ঢাকা, ৩০ জুন ২০২২, বৃহস্পতিবার, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৯ জিলক্বদ ১৪৪৩ হিঃ

খেলা

কিংসের জালে মোহনবাগানের গোল উৎসব

স্পোর্টস রিপোর্টার
২২ মে ২০২২, রবিবার

এএফসি কাপের প্লে-অফে এই সল্টলেক স্টেডিয়ামে আবাহনীকে ৩-১ গোলে হারিয়েছিল এটিকে মোহনবাগান। ওই ম্যাচে হ্যাটট্রিক করে দলের জয়ে বড় ভূমিকা রাখেন অস্ট্রেলিয়ান ফরোয়ার্ড ডেভিড উইলিয়ামস। কাল একাদশে ছিলেন না ডেভিড উইলয়ামস। তার হয়েই যেন কাজটা করলেন এলিস্টান কোলাসো। কাল সল্ট লেকে কোলাসোর হ্যাটট্রিকেই বাংলাদেশের আরেক ক্লাব বসুন্ধরা কিংসকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে এটিকে মোহনবাগান। বদলি হিসেবে নেমে চার নম্বর গোলটি করেন ডেভিড উইলিয়ামস। কোলাসোর গোল তিনটিতে যতোটা ভূমিকা আছে তার, চেয়ে বেশি দায় আছে কিংসের ডিফেন্ডারদের। বিশ্বনাথের ভুলেই প্রথম গোলটি হজম করে কিংস। দ্বিতীয়টির দায় তারিক কাজীর। আর কর্নার বাঁচাতে গিয়ে বক্সের মধ্যে বিপদ ডেকে আনে খালিদ সাফি।

বিজ্ঞাপন
এটি এএফসি কাপে বসুন্ধরা কিংসের প্রথম হার। এই হারে গ্রুপপর্ব থেকেই কিংসের বিদায় অনেকটা নিশ্চিত হয়ে গেল। এএফসি কাপের গত আসরেও  গ্রুপ পর্বে কোনো ম্যাচ না হেরেও বিদায় নিয়েছিল বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়ন ক্লাবটি। কাল কিক অফের পরপরই দারুণ সুযোগ কড়া নেড়েছিল কিংসের দরজায়। প্রতিপক্ষের ডিফেন্সের ভুলে বক্সের ঠিক ওপরে বল পেয়ে যান মিগেল দামাশেনা। চিনেডু ম্যাথিউয়ের সঙ্গে একবার বল দেওয়া-নেওয়া করে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের নেওয়া শট বাইরে যায় পোস্ট ঘেঁষে। এরপরই শুরু হয় ঝড়ো বৃষ্টি। মাঠের চারপাশে থাকা বিলবোর্ড, ব্যানার ঝড়ো বাতাসের তোড়ে উড়ে যায়।  এরপর ভারী বর্ষণের সঙ্গে শুরু হলো বজ্রপাতও। বাধ্য হয়ে বসুন্ধরা কিংস- মোহনবাগানের লড়াই স্থগিত করে দেন রেফারি। পরিস্থিতি ভালো হওয়ায় প্রায় ঘণ্টা পর আবারও খেলা শুরু হয়েছে। ৫০ মিনিটের বেশি সময় স্থগিত থাকার খেলা শুরু হলে স্বাগতিকদের চেপে ধরে বসুন্ধরা কিংস। ম্যাচের ১৭ মিনিটে রবসন ববিনহোর ফ্রি-কিক পোস্টে লেগে প্রতিহত না হলে এগিয়ে যেতো বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নরা। এর ঠিক চার মিনিট পর আবারো কিংসের বাধা হয়ে দাঁড়ায় মোহনবাগের পোস্ট। এবার রিমন হোসেনের শট পোস্টে লেগে প্রতিহত হয়। ম্যাচের ২৫তম মিনিটে মোহনবাগানকে গোল উপহার দেন কিংসের ডিফেন্ডার বিশ্বনাথ ঘোষ। তার সহজ ভুলেই এলিস্টান কোলাসো লিড এনে দেন স্বাগতিকদের (০-১)। ডিফেন্সের ভুলে কিংস দ্বিতীয় গোল হজম করে ম্যাচের ৩৩ মিনিটে। এবার তারিক কাজী কোলাসোকে অফসাইডের ফাঁদে ফেলতে গিয়ে বড় ভুল করেন। এই ভুলের সুযোগ কাজে লাগিয়ে দ্বিতীয় গোলটি করেন এই ভারতীয় ফরোয়ার্ড (০-২)। দ্বিতীয়ার্ধে কিংসের সামনে প্রতিরোধের দেয়াল হয়ে দাঁড়ায় মোহনবাগের গোলরক্ষক আনোয়ার শেখ। ম্যাচের ৫৩ মিনিটে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করে দলকে (০-৩) গোলের লিড এনে দেন কোলাসো। এবার ইরানিয়ান ডিফেন্ডার খালিদ সাফির ভুলে গোলটি করেন এই ফরোয়ার্ড।  তিন গোল হজমের পর তিনটি পরিবর্তন করে আক্রমণের ধার বাড়াতে চেষ্টা করেন অস্কার ব্রুজন। বিশ্বনাথ ঘোষ, মাসুক মিয়া জনি ও চিনেদু ম্যাথিউকে উঠিয়ে এলিটা কিংসলে, মতিন মিয়া ও ইব্রাহিমকে মাঠে নামিয়েও ম্যাচের ভাগ্যে পরিবর্তন আনতে পারেননি এই স্প্যানিশ কোচ। উল্টো ম্যাচের ৭৭ মিনিটে বসুন্ধরা জালে আরও একবার বল প্রবেশ করান ডেভিড উইলিয়ামস। বদলি হিসেবে নেমে চার মিনিটের মাথায় দলের হয়ে চতুর্থ গোলটি করেন এই অস্ট্রেলিয়ান ফরোয়ার্ড। পুরো ম্যাচে একবারে নিষ্প্রভ ছিল কিংসের রক্ষণভাগ। নুহা মারংয়ের বদলে একাদশে সুযোগ পাওয়া চিনেদু ম্যাথিউকেও খুঁজে পাওয়া যায়নি। সেভাবে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি দলটির দুই ব্রাজিলিয়ান মিগেল দামাশেনা ও রবসন রবিনহো। যার খেসারত এই ৪ গোলের বড় হার দলটির। যা শুধু আন্তর্জাতিক ম্যাচেই নয়, ক্লাবটির ইতিহাসে সবচেয়ে বড় হার।  এর আগে গত বুধবার মাজিয়া স্পোর্টিস অ্যান্ড রিক্রিয়েশন ক্লাবের বিপক্ষে ১-০ গোলে জিতে গ্রুপ পর্বের পথচলা শুরু করে বসুন্ধরা কিংস। ব্যবধান গড়ে দেওয়া একমাত্র গোলটি প্রথমার্ধের ৩৩তম মিনিটে করেন গাম্বিয়ান ফরোয়ার্ড নুজা মারাং। কাল তাকে একাদশেই রাখেননি কিংস কোচ অস্কার ব্রুজন। অপরদিকে উদ্বোধনী দিনেই গোকুলাম কেরালার কাছে ৪-২ গোলে হার নিয়ে মিশন শুরু করে মোহনবাগান। আগামী মঙ্গলবার গোকুলাম কেরালার সঙ্গে গ্রুপে নিজেদের শেষ ম্যাচটি খেলবে বসুন্ধরা কিংস।
 

খেলা থেকে আরও পড়ুন

খেলা থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com