ঢাকা, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, শনিবার, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ৩ শাওয়াল ১৪৪৫ হিঃ

বাংলারজমিন

ধামরাইয়ে তিন ফসলি জমির মাটি রক্ষা করতে পারছে না প্রশাসন

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি
১৯ মার্চ ২০২৩, রবিবার
mzamin

ঢাকার ধামরাইয়ের তিন ফসলি জমির মাটি রক্ষা করতে পারছেন না প্রশাসন। তাদের নাকের ডগায় ভেকু মেশিন দিয়ে মাটি ব্যবসায়ীরা জমির টপসয়েল কেটে নিলেও কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করছেন না তারা। শুধু জমির টপসয়েলই নয় ফসলি জমিকে তারা পুকুরে পরিণত করে রাতারাতি জমির শ্রেণিও পরিবর্তন করছেন তারা । এতেও স্থানীয় প্রশাসনের কোন মাথা ব্যথা নেই।   সরজমিনে দেখা গেছে, ধামরাই উপজেলার ১৬টি ইউনিয়নে প্রায় শতাধিক  স্থানের ফসলি জমিতে স্থানীয় মাটি ব্যবসায়ী ও ইটভাটা অনেক মালিক ধামরাইয়ের  নান্নার, রৌহা, জালসা, সূত্রাপুর, আমতা, বাস্তা, ভালুম, পথহারা, সানোড়া, বালিথা-বাথুলি, বেলিশ্বর, ভাড়ারিয়া, আমতলা, ধলকুণ্ড, বাইশাকান্দা, সুয়াপুরসহ বিভিন্ন  স্থানে খননযন্ত্র (এক্সকেভেটর) ভেকুর মাধ্যমে শত শত ট্রাক ও মাহেন্দ্র দিয়ে রাতে ও দিনে ফসলি জমির মাটি কেটে  নিয়ে যাচ্ছে। এতে প্রশাসনের কোনরকম অনুমতি ছাড়াই জমির শ্রেণি পরিবর্তন করে ফসলি জমি পুকুর ও জলাশয়ে পরিণত হওয়ায় আবাদি জমি কমে যাচ্ছে। ধামরাইয়ের বালিয়া ইউনিয়নের ভাবনহাটি পৃর্বপাড়া গ্রামে সেলিম হোসেন, অভিযোগ করে বলেন, ভাবনহাটি পৃর্বপাড়া এলাকায় আমার জমির পাশে মাটি কাটা হচ্ছে। এতে আমার জমির পাড় ভেঙে পড়ে যাচ্ছে। বিষয়টি উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি)কে জানানো হয়েছে। কিন্তু কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছেন না তারা।

বিজ্ঞাপন
 একই অভিযোগ বেলিশ্বর গ্রামের জালাল উদ্দিনের তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েও কোনো ফল পায়নি। মাটি ব্যবসায়ীরা রাতের আঁধারে মাটি কেটে নিচ্ছেই। এভাবে প্রতিদিনই উপজেলা প্রশাসনের দপ্তরের ভোক্তভোগীদের অভিযোগ পড়ছে। কিন্তু মাটি কাটা বন্ধ করেনি প্রশাসন। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, ফসলি জমির মাটি কেটে শুধু জমিই নষ্ট করছেন না তারা  গ্রামের ভেতর দিয়ে বেপরোয়াভাবে মাটির ট্রাক চলাচলের ফলে ধুলায় বসত বাড়িতেও  থাকা দায় হয়ে পড়েছে। গ্রামীণ সড়কও নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। তারা দ্রুত এই ফসলি জমির মাটি কাটা বন্ধের দাবি জানিয়েছেন। ধামরাই উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আরিফুল হাসান বলেন, অবাধে ফসলি জমির মাটি কেটে নেয়ায় আবাদি জমি কমে যাচ্ছে। মাটি কাটা বন্ধের জন্য পদক্ষেপ নেওয়া দরকার। উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ফারজানা আক্তার জানান, সরকারের অনুমতি ছাড়া জমির শ্রেণি পরিবর্তন করা যাবে না। কেউ করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি। 

বাংলারজমিন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

বাংলারজমিন সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status