ঢাকা, ৪ অক্টোবর ২০২২, মঙ্গলবার, ১৯ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিঃ

অনলাইন

ছাত্র সমাবেশে বক্তারা

গুম হওয়াদের ফেরত দেয়ার আহবান

স্টাফ রিপোর্টার

(১ মাস আগে) ১৮ আগস্ট ২০২২, বৃহস্পতিবার, ৭:৪৭ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১১:৩৪ পূর্বাহ্ন

বিগত দিনে যারা গুম ও নিখোঁজের শিকার হয়েছেন অবিলম্বে ওই সকল ব্যক্তিদের খুঁজে বের করে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেয়ার আহবান জানিয়েছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সংগঠনের নেতারা। বৃহস্পতিবার বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে এক ছাত্র সমাবেশে তারা এ আহবান জানান। ‘গুম ও সাদা পোশাকে গ্রেপ্তারকৃত শিক্ষার্থীদের স্মৃতিচারণ ও ছাত্র জনতার সমাবেশ’ শীর্ষক এই সমাবেশের আয়োজন করে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা। এই ছাত্র সমাবেশে সংহতি প্রকাশ করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ, বিশিষ্ট আলোকচিত্রী শহীদুল আলমসহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষক। 

সমাবেশে অংশ নেয়া বক্তারা বলেন, দেশ আজ ধ্বংসের কিনারায়। চারদিকে গুম, খুনের আতঙ্ক মানুষের মাঝে। এই অবস্থা আর চলতে দেয়া যায় না। এ দেশের জনগণের অধিকার এবং সুশাসনের জন্য বর্তমান সরকারের পদত্যাগের মাধ্যমে জনগণের অংশগ্রহণমূলক সরকার প্রয়োজন। এ সময় তারা বিগত সময়ে গুম ও নিখোঁজ হওয়া ব্যক্তিদের অবিলম্বে মুক্তির আহবান জানান।  সমাবেশে বিভিন্ন সময়ে নিখোঁজ হওয়া কয়েকজন ছাত্রনেতা ওই ওসময়ের বর্ণনা তুলে ধরেন। তারা জানান, সাদা পোশাকে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর পরিচয়ে কীভাবে তাদের তুলে নেয়া হয়। 

সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, আজকে গণমাধ্যমে খবর এসেছে ভিন্ন মতের মানুষদের গুম করে আয়না ঘরে নিয়ে রাখা হয়।

বিজ্ঞাপন
এই দেশে কতগুলো আয়না ঘর আছে সেটা আমার জানা নেই। আজকে যে একের পর এক গুমের কাহিনী শোনা যাচ্ছে এটা শেষ হবার নয়। এর পরিবর্তন দরকার। তিনি বলেন, আজকে যদি এই সরকারের পরিবর্তন হয় তাহলে দেশের পরিবর্তন হবেই। একটা ফ্যাসিস্ট সরকার এইভাবে টিকে থাকতে পারে না। আজকে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে যদি জামিন দেয়া হয় তাহলে এই দেশে আগামী তিন চার মাসের মধ্যে পরিবর্তনের জোয়ার বইবে। ওনাকে দিয়েই আমরা বলাবো প্রত্যেকটা গুমের ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। আজকে সকল বিরোধীদলগুলোকে সমবেত কন্ঠে বলতে হবে পুলিশদের উদ্দেশ্যে, আপনারা যদি এসব বন্ধ না করেন এসব কাজের জন্য আপনাদেরও একদিন বিচার হবে। 

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, সবাইকে এসি না চালানোর জন্য। আগে ওনাকে তথ্য দেয়া প্রয়োজন, ওনার বাড়িতে কয়টা এসি চলে। আমার বাড়িতে কিন্তু একটাও এসি চলে না। আর এমপি-মন্ত্রীদের রুমে কয়টা এসি চলে আজকে এগুলো খুঁজে বের করা দরকার। 

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে জাফরুল্লাহ বলেন, হিংসা বাদ দেন। এই দেশের মানুষ আপনার কোন ক্ষতি করবে না। আমার বিশ্বাস, আমি আপনার পাশে দাঁড়ালে তারাও আপনার পাশে দাঁড়াবে। এখন একটাই কথা, এই দেশে সুষ্ঠু একটা নির্বাচন দরকার। সুশাসন দরকার। নির্বাচনের পূর্বে একটা নিরপেক্ষ সরকার বা জাতীয় সরকার দরকার। আর ১৪ আর ১৮ সালের খেলা চলবে না। ইভিএমের চালাকি চলবে না। 

গণঅধিকার পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক রাশেদ খান বলেন, আজকে ভিন্ন মতের যে কেউই গুম হতে পারেন। আমিও হতে পারি। আমাদের সরকারের এই গুম খুনকে ভয় পেলে চলবে না। আমাদেরকে সাহস নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। আর আমি আশা করছি এই দেশ থেকে গুম খুনের অপশাসন থেকে মুক্তি পাবে। 

ছাত্র অধিকার পরিষদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আকতার হোসেন বলেন, আজকে এই কর্মসূচি ঘোষণা করার পর থেকে বেশ কয়েকবার আমার বাড়িতে পুলিশ গিয়ে আমার পরিবারের সদস্যদের বিভিন্ন হুমকি ধামকি দিচ্ছে। পরিবার থেকে ফোন করে আমাকে বলা হয়, রাজনীতি বাদ দিতে। কিন্তু আমি এই যুদ্ধে নেমেছি এই দেশের মানুষের গণতন্ত্র ফিরিয়ে দেয়ার যুদ্ধে। আমরা ফ্যাসিবাদি সরকারের পতনের মাধ্যমে এই দেশের মানুষের সকল অধিকার ফিরিয়ে দিতে চাই। সমাবেশে ছাত্রঅধিকার পরিষদসহ বেশ কয়েকটি ছাত্র সংগঠনের নেতারা বক্তব্য রাখেন।

অনলাইন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

অনলাইন থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রায়শই মিলত ধর্ষণের হুমকি/ ‘গেট খুলে দেখি মেয়ে অর্ধ-উলঙ্গ এবং গলা কাটা’

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং স্কাইব্রীজ প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজিং লিমিটেড, ৭/এ/১ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status