ঢাকা, ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, মঙ্গলবার, ২৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৫ রজব ১৪৪৪ হিঃ

খেলা

রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ে সাকিবদের বিপক্ষে মাশরাফির জয়

স্পোর্টস রিপোর্টার
২৫ জানুয়ারি ২০২৩, বুধবারmzamin

সাধারণত ছুটির দিনে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের গ্যালারি মুখোরিত হয়ে ওঠে। স্টেডিয়াম কানায় কানায় পূর্ণ না হলেও দর্শকরা ছুটির আমেজে খেলা দেখতে আসেন। কিন্তু গতকাল কোনো ছুটির দিন ছিল না। এরপরও মাঠে উপস্থিত ১৫ হাজারের বেশি দর্শক। কারণ এদিন বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে (বিপিএল) মুখোমুখি হয়েছিলেন টাইগার ক্রিকেটের দুই মহাতারকা মাশরাফি বিন মুর্তজা ও সাকিব আল হাসান। মাঠে আসা দুই মহাতারকার ভক্তকুল নিরাশ হননি। টানটান উত্তেজনায় শেষ বলে জয় নিশ্চিত হয়েছে মাশরাফি বিন মুর্তজার সিলেট স্ট্রাইকার্সের। অন্যদিকে দারুণ লড়াইয়ের পর ২ রানে হেরেছে সাকিবের ফরচুন বরিশাল। ৭ ম্যাচে ৬ জয় ও ১ হারে ১২ পয়েন্ট নিয়ে এককভাবে টেবিলের শীর্ষে সিলেট। অন্যদিকে সমানসংখ্যক ম্যাচে ৫ জয় ও ২ হারে ১০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে বরিশাল।

বিজ্ঞাপন
সঙ্গে থেমেছে দলটির টানা ৫ ম্যাচে জয় যাত্রাও। দুই দলই প্রায় নিশ্চিত করে ফেলেছে প্লে-অফের খেলা।  টসে হেরে ব্যাট করতে নামা সিলেটের দারুণ জয়ের পুঁজি এনে দিয়েছেন ব্যাটার নাজমুল হোসেন শান্ত। নানা আলোচনা-সমালোচনাকে পেছনে ফেলে তিনি লড়াই করেছেন বুক চিতিয়ে। ইনিংসের প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত টিকে থেকে ১১ চার ও ১ ছক্কায় ৬৬  বলে অপরাজিত থাকলেন ৮৯ রানে। এবারের বিপিএলে তার দ্বিতীয় ফিফটি এটি। তার ওপর চেপে বিপিএলে গতকাল সিলেট স্ট্রাইকার্সের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ১৭৩ রান। জবাব দিতে নেমে বরিশালও ছেড়ে কথা কয়নি। শেষ বল পর্যন্ত লড়াই করেছে। জবাবে ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৭১ রান করে ম্যাচ হারে বরিশাল। লক্ষ্য তাড়ায় নেমে দারুণ শুরু পায় বরিশাল। দুই ওপেনার সাইফ হাসান ও ইব্রাহীম জাদরান মিলে তুলে ফেলেন ৪২ রান। তবে ৪ রানের ব্যবধানে দুই উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় তারা। ১৯ বলে ৪ ছক্কায় ৩১ রান করা সাইফকে বিদায় করেন সিলেটের তরুণ পেসার তানজিম হাসান সাকিব। এরপর তিনে নেমে দ্রুত ফেরেন এনামুল হক বিজয়। চাপের মুখে ইব্রাহীমকে সঙ্গে নিয়ে ইনিংসের হাল ধরেন সাকিব। দু’জনে মিলে ৫১ রানের দারুণ এক জুটি গড়েন। ফিফটির দিকে ছুটতে থাকা ইব্রাহীমকে ৪২ রানে বিদায় করেন রেজাউর রহমান রাজা। একই ওভারে ১৮ বলে ২৯ রান করা সাকিবের উইকেটও তুলে নেন তরুণ এই পেসার। তবে এরপরও হাল ছাড়েনি বরিশাল। মাশরাফির এক ওভারে হ্যাটট্রিক ছক্কা হাঁকিয়ে চাপ থেকে দলকে কিছুটা মুক্তি দেন করিম জানাত। ওই ওভারে আসে ২১ রান। তাতে লক্ষ্যটাও ছোট হয়ে আসে। কিন্তু পরের ওভারে মোহাম্মদ আমির দারুণভাবে চেপে ধরেন দুই অন-ক্রিজ ব্যাটারকে। তার করা ইনিংসের ১৭তম ওভারে আসে মাত্র ১ রান। সেইসঙ্গে ওভারের শেষ বলে করিম জানাতকে কট অ্যান্ড বোল্ড করে আসল কাজটাও সেরে ফেলেন পাকিস্তানি পেসার। ১২ বলে ২১ রান করে বিদায় নেন করিম। শেষ ১৮ বলে ৪১ রানের লক্ষ্য দাঁড়ায় বরিশালের সামনে। সাকিবের করা পরের ওভারের প্রথম দুই বলে ইফতিখার আহমেদের ব্যাট থেকে চার ও ছক্কায় আসে ১০ রান। তৃতীয় বলে স্ট্রাইকে গিয়ে ছক্কা হাঁকান মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। ওই ওভারে সবমিলিয়ে আসে ১৮ রান। কিন্তু পরের ওভারের প্রথম বলেই রিয়াদকে ফিরিয়ে ব্রেক থ্রু এনে দেন আমির। তবে স্ট্রাইকে গিয়েই ছক্কা হাঁকিয়ে বসেন মেহেদী হাসান মিরাজ। শেষ ৬ বলে ১৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে গিয়ে প্রথম বলেই ক্যাচ তুলে দিয়ে বিদায় নেন ইফতিখার। পরের বলে উইকেটরক্ষক মুশফিকের সরাসরি থ্রোয়ে রানআউট হয়ে ফেরেন মিরাজও। পঞ্চম বলে ছক্কা হাঁকিয়ে জমিয়ে তোলেন মোহাম্মদ ওয়াসিম। এতে শেষ বলে ৭ রান দরকার ছিল। কিন্তু ওয়াসিম হাঁকান চার। ফলে ২ রানে জিতে যায় সিলেট।

খেলা থেকে আরও পড়ুন

খেলা সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status