ঢাকা, ১৮ মে ২০২৪, শনিবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৯ জিলক্বদ ১৪৪৫ হিঃ

বিশ্বজমিন

কারাবরণ থেকে গৃহবন্দি সুচি

মানবজমিন ডেস্ক
১৮ এপ্রিল ২০২৪, বৃহস্পতিবার
mzamin

মিয়ানমারে গণতন্ত্রের নেত্রী হিসেবে পরিচিত অং সান সুচিকে জেলখানা থেকে সরিয়ে নিয়ে গৃহবন্দি করা হয়েছে। অসহনীয় গরমের কারণে তার স্বাস্থ্যগত বিষয় বিবেচনায় নিয়ে সামরিক জান্তা এ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। মঙ্গলবার বিদেশি মিডিয়াকে এ কথা বলেছেন মেজর জেনারেল জাওয়া মিন তুন। তিনি জানান, বয়স্ক বেশ কিছু বন্দিকে জেলখানা থেকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। এর মধ্যে আছেন সুচি, ক্ষমতাচ্যুত তার সময়কার প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ট। সামরিক ওই মুখপাত্র বলেন, যেহেতু আবহাওয়া চরমভাবে উত্তপ্ত, তাই শুধু অং সান সুচি একাকেই নয়, যাদের পূর্ব সতর্কতা প্রয়োজন, বিশেষ করে প্রবীণ, তাদেরকে হিটস্ট্রোক থেকে সুরক্ষিত রাখতে আমরা কাজ করছি। এ খবর দিয়েছে অনলাইন আল জাজিরা। অং সান সুচির বয়স ৭৮ বছর। ২০২১ সালের ১লা ফেব্রুয়ারি সামরিক জান্তা তার সরকারকে অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতাচ্যুত করে। সেই থেকে তাকে  জেলে রাখে সামরিক জান্তা।

বিজ্ঞাপন
বিভিন্ন রকম ফৌজদারি অভিযোগে তাকে ২৭ বছরের জেল দেয়া হয়েছে। রাজধানী  নেপিডতে সেই জেল খাটছেন সুচি। তবে তার সমর্থক ও অধিকার বিষয়ক গ্রুপগুলো বলছে, সুচির বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে এবং বানোয়াট। সাবেক প্রেসিডেন্ট উইন মিন্টকে আট বছরের জেল দেয়া হয়েছে। তিনি মিয়ানমারের বাগো রিজিয়নের তাউঙ্গু কারাগারে এই শাস্তি ভোগ করছিলেন।

  মিয়ানমারের আবহাওয়া বিভাগ বলেছে, মঙ্গলবার রাজধানী  নেপিডের তাপমাত্রা ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছাড়িয়ে যেতে পারে। এর প্রেক্ষিতে সুচি, উইন মিন্টসহ প্রবীণ কারাবন্দিকে অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হয়েছে। তবে তাদেরকে কোথায় রাখা হয়েছে তা সুনির্দিষ্ট করে জানান নি সামরিক মুখপাত্র জাওয়া মিন তুন। তবে সুচিকে জেলে পাঠানোর আগে তাকে সামরিক একটি ঘাঁটিতে একটি নিরাপদ বাড়িতে রাখা হয়েছিল। ফেব্রুয়ারিতে তার ছেলে কিম অরিস দাবি করেন, সুচিকে একটি নিঃসঙ্গ কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। তার শরীর আগের মতো না হলেও তার মনোবল চাঙ্গা আছে। এর আগেও একবার সুচিকে জেল থেকে সরিয়ে গৃহবন্দি করার খবর ছড়িয়ে পড়ে গত জুলাইয়ে। তবে সেই খবর সঠিক ছিল না।  কিম  অরিস তখন ওই রিপোর্টকে সেনাবাহিনীর ছড়িয়ে দেয়া এ খবরকে ভুল তথ্য বলে উড়িয়ে দেন। বলেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে খুশি রাখতে তারা এ কাজ করেছে।  অং সান সুচি সহ হাজার হাজার রাজবন্দির নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন, বৃটেন সহ বিভিন্ন দেশ। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার এ দেশটির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞাও দিয়েছে তারা। এরই মধ্যে অভ্যুত্থানের তিন বছর চলছে। এরই মধ্যে সশস্ত্র প্রতিরোধ যোদ্ধাদের তরফ থেকে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে মিয়ানমারের সামরিক জান্তা। 

তাদের সঙ্গে আছে অং সান সুচির সঙ্গে যুক্ত রাজনৈতিক দলের জোট সরকার ন্যাশনাল ইউনিটি গভর্নমেন্ট (এনইউজি)। তারা মঙ্গলবার অং সান সুচি, উইন মিন্টের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেছে।  মুখপাত্র কাইওয়া জাওয়া এদিন রয়টার্সকে বলেছেন, জেলখানা থেকে গৃহবন্দি কিছুটা ভালো। কারণ, একটি বাড়ি জেলখানার চেয়ে উত্তম। তা সত্ত্বেও তাদেরকে নিঃশর্ত মুক্তি দেয়া উচিত। সুচি ও উইন মিন্টের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তার পূর্ণাঙ্গ দায়িত্ব তাদেরকে নিতে হবে।  সুচিকে সরিয়ে নেয়ার এই খবর এমন এক সময়ে এলো যখন থিঙ্গিয়ান নতুন বর্ষ উপলক্ষে কমপক্ষে ৩০০০ বন্দিকে সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা দিয়েছে সামরিক জান্তা। তবে এর মধ্যে গণতন্ত্রপন্থি কোনো অধিকারকর্মী বা রাজনৈতিক বন্দি আছেন কিনা তা পরিষ্কার নয়। রাষ্ট্রপরিচালিত এমআরটিভি বলছে, ক্ষমতাসীন সামরিক কাউন্সিলের সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইং ৩৩০৩ জন বন্দিকে ক্ষমা করে দিয়েছেন। এর মধ্যে আছেন ২৮ জন বিদেশি। তাদেরকে মিয়ানমার থেকে বের করে দেয়া হবে। অন্যদের সাজা কমিয়ে দিয়েছেন সামরিক জান্তা। মিয়ানমারে নতুন বছর উপলক্ষে গণহারে সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা অস্বাভাবিক কিছু নয়।

পাঠকের মতামত

সুচি ভন্ড ওর পাওনা মিটিয়ে দিচ্ছে জান্তা সরকার।

আব্দুল বারেক
২২ এপ্রিল ২০২৪, সোমবার, ১২:১০ পূর্বাহ্ন

বিশ্বজমিন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status