ঢাকা, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১১ শাবান ১৪৪৫ হিঃ

ভারত

নাথিং আনফেয়ার ইন লাভ অ্যান্ড ওয়ার, ক্রিকেট তো যুদ্ধই, সাকিব ভুল করেননি

জয়ন্ত চক্রবর্তী, কলকাতা

(৩ মাস আগে) ৭ নভেম্বর ২০২৩, মঙ্গলবার, ৭:০০ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১২:১২ পূর্বাহ্ন

mzamin

নয়াদিল্লির অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার ব্যাটার অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসকে টাইমড আউট করে বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান কোনও ভুল কাজ করেছেন বলে আমি মনে করি না। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস হলেন বিশ্বের প্রথম ক্রিকেটার যিনি টাইমড আউট হলেন। একজন ব্যাটার আউট হওয়ার তিন মিনিটের মধ্যে পরের  ব্যাটার যদি স্টান্স না নেন তাহলে ফিল্ড করা দলের অধিনায়ক আবেদন করলে সেই ব্যাটার আউট বলে ঘোষিত হতে পারেন। আইসিসির ৪০.১.১ ধারায় এই আইনটি আছে। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস সোমবার একজন ব্যাটার আউট হওয়ার তিন মিনিটের মধ্যে স্টান্স নিতে ব্যর্থ হওয়ায় বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান টাইমড আউট এর আবেদন করেন। আম্পায়ার  ম্যাথিউসকে টাইমড আউট বলে ঘোষণা করেন।

এরপরই সালোচনার ঝড় উঠে যায়। ওই ম্যাচের ভাষ্যকার গৌতম গম্ভীর সাকিব এর আচরণের তীব্র প্রতিবাদ করেন, পাকিস্তানের প্রাক্তন খেলোয়াড় ওয়াকার ইউনিস সাকিবের এই আচরণে নিন্দা করেন, শ্রীলঙ্কার খেলোয়াড় আসালঙ্কা বলেন তিনি কখনও সাকিব হতেন না। 
আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি না সাকিব আল হাসান কোনও ভুল করেছেন। নাথিং আনফেয়ার ইন লাভ অ্যান্ড ওয়ার। ক্রিকেট তো একটা যুদ্ধই, সাকিব তো ফুল খেলতে ভারতে যাননি। আইসিসি’র আইন আছে তিন মিনিটের মধ্যে ব্যাটারকে স্টান্স নিতে হবে, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস তা নেননি।

বিজ্ঞাপন
 তাই সাকিব টাইমড আউট এর আবেদন করেছেন। কী ভুল করেছেন সাকিব? হেলমেটের স্ট্রাপ ঠিক ছিল না ম্যাথিউসের তাই তিনি স্টান্স নিতে দেরি করছেন, সাকিব কি এ ক্ষেত্রে একটু মানবিক হতে পারতেন না? এই প্রশ্নও উঠছে।

পাল্টা প্রশ্ন কি করা যেতে পারে? একজন ব্যাটার যখন মাঠে নামেন তখন তিনি তার সব ক্রিকেটিং গিয়ার ঠিক আছে কিনা দেখে নেওয়ার দায়িত্ব তো তারই। সাকিব নিয়মের মধ্যে থেকে আউট এর আবেদন করলেন তাই দোষটা তার, আর ব্যাটার যে ক্রিকেটের প্রাথমিক কর্তব্যটি পালন করলেন না- তার সাত খুন মাফ?

সাকিব দুহাজার সাত সালের দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট অধিনায়কের মতো মহানুভব হননি বলে অনেকের মুখে বাণী শোনা যাচ্ছে।  দুহাজার সাত সালে কী হয়েছিল? কেপটাউনে একটি ম্যাচে ভারতের সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ড্রেসিং রুমে বসেছিলেন তার ব্যাটিং অর্ডার পরে থাকায়। কিন্তু ভি ভি এস লক্ষণ স্নান করতে যাওয়ায় এবং একজন ব্যাটার দ্রুত আউট হয়ে যাওয়ায় সৌরভকে কিছুটা অপ্রস্তত অবস্থায় মাঠে নামতে হয় এবং তিন মিনিটের মধ্যে তিনি স্টান্স নিতে পারেননি। সেদিন সৌরভ টাইমড আউট হতে পারতেন। দক্ষিণ আফ্রিকার ক্যাপ্টেন স্মিথ এর বদান্যতায় হননি। দুহাজার সতেরর সঙ্গে আজকের দুহাজার তেইশ এর উদাহরণ টানাটা আমার মতে শুধু ভুল নয়, ঐতিহাসিক ভুল। সতেরো বছরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের চালচিত্র বদলে গেছে। অনেক ক্ষুরধার হয়েছে প্রতিদ্বন্দ্বিতা। স্পনসরদের চাপ বেড়েছে। ক্রিকেটাররা বাধ্য হয়েছে রোবটে পরিণত হতে। সাকিব এই চাপের কাছে মাথা নত করেছেন। চ্যাম্পিয়ন্স লীগে যোগ্যতা অর্জনের হাতছানি, নিয়মের মধ্যে থেকে বিপক্ষের সেরা ব্যাটারকে আউট করার মধ্যে কি অন্যায় আছে? মানবিকতা? সেগুলো তো ক্রিকেটাররা ড্রেসিংরুমে লকার বন্দি করে আসেন। মানে আমরা তাদের বাধ্য করি। প্রিয় দলকে যে কোনও মূল্যেই জিততে হবে। তা সে যে ভাবেই হোক। তাহলে সাকিবের ম্যাথিউসকে আউট করা নিয়ে এত শোরগোল কেন? আফটার অল সাকিব তো হা ডু ডু খেলতে নামেননি। এত যদি গেল গেল রব তাহলে আইসিসি নিয়মটা তুলে নিলেই পারে। নিয়মও রাখবো, আইন মোতাবেক কেউ কাজ করলে মানবিকতা মানবিকতা বলে চেঁচাবো- এই পরস্পরবিরোধিতা চলতে পারে কি?       
 

ভারত থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

ভারত সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2023
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status