর কমবে। পরিবার পরিজন নিয়ে দু’বেলা দু’মুঠো ভাত খেতে পারবো। সেই যে কবে দাম বাড়ছিলো এখনতো আর কমার কোনো আলামত নাই। সবকিছুই এখন ক্রয় ক্ষমতার নাগালের বাহিরে। তাই আমরা এখন কোনো রকম মরে মরে বাঁচি। এমন কথাগুলো একনাগাড়ে বলছিলেন জেলার রাজগনগর, মৌলভীবাজার সদর, কমলগঞ্জ ও শ্রীমঙ্গল উপজেলার গাঁও গেরামের নিম্ন আয়ের ভোটাররা। 

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মতো আসন্ন উপজেলা নির্বাচনেও ভোটের আমেজহীনতার বিষয়ে জানতে চাইলে অর্ধহারে অনাহারে থাকা নিম্ন ও মধ্য আয়ের গ্রাম এলাকার কৃষক, শ্রমিকসহ নানা শ্রেণী পেশার লোকজন ক্ষোভে কষ্টে পাল্টা প্রশ্ন ছুড়ে এমনটি জানতে চান। জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর জেলার ৩টি উপজেলার ১ম ধাপের নির্বাচনে ভোটের আমেজহীনতা ও ভোট কেন্দ্রে ভোটারদের কম উপস্থিতি ছিলো লক্ষণীয়। ভোট নিয়ে আগ্রহ নেই ভোটারদের। প্রার্থী, দলীয় কর্মী ও তার সমর্থকরা ভোট নিয়ে ব্যস্ত থাকলেও খোঁজ নেই ভোটারদের। ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মৌলভীবাজার জেলার ৭টি উপজেলার চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীরা সবাই সরকার দলের। বিএনপি ও জামায়াতসহ সমমনা দলগুলো এই নির্বাচনে অংশ না নেওয়াতে নির্বাচনে নেই সেই আমেজ। বলা চলে গাঁও গেরামে এখন অনেকটাই নিরুত্তাপ ভোটের হাওয়া। 

১ম ধাপে জেলার কুলাউড়া,জুড়ী ও বড়লেখা এই তিনটি উপজেলায় নির্বাচন ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। ২য় ধাপে রাজনগর ও মৌলভীবাজার সদর উপজেলা চলতি মাসের ২১ তারিখ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও আইনি জটিলতায় সদর উপজেলার নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। আর ৩য় ধাপে ২৯ মে কমলগঞ্জ ও শ্রীমঙ্গল উপজেলার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। প্রবাসী ও পর্যটন অধ্যুষিত হাওর, পাহাড় বেষ্টিত চায়ের রাজধানী খ্যাত মৌলভীবাজার জেলা। ২য় ও ৩য় ধাপে এজেলার অবশিষ্ট ৪টি উপজেলার নির্বাচনে ভোটের মাঠে চেয়ারম্যান পদে ১১ জন, ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে ১৮ জন ও ভাইস চেয়াম্যান (মহিলা) পদে ৯ জনসহ মোট ৩৮ জন প্রার্থী এখন প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। লিফলেট, পোষ্টার,ফেস্টুন ও ব্যানার। উঠান বৈঠক, গণসংযোগ আর প্রচার প্রচারণার নানা অনুসঙ্গ। ভোটের নানা আয়োজন। কিংবা প্রার্থীদের আগ্রহ। বাদ যাচ্ছেনা কোন কিছুই। কিন্তু তারপরও দৃশ্যমান আগ্রহ দেখা যাচ্ছেনা যাদের জন্য এই আয়োজন সেই ভোটারদের। বরং ভোটাররা মুখ খুলতে নারাজ নির্বাচন ও প্রার্থীর পক্ষে কিংবা বিপক্ষে। নির্বাচনের দিনক্ষণ চূড়ান্ত হওয়ার পর থেকে এখনো তারা অনেকটাই নীরব দর্শক। বলা চলে ভোটের উত্তাপ নেই হাটে, ঘাটে কিংবা মাঠে। গ্রামের ক্ষেতের মাঠে বা চায়ের স্টলে বসে নির্বাচন নিয়ে আলোচনার ঝড় নেই সেই আগের মতো।

নির্বাচন নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে ভোটাররা বলছেন দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধগতির এসময়ে পরিবার পরিজন নিয়ে দু’বেলা দু’মুঠো খেয়ে বাঁচা যেখানে কষ্টসাধ্য সেখানে নির্বাচন ও ভোটাধিকার নিয়ে কথা বলার ইচ্ছে নেই তাদের। ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ায় বলছেন বিগত প্রায় ১৫ বছর থেকে তারা ইউনিয়ন, পৌরসভা, উপজেলা, জেলা ও সংসদ নির্বাচনে ভোট দিতে না পারার রয়েছে দু:খজনক তিক্ত অভিজ্ঞতা। তাই ভোট আসলেই কি। আর না আসলেই বা কি। তারা বলছেন ভোটের আনন্দ উৎসবে এখন ভাটা পড়েছে। আগেকার সেই ভোটের আমেজ এখন নেই বললেই চলে। তবে জেলার সচেতন নাগরীক সমাজ ও রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন ভোটাদের এমন মনোভাব ও আমেজহীনতা গণতন্ত্রের জন্য অসনি সংকেত। 
 

অনলাইন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

অনলাইন সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status