ঢাকা, ২৮ নভেম্বর ২০২২, সোমবার, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিঃ

বাংলারজমিন

কোনাবাড়িতে কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভনে একাধিকবার ধর্ষণ

কাশিমপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি
২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, বৃহস্পতিবার

গাজীপুরের কোনাবাড়িতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক কিশোরী (১৬)কে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ওই কিশোরীর বাবা থানায় অভিযোগ করলে গত মঙ্গলবার রাতে মজনু মিয়া (৩৫)কে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত মজনু সিরাজগঞ্জের বেলকুচি থানার খিদ্র গোপরেখি এলাকার মকবুল আকন্দের ছেলে। পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত ৬ মাস আগে জীবিকার তাগিদে গাজীপুরের কোনাবাড়ি থানার দেওলিয়াবাড়ি এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে রিকশা চালাতেন ভুক্তভোগীর পিতা। পরে তার মেয়েও স্থানীয় একটি ঝুটের গোডাউনে চাকরি নেয়। কিছুদিন যেতেই ওই ঝুটের গোডাউনের আরেক শ্রমিক মজনু মিয়া ওই কিশোরীকে রাস্তা ঘাটে উত্ত্যক্ত করা শুরু করে। একপর্যায়ে তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কুপ্রস্তাবও দেন। পরে গত ২৪ তারিখ বিকালে প্রতিদিনের ন্যায় গোডাউনে কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে মজনু মিয়া কিশোরীকে অপহরণ করে তার বাসা বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করেন। সন্ধ্যা হলেও মেয়ের কোনো খোঁজ না পেয়ে হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েন বাবা। গত ২৭শে সেপ্টেম্বর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায় মজনু মিয়া ওই কিশোরীকে রাস্তা থেকে অপহরণ করে বাসায় নিয়ে আটকে রেখে ধর্ষণ করেছে।

বিজ্ঞাপন
পরে ওই কিশোরীর পরিবার মজনু মিয়ার বাসা বাড়িতে গেলে লম্পট মজনু তাদের উপস্থিতি টের পেয়ে দৌড়ে পালিয়ে যায় এবং মেয়েকে উদ্ধার করে বাসায় নিয়ে আসে তার বাবা। পরে থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করলে গত মঙ্গলবার রাতেই মজনু মিয়াকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। কোনাবাড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু সিদ্দিক জানান, ওই কিশোরীর বাবা থানায় ধর্ষণ মামলা করলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে। গতকাল দুপুরে তাকে গাজীপুর জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

বাংলারজমিন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

বাংলারজমিন থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status