ঢাকা, ৪ অক্টোবর ২০২২, মঙ্গলবার, ১৯ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিঃ

বাংলারজমিন

টিকটক করতে গিয়ে প্রেম অতঃপর...

রিপন আনসারী, মানিকগঞ্জ থেকে
১৬ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার

মীম ও রবিন। এই তরুণ-তরুণী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজের ভাইরাল করতে টিকটক ভিডিও বানাতে শুরু করে। কখনো প্রেমিক-প্রেমিকা আবার কখনো স্বামী-স্ত্রীর জুটিতে নিজেদের উপস্থাপন করে হরেক রকমের অভিনয়ের মাধ্যমে টিকটক বানিয়ে ছেড়ে দেয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। টিকটকে অভিনয় করতে গিয়ে একে অপরকে ভালোবাসতে শুরু করে। একপর্যায়ে গভীর প্রেম ভালোবাসার জালে দু’জনেই আবদ্ধ হয়। সিদ্ধান্ত নেয় তারা দুজন বিয়ের পিঁড়িতে বসবে। কিন্তু প্রেমিক রবিন এক সময় তার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে মীমকে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানান। এতে মীমের মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে। রবিন তার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দিলে মীম সোজা ছুটে আছে রবিনের বাড়িতে। বিয়ের দাবি নিয়ে ওঠে পড়ে লাগে।

বিজ্ঞাপন
এতে চারদিকে শুরু হয় টিকটক এই জুটি নিয়ে তুমুল আলোচনা। মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার বানিয়াজুরী ইউনিয়নের কাকজোর গ্রামে এমন ঘটনাটি ঘটেছে। সমাধানের পথ খুঁজতে প্রেমিকের বাড়ির লোকজন মেয়েটিকে নিয়ে আশ্রয় নেয় স্থানীয় চেয়ারম্যানের কাছে। চেয়ারম্যান ঘটনা সুরাহের জন্য উভয়পক্ষের অভিভাবকদের তলব করেন। টিকটক জুটিসহ তাদের সম্মতিতে সোমবার দুপুরে চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে তাদের বিয়ে সম্পন্ন করা হয়। এতে খুশি টিকটক এই জুটি। মীম মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরিয়া উপজেলার গোলড়া গ্রামের মো. হাবিল আলীর মেয়ে।  

মীম বলেন, রবিনের সঙ্গে একই প্রতিষ্ঠানে চাকরি করার সুবাদে ভালো বন্ধুত্বের সম্পর্ক হয়। এরপর সে আমাকে নিয়ে টিকটক ভিডিও বানাতে শুরু করে। কখনো প্রেমিক-প্রেমিকা আবার কখনো স্বামী-স্ত্রী সেজে টিকটক বানাতো। এরই মধ্যে রবিনের সঙ্গে আমার ভালো লাগা ও ভালোবাসার সম্পর্ক হয়। আমরা একে অপরকে ভালোবাসতে শুরু করি। রবিন আমাকে বিয়ে করবে বলে প্রতিশ্রুতি দেয়। কিন্তু কিছুদিন ধরে সে আমাকে  এড়িয়ে চলতে শুরু করে। ফোন বন্ধ করে যোগাযোগও বন্ধ করে দেয়। ওর সঙ্গে সম্পর্ক গভীর হওয়ায় আমার পরিবারের লোকজন আমাকে গালমন্দ করতে থাকে। একপর্যায়ে আমি সিদ্ধান্ত নেই রবিনের বাড়ি গিয়ে উঠবো। রোববার বিকালে বিয়ের দাবি নিয়ে ওর বাড়ি গিয়ে উঠি। নাবিল জানায়, টিকটকের ভিডিও বানাতে গিয়ে মীমের সঙ্গে তার ভালোবাসার সম্পর্ক হয়। বিয়ের পর তারা সুখে শান্তি থাকতে চায়। বানিয়াজুরী ইউপি চেয়ারম্যান এস আর আনসারী বিল্টু বলেন, রোববার সন্ধ্যায় আমার কাছে খবর আসে কাকজোর এলাকার ইছহাক মিয়ার বাড়িতে বিয়ের দাবিতে ২০-২২ বছরের এক তরুণী অবস্থান নিয়েছে। পরে ওই তরুণীকে নিয়ে ইছহাক মিয়া ও তার এলাকার লোকজন আমার অফিসে নিয়ে আসে। মেয়েটির কাছে ঘটনা শোনার পর আমি উভয়পক্ষকে সোমবার সকালে আসতে বলি। ছেলে ও মেয়ের পাশাপাশি দুই পরিবার বিয়ের বিষয়ে একমত হলে কাজী ডেকে ইসলামী শরিয়ত মোতাবেক তাদের দুজনের বিয়ে সম্পন্ন হয়। এ সময় এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। এতে দুই পরিবারই খুশি।

 

 

পাঠকের মতামত

আফসোস একটি সাধারণ চিন্তা কেন মেয়েটির মাথায় আসেলো না যে, ছেলেটি যখন সম্পর্ক আর চালিয়ে নিতে আগ্রহী না তবে এই সব দেন-দরবার করে কি ভবিষ্যত জীবনটা সুখে চলবে???? বিজ্ঞ (!!) সাংবাদিক ভাইয়েরা এই নিউজের মাধ্যম আপনারা কি বার্তা সমাজে পৌছে দিচ্ছেন একটু ভাববেন কি??

ভাবছি কোথায় চলছি আমর
১৮ আগস্ট ২০২২, বৃহস্পতিবার, ৬:৩৪ পূর্বাহ্ন

সম্ভবত বিয়ের আশ্বাসে দৈহিক মিলন হওয়ায় ছেলেটা পরে পিছু টান দেয়।

সোনা মিয়া
১৭ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ৯:৩৮ অপরাহ্ন

এভাবেই কি আমাদের সমাজ বিবাহের নতুন পদ্ধতি তৈরি করছে?

shaheen
১৭ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ৭:৩২ অপরাহ্ন

সাংবাদিক ভাইরা ঘটনা কিন্তু ক্লিয়ার হয়নাই রবিন কেনো পিছুটান দিয়েছিলো!

Salma Khatun
১৬ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৩:৪৭ পূর্বাহ্ন

দুই পরিবারের সম্মতিতে বিয়ে হয়েছে ঠিক আছে কিন্তু টিকটকার রবিন বিয়ে করতে অসম্মতি ছিল কেন এবং মোবাইল নাম্বার বন্ধ করে যোগাযোগ করা থেকে বিরত ছিল এর সুষ্ঠু কারন তো লেখা হয়নি? অতঃপর বিয়ে হলে দুজনে সুখি থাকতে চায় মন্তব্য হাস্যকর না? তাই ভবিষ্যতে এই বিয়ে যাতে টিকে থাকে তাই সাংবাদিকের উচিৎ ছিলো এই বিষয় টাও পরিস্কার করা কেন মেয়েকে লোকলজ্জা ভুলে বিয়ের দাবী তে ছেলের বাড়িতে উঠতে হলো? তাহলে কি সমাজে এমনই অবস্থা বিরাজ করবে বিয়ের দাবিতে অনশন কর, অবস্থান নাও!!!

Sharmin Mohona
১৫ আগস্ট ২০২২, সোমবার, ৮:৩৮ অপরাহ্ন

বাংলারজমিন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

বাংলারজমিন থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং স্কাইব্রীজ প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজিং লিমিটেড, ৭/এ/১ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status