ঢাকা, ২০ জুলাই ২০২৪, শনিবার, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৩ মহরম ১৪৪৬ হিঃ

বিশ্বজমিন

ইরান-যুক্তরাষ্ট্র বন্দিবিনিময়: ৫০০ কোটি ডলার ছাড়

মানবজমিন ডেস্ক

(১০ মাস আগে) ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, মঙ্গলবার, ১০:২৫ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ৫:৩৩ অপরাহ্ন

mzamin

দক্ষিণ কোরিয়ায় জব্দ করা ইরানের ৫০০ কোটি ডলার ছাড় দেয়ার বিনিময়ে ৫ মার্কিন নাগরিককে জেল থেকে ছেড়ে দিয়েছে ইরান সরকার। ওই অর্থ দোহা’য় ইরানের সংশ্লিষ্ট ব্যাংকে পৌঁছার পর বন্দিদের মুক্তি দেয় ইরান। এরপরই তারা যুক্তরাষ্ট্রের পথে রওনা হন। ওদিকে যুক্তরাষ্ট্রের জেলে বন্দি ৫ ইরানিকে মুক্তি দেয়া হয়েছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। 

এতে বলা হয়, যে ৫ মার্কিনিকে মুক্তি দেয়া হয়েছে তার মধ্যে চারজন পুরুষ এবং একজন নারী। ইরান তাদেরকে জেল দিয়েছিল। মুক্তি পেয়ে তারা ভাড়া করা একটি ফ্লাইটে কাতারের রাজধানী দোহা’য় পৌঁছান। সেখানে তাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন যুক্তরাষ্ট্রের সিনিয়র কিছু কর্মকর্তা। সেখান থেকে তারা ওয়াশিংটনের উদ্দেশে যাত্রা করেন। এর মধ্যে আছেন ৫১ বছর বয়সী ব্যবসায়ী সিয়ামাক নামাজি।

বিজ্ঞাপন
তিনি তেহরানের কুখ্যাত ইভিন কারাগারে কাটিয়েছেন প্রায় আট বছর। একই অবস্থা ব্যবসায়ী ইমরাদ শারগির (৫৯) এবং পরিবেশবিদ মুরাদ তাহবাজের (৬৭)। তাহবাজে একই সঙ্গে বৃটিশ নাগরিকও। যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, তাদের নাগরিকদের ভিত্তিহীন রাজনৈতিক অভিযোগে জেলে আটকে রাখা হয়েছিল। 

এ নিয়ে প্রথমে একটি চুক্তিতে পৌঁছে দুই দেশ। এতে মধ্যস্থতা করে কাতার। এই চুক্তির ফলে বন্দিদেরকে মধ্য আগস্টে ইভিন কারাগার থেকে তেহরানে একটি নিরাপদ বাড়িতে নিয়ে রাখা হয়। অন্যদিকে যে ৫ ইরানিকে যুক্তরাষ্ট্র জেলে পাঠিয়েছিল, তাদের বিরুদ্ধে আছে নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘনের অভিযোগ। বন্দিবিনিময় চুক্তি অনুযায়ী তাদেরকে ছেড়ে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। তাদের সবাই ইরানে ফিরে যাবেন বলে মনে হয় না। এসব নাগরিক হলেন রেজা সারহাঙ্গপুর, কামবিজ আত্তার কাশানি, কাভে লুৎফুলাহ আফরাসিয়াবি, মেহরদাদ মঈন আনসারি এবং আমিন হাসানাজাদেহ। 

ওদিকে মার্কিন নাগরিকদের বহনকারী বিমান দোহা অবতরণ করার পর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, ৫ জন নিরপরাধ মার্কিনিকে ইরান জেলে রেখেছিল। তারা শেষ পর্যন্ত ঘরে ফিরে আসছেন। তারা সবাই বছরের পর বছর যন্ত্রণা, অনিশ্চয়তা এবং দুর্ভোগ সহ্য করেছেন। জো বাইডেন তার দেশের এসব নাগরিককে অন্যায়ভাবে আটকে রাখার কারণে ইরানের সাবেক প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আহমাদিনেজাদ এবং গোয়েন্দা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা ঘোষণা করেছিলেন। 

কয়েক মাস ধরে কাতারের মধ্যস্থতায় পরোক্ষ আলোচনার পর এই চুক্তি হয়। এই আলোচনা শুরু হয়েছিল গত বছর ফেব্রুয়ারি মাসে। একটি সূত্র বলেছেন, দোহাতে এ নিয়ে কমপক্ষে ৯ দফা আলোচনা হয়েছে। একে উভয় পক্ষের  জয়ের জন্য সামান্য কিছু আছে বলে মন্তব্য করেছেন কাতারে জর্জটাউন ইউনিভার্সিটির শিক্ষক ইরানি বংশোদ্ভূত প্রফেসর মেহরান কামরাভা।

বিশ্বজমিন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status