ঢাকা, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, শুক্রবার, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৯ শাওয়াল ১৪৪৫ হিঃ

শেষের পাতা

সাভারে তেলবাহী লরি উল্টে পাঁচ গাড়িতে আগুন নিহত ২, দগ্ধ ৭

স্টাফ রিপোর্টার, সাভার থেকে
৩ এপ্রিল ২০২৪, বুধবার
mzamin

সাভারে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের জোড়পুল এলাকায় ইউটার্ন নির্মাণের জন্য রাখা সিমেন্টের পিলারের সঙ্গে ধাক্কা লেগে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায় একটি তেল বোঝাই লরি। এ সময় তেল বোঝাই লরিটিতে দাউ দাউ করে আগুন জ্বলে উঠলে সে আগুন পাশে এবং পেছনে থাকা একটি প্রাইভেটকারসহ আরও চারটি গাড়িতে ছড়িয়ে পড়ে। এতে ঘটনাস্থলেই অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যান সিমেন্ট বোঝাই ট্রাকের লেবার ইকবাল হোসেন। এছাড়া অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় আরও ৮ জনকে উদ্ধার করে ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে পাঠানো হয়। মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ইকবাল হোসেন (৩৪) যশোর জেলার চৌগাছা থানার বরনি গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে। তিনি সাভারের হেমায়েতপুর জয়নাবাড়ী এলাকায় স্ত্রীকে নিয়ে ভাড়া বাসায় থেকে সিমেন্টের ট্রাকে লেবারের কাজ করতেন। 

খবর পেয়ে প্রথমে সাভার ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চালায়। কিন্তু আগুনের তীব্রতা বেশি থাকায় পরে হেমায়েতপুর ট্যানারি শিল্প এলাকার দুইটি ইউনিট ও রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে আরও একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে যোগ দেয়। পরে ৬ টি ইউনিটের দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। এ ঘটনায় একজন নিহত ও ৮ জন দগ্ধ হয়েছে। 

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নেয়ার পর নজরুল ইসলাম (৪৫) নামে আরও ১ ব্যক্তি মারা গেছে।

বিজ্ঞাপন
তার গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহে বলে জানা গেছে। হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়া বাকি সাতজন হলেন- সিমেন্টের ট্রাকের লেবার বরিশালের বাকেরগঞ্জের মিলন মোল্লা (২২), বরগুনার মীম (১০), আল আমিন (৩৫), নিরঞ্জন (৪৫), হেলাল (৩০), রাজশাহীর আব্দুস সালাম (৩৫) ও সাকিব (২৪)। তাদের মধ্যে মিলন মোল্লার শরীরের ৪৫ শতাংশ, শিশু মীমের শরীরের ২০ শতাংশ, আল আমিনের  ১০ শতাংশ , নিরঞ্জনের ৮ শতাংশ, আব্দুস সালামের ৫ শতাংশ ও ট্রাকের চালক হেলাল ও হেলপার সাকিবসহ নিহত নজরুল ইসলামের শরীরের ১০০ শতাংশ পুড়ে যায়।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আবাসিক চিকিৎসক মো. তরিকুল ইসলাম জানান, সকালে সাভারে লরি উল্টে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় হাসপাতালে আটজন দগ্ধ রোগী এসেছেন। তাদের মধ্যে নজরুল ইসলাম নামে একজনকে হাসপাতালে নেয়ার আগেই মারা গেছে। দগ্ধদের মধ্যে হেলাল ও সাবিক নামের দু’জনের শরীরের ১০০ শতাংশ দগ্ধ হওয়ায় তাদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। এছাড়া শ্বাসনালী পুড়ে যাওয়ায় ১০ বছরের শিশু মিম ও মিলন মোল্লাও শঙ্কামুক্ত নন বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের চিকিৎসকরা। সাভার ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন ম্যানেজার নুরুল ইসলাম বলেন, তেলবাহী লরি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়ক বিভাজকের সঙ্গে ধাক্কা লেগে মহাসড়কে উল্টে যায়। এ সময় লরিটিতে ধরে যাওয়া আগুন পাশের আরও ৫টি গাড়িতে লাগে। 
 

পাঠকের মতামত

এইগুলা হত্যা দুর্ঘটনা না। আমাদের দেশে প্রাণের কোনো মূল্য নাই। রাস্তায় মানুষ পুড়ে মারা যাসসে।, রেস্তোরার পুড়ে মরছে।

Riaz
৩ এপ্রিল ২০২৪, বুধবার, ৬:০৭ পূর্বাহ্ন

শেষের পাতা থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

শেষের পাতা সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status