ঢাকা, ১৪ জুলাই ২০২৪, রবিবার, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৭ মহরম ১৪৪৬ হিঃ

বাংলারজমিন

গফরগাঁওয়ে সন্তানকে বাঁচাতে গিয়ে মায়ের মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ থেকে
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩, রবিবার

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে ব্রহ্মপুত্র নদের কাশবনে বেড়াতে এসে নৌকা থেকে পড়ে যায় ৩ বছর বয়সী শিশু সন্তান আব্দুল্লাহ আল সাদ। শিশু সন্তানকে বাঁচাতে তাৎক্ষণিক নদে ঝাঁপিয়ে পড়েন মা রিনি আঞ্জুমান (৩৫)। ওই সময় নৌকায় থাকা স্বজনরা নদে পড়ে যাওয়া শিশুটিকে জীবিত উদ্ধার করতে সক্ষম হলেও রিনি পানিতে তলিয়ে যান। এরপর থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন। অবশেষে দীর্ঘ ১৭ ঘণ্টা পর গতকাল সকাল ১১টার দিকে ঘটনাস্থলের পাশ থেকে ময়মনসিংহ থেকে আসা ডুবুরি দলের সদস্যরা রিনির মরদেহ উদ্ধার করেন। এর আগে গত শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে গফরগাঁও উপজেলার ব্রহ্মপুত্র নদের সালটিয়া সেতু সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ওই সময় ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল ও গফরগাঁও থানা পুলিশ প্রায় দেড় ঘণ্টা অভিযান চালিয়ে নিখোঁজ নারীর সন্ধ্যান পায়নি। এ অবস্থায় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে উদ্ধার অভিযান স্থগিত করে। নিহত রিনি আঞ্জুমান গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার জয়না বাজার এলাকার নগর হাওলা গ্রামের নাজমুল হক সবুজের স্ত্রী। নিহত রিনির স্বামী সবুজ জানান, তার স্ত্রী রিনি ডাক্তার দেখাতে শুক্রবার ভালুকায় আসেন।

বিজ্ঞাপন
পরে ডাক্তার না পেয়ে তারা ৫ জন গফরগাঁওয়ের রাওনা ইউনিয়নের পাঁচুয়ায় বেড়াতে আসেন। বিকালে তারা ব্রহ্মপুত্র নদের কাশবন দেখতে নৌকায় ওঠেন। নৌকা করে ঘোরার একপর্যায়ে ৩ বছর বয়সী শিশু সন্তান আব্দুল্লাহ আল সাদ ব্রহ্মপুত্রে পড়ে যায়। ছেলেকে বাঁচাতে সঙ্গে সঙ্গে নদীতে ঝাঁপ দেন। এরপর ১৭ নিখোঁজ থাকার পর ডুবুরিরা ঘটনাস্থলের পাশ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে। 
গফরগাঁও থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আনোয়ার হোসেন বলেন, ব্রহ্মপুত্র নদের ঘটনাস্থলের পাশ থেকেই নিখোঁজ ওই নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের স্বামীর আবেদনের প্রেক্ষিতে মানবিক দিক বিবেচনা করে ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

 

বাংলারজমিন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

বাংলারজমিন সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status