ঢাকা, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, বুধবার, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিঃ

শেষের পাতা

কাউন্সিলে সরব নেতারা

এবার পালা সিলেট মহানগর বিএনপি’র

ওয়েছ খছরু, সিলেট থেকে
১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, রবিবার

সম্মেলন ও কাউন্সিল নিয়ে সিলেট বিএনপি’তে নানা হিসাব-নিকাশ। পর্দার  আড়ালে থাকা নেতারাও সক্রিয় হয়ে ওঠেছেন কাউন্সিলকে ঘিরে। জলা বিএনপি’র কাউন্সিলের পর ঢাকঢোল পিটিয়ে জেলা ও মহানগর যুবদলের কাউন্সিল শেষ করা হয়েছে। এখন পালা মহানগর বিএনপি’র। আর সম্মেলন ও কাউন্সিল শেষ করতে আটঘাট বেঁধে মাঠে নেমেছেন বিএনপি নেতারা। মহানগর বিএনপি’র শীর্ষ নেতারা জানিয়েছেন- আগামী সপ্তাহ থেকে তারা ২৭টি ওয়ার্ডের সম্মেলন ও কাউন্সিল শুরু করতে যাচ্ছেন। ইতিমধ্যে তারা অন্তত ৬টি ওয়ার্ডের সম্মেলন ও কাউন্সিল করতে প্রস্তুতিও শেষ করে রেখেছেন। ওয়ার্ডের নের্তৃত্ব কাউন্সিলের মাধ্যমে নির্বাচন করা হবে। চাপিয়ে দেওয়া কোনো নেতৃত্ব এখন আর কেউ মানে না। এ নিয়ে আছে প্রতিযোগিতাও।

বিজ্ঞাপন
ওয়ার্ড পর্যায়ের সম্ভাব্য প্রার্থীরাও দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। সিলেট মহানগর বিএনপি’র পুরাতন কমিটি ভেঙে ২০২১ সালের ২৯শে সেপ্টেম্বর নতুন আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছিল। এতে আহ্বায়ক করা হয় বিএনপি নেতা আব্দুল কাইয়ূম জালালী পঙ্কিকে। আর সদস্য সচিব হন মিফতাহ্‌ সিদ্দিকী। ৩৫ সদস্যের কমিটিতে ১৩ জন যুগ্ম আহ্বায়ক। আহ্বায়ক কমিটি গঠনের পর অনেকটা সরবে কাজ শুরু করা হয়। এরই মধ্যে পরপর দু’দফা বন্যার কারণে সাংগঠনিক কার্যক্রম বাধাগ্রস্তও হয়। মাঝখানে ওয়ার্ড কমিটি গঠনে ধীর গতি লক্ষ করা যায়। এর কারণ ছিল নিজেদের মধ্যে বিরোধ।

 দু’মাস আগে এই বিরোধ প্রকাশ্যও আসে। পরবর্তীতে এতে হস্তক্ষেপ করেন দলের হাইকমান্ড। মহানগর নেতাদের ঢাকায় ডেকে নিয়ে বৈঠক করা হয়। দেওয়া হয় কমিটি গঠনের সময়সীমাও। হাইকমান্ডের সঙ্গে বৈঠক শেষে সিলেটে ফিরে নতুনভাবে যাত্রা শুরু করেন মহানগর নেতারা। ঐক্যবদ্ধভাবে তারা মহানগরে বিএনপিকে ঢেলে সাজাতে সাংগঠনিক কাজে মনোযোগ দেন। আর এই কাজের ফলাফল আসতে শুরু করেছে। মহানগর বিএনপি’র নেতারা জানিয়েছেন- সিলেট নগরীর ২৭টি ওয়ার্ডের সবক’টি পাড়া কমিটি প্রস্তুত। প্রতিটি পাড়ায় ১১ জনকে নিয়ে বিএনপি’র পাড়া কমিটি গঠন করা হয়েছে। আর এই পাড়া কমিটির নেতারা হবেন ওয়ার্ডের ভোটার। পাড়া কমিটি শেষ হওয়ার পর এবার ওয়ার্ড কমিটির সম্মেলন ও কাউন্সিলে হাত দেওয়া হচ্ছে। আগামী সপ্তাহ থেকে ওয়ার্ডের সম্মেলন ও কাউন্সিল করা হবে। সিলেট মহানগর বিএনপি’র সদস্য সচিব মিফতাহ্‌ সিদ্দিকী জানিয়েছেন- সিলেট নগরে বিএনপিকে তৃণমূল থেকে সাজানো হচ্ছে। এটি আগে  তেমন ছিল না। এখন পাড়া কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত হতে প্রতিযোগিতা চলছে। আর ওয়ার্ড কমিটির সম্মেলন ও কাউন্সিল নিয়ে পাড়াভিত্তিক নেতারা সক্রিয় হয়ে উঠেছেন।

 তিনি জানান- সিলেট মহানগর বিএনপি এখন অনেক শক্তিশালী। দলীয় কর্মসূচিতে এখন প্রতিটি ওয়ার্ড থেকে নেতাকর্মীরা মিছিল সহকারে এসে যোগদান করেন। আর এসব মিছিলে কর্মী সমাগমও বেশি থাকে। দিনে দিনে আরও  বেশি শক্তি সঞ্চয় করে বিএনপি সিলেটের রাজপথ কাঁপাচ্ছে বলে দাবি করেন তিনি। এদিকে মহানগর বিএনপি’র নেতারা জানিয়েছেন- কেন্দ্রের বেঁধে দেওয়া সময় অনুযায়ী তাদের চলতি মাসের মধ্যে ওয়ার্ড কাউন্সিল শেষ করার কথা। কিন্তু এ মাসে ওয়ার্ড শেষ করা যাবে না। আগামী মাসের প্রথম অথবা দ্বিতীয় সপ্তাহ লেগে  যেতে পারে। এক্ষেত্রে তারা মহানগর বিএনপি’র সম্মেলন ও কাউন্সিল অক্টোবরের শেষদিকে করতে পারে। সময় একটু বেশি নিলেও মাঠ পর্যায়ে ঐক্যবদ্ধ সিলেট মহানগর বিএনপি সাজাতে নেতারা কাজ করছেন। তারা জানিয়েছেন- ইতিমধ্যে মহানগর বিএনপি’র অধিভুক্ত ২৫নং ওয়ার্ড, ১৮নং ওয়ার্ড, ৭নং ওয়ার্ড, ১২নং ওয়ার্ড, ২৭নং ওয়ার্ড সম্মেলন ও কাউন্সিলের জন্য প্রস্তুত। প্রতিদিন আরও নতুন নতুন ওয়ার্ডের প্রস্তুতি তালিকাও আসছে। মহানগর বিএনপি গঠিত ৯টি সাংগঠনিক টিমের নেতারা সক্রিয়ভাবে কাজ করছেন। সিলেট মহানগর বিএনপি’র সভাপতি আব্দুল কাইয়ূম জালালী পঙ্কি জানান- আমরা প্রস্তুত। ওয়ার্ড শেষ হলে আগামী মাসের ভেতরে মহানগর সম্মেলন করতে পারবো। 

সেই লক্ষ্যেই আমাদের কাজ চলমান রয়েছে। আহ্বায়ক কমিটির সব সদস্য হাইকমান্ডের নির্দেশ পালনে দলীয় কার্যক্রমে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন। এদিকে- সিলেট মহানগরে বর্ধিত ওয়ার্ড মহানগর বিএনপি’র সাংগঠনিক কাঠামোর মধ্যে আসবে কি না- সেটি নিয়ে এখনো চূড়ান্ত হয়নি। নগরে আরও ১৫টি ওয়ার্ড বাড়ানো হয়েছে। সিলেট সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে প্রক্রিয়াও চূড়ান্ত করা হয়েছে। কিন্তু দলীয়ভাবে বিএনপি সহ কোনো রাজনৈতিক দলই এসব ওয়ার্ডকে কাছে টানেনি। ফলে এরা এখন ঝুলন্ত রয়েছে। বর্ধিত ওয়ার্ডের রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন- আগে তারা কেউ সদর, দক্ষিণ সুরমা উপজেলার অধীনে ছিলেন। এখন এসব উপজেলার সঙ্গে নগরের বর্ধিত ওয়ার্ডের নেতাকর্মীদের কোনো সম্পর্ক নেই। অনেক স্থানে তারা নিজেরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড চালাচ্ছেন। ভোটের জন্য রাজনৈতিক দলের নেতারা এসব ওয়ার্ডে গেলে সাংগঠনিকভাবে যাওয়া নেতাকর্মীদের সংখ্যা খুবই কম। মহানগর বিএনপি’র সদস্য সচিব মিফতাহ্‌ সিদ্দিকী জানিয়েছেন- আমরা ২৭টি ওয়ার্ডের সম্মেলন ও কাউন্সিলের আয়োজন করতে যাচ্ছি। পরবর্তীতে দলীয় নির্দেশনা পেলে বর্ধিত ১৫টি ওয়ার্ডে কাজ শুরু করা হতে পারে। সেটি সময়ই বলে দেবে বলে জানান তিনি।  

পাঠকের মতামত

How many BNP leader and workers will go to the hospital and jail? Please, don't afraid from fighting-slogan " Joy Bangla". " hit against hit otherwise, unfit

Moazzem Hossain
১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, শনিবার, ৮:৫৪ অপরাহ্ন

শেষের পাতা থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

শেষের পাতা থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং স্কাইব্রীজ প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজিং লিমিটেড, ৭/এ/১ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status