ঢাকা, ১০ ডিসেম্বর ২০২২, শনিবার, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিঃ

মত-মতান্তর

সাধারণ মানুষের নুন আনতে পান্তা ফুরোচ্ছে, মাথাপিছু আয় লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে!

আলী রীয়াজ

(৩ সপ্তাহ আগে) ১৬ নভেম্বর ২০২২, বুধবার, ১০:১২ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ৫:৫৫ অপরাহ্ন

mzamin

বাংলাদেশের মানুষের গড় মাথাপিছু আয় ২৩৩ ডলার বেড়ে ২ হাজার ৮২৪ ডলারে পৌঁছেছে সরকারের দেয়া এই তথ্যকে আপনি তিনভাবে দেখতে পারেন -

১। এটা একটা তৈরি করা হিসেব, এর সঙ্গে বাস্তবতার মিল নেই। ফাঁকিঝুঁকি, গড়মিল এইসব করে একটা সংখ্যা তৈরি করা হয়েছে। এটা বাংলাদেশের ডলার রিজার্ভের হিসেবের মতো, সরকারের কাছে আইএমএফ ৩৪ বিলিয়ন ডলারের হিসেব চাইলে দেখা গেলো বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর বললেন আছে মাত্র ২৪ বিলিয়ন ডলার। অথচ জ্ঞানীজনেরা নির্বোধ বাংলাদেশিদেরকে রিজার্ভের হিসেব দেখিয়ে বলছেন এখনও ৩৫ বিলিয়ন ডলার আছে। এখন বাতাসে ভিন্ন কথা শোনা যাচ্ছে – রিজার্ভের পরিমাণ সম্ভবত আরও কম। বাতাসের কথা সত্যি না মিথ্যা তা বোঝার উপায় নেই কেননা প্রকৃত হিসেব দেয়ার বাধ্যবাধকতা নেই, জবাবদিহিতার ব্যবস্থা নেই। রিজার্ভের আকাশচুম্বী পরিমাণ, সারা দেশে বিদ্যুতের বন্যা বইয়ে দেয়া, উন্নয়নের জয়ডঙ্কার মতো এই হিসেবেও আপনার কাছে অবাস্তব মনে হতে পারে। যখন প্রধানমন্ত্রী নিজেও নিশ্চিত না ‘দুর্ভিক্ষ’' হবে কি হবেনা, যখন সাধারণ মানুষের নুন আনতে পান্তা ফুরোচ্ছে – সেই সময়ে মাথাপিছু আয় লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ে কীভাবে সেই প্রশ্ন আপনি করতেই পারেন। আর সেই উত্তর না পেলে আপনাকে এই উপসংহারে পৌছুতে হবে – এই অংক বানানো।

২।

বিজ্ঞাপন
মাথাপিছু আয় অবশ্যই বেড়েছে। সবার বাড়েনি – কেননা এই হিসেব গড় আয়ের। ফলে আপনার- আপনার পরিবারের, বন্ধু-বান্ধব-আত্মীয়স্বজনের বাড়েনি মানে এই নয় যে আয় বাড়েনি। আপনি না হয় ওএমএস এর লাইনে জায়গা খুঁজছেন, আপনার পরিচিতজন না হয় খাবারের পরিমাণ কমাচ্ছে, কিন্ত অন্য কারো বেড়েছে। তার মানে দাঁড়াচ্ছে যখন অধিকাংশের আয় কমছে তখন খুব স্বল্প সংখ্যকের আয় বাড়ছে; এই বৃদ্ধি যৎসামান্য নয় – এতটাই যে সারা দেশের ১৮ কোটি মানুষকে টেনে তুলছে। তাঁরা সংখ্যায় কম – তার মানে বুঝতে পারছেন? তার অর্থ হল বৈষম্য বাড়ছে – ভয়াবহ ভাবেই বাড়ছে। যাদের আয় বাড়ছে তাঁরা কারা? এই সময়ে ক্ষমতাসীনদের আশ্রয়-প্রশ্রয়  না পেয়ে এই বৃদ্ধি যে সম্ভব না তা বুঝতে রকেট-বিজ্ঞানী হতে হয় না। চারিদিকে যখন সংকটের কথা, যখন সরকার এইএমএফ, বিশ্বব্যাংক এবং অন্যদের কাছে ঋণ চাইছে এই বলে যে না হয় সাধারণ মানুষ কষ্টে পড়বে সেই সময়ে মাথাপিছু আয় বাড়া মানুষগুলো কারা? কী ধরণের অর্থনৈতিক এবং রাজনৈতিক ব্যবস্থা বহাল থাকলে এই রকম ‘আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ’ হওয়াকে স্বাভাবিক বলে মেনে নেয়া হয়।

৩। সরকার বলেছে অতএব এটা ধ্রুব সত্য। আমাদের মেনে নিতেই হবে। আপনার চারপাশে কী ঘটলো তা নিয়ে চিন্তা করে লাভ নেই – সরকারে আস্থা রাখুন। শুধু তাই নয়, এখনই এই কথা প্রচারের জন্যে ঢোল জোগাড় করুন, না পারলে সামাজিক মাধ্যমে দুই বাক্য লিখুন - এতে আপনি কত গর্বিত। (কিন্ত বাজারে যাবেন না, সেখানে জিনিসপত্রের দাম বেশ চড়া)।

[লেখক: যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনয় স্টেট ইউনিভার্সিটির রাজনীতি ও সরকার বিভাগের ডিস্টিংগুইশড প্রফেসর, আটলান্টিক কাউন্সিলের অনাবাসিক সিনিয়র ফেলো এবং আমেরিকান ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ স্টাডিজের প্রেসিডেন্ট। লেখাটি ফেসবুক থেকে নেয়া।]

পাঠকের মতামত

মীর কাসিম আলী ফাউন্ডেশনের প্রচারক আলী রিয়াজ সাহেব তার প্রভূ মীর কাসিম আলী (ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা)র ন্যায় সবসময় বাংলাদেশের বিরুদ্ধাচরন করেন। তার দৃষ্টিতে বাংলাদেশ ১৪ বছর আগে থেকে দেওলিয়াত্বে ভুগছে।জনতার নিকট আমার প্রশ্ন বিদেশে অবস্হানরত বাংলাদেশের এসব বুদ্ধিজীবি নামক নরকের কিটগুলো সরকার বিরোধিতার নামে দেশের বিরুদ্ধে আর কত অপপ্রচার চালাবে?

HM Babul Chowdhury
৬ ডিসেম্বর ২০২২, মঙ্গলবার, ২:৩৮ পূর্বাহ্ন

Government don't care it!

Saif
১৮ নভেম্বর ২০২২, শুক্রবার, ৪:৫২ পূর্বাহ্ন

Who cares about the per capita income? Only Hasina and her gov. We care about our daily food for survival.

Mustafizur Rahman
১৭ নভেম্বর ২০২২, বৃহস্পতিবার, ৩:১৮ অপরাহ্ন

Sir, for exposing the truth, your life might have at risk, please take care your self . We got independent country after 8 months 5 days of liberation war as bangladesh but we can't express ourself free & fare less. We can't vote our own choice......

Nannu chowhan
১৬ নভেম্বর ২০২২, বুধবার, ৬:৫৪ অপরাহ্ন

স্যার, আপনি শীঘ্রই বাংলাদেশ ভ্রমণের কথা ভাবছেন নাতো? Please don’t. আমরা আপনার মতো জ্ঞানী অথচ পাপী নয়, সত্যকথনে অবিচল, এমন মানুষদের গুম হতে কিংবা রাষ্ট্রদোহীতার অপবাদে সরকারের আয়নাঘরে দেখতে চাইনা। কঠিন অর্থনীতির পাঠ আমাদের ম্যাংগো-পাবলিকের ভাষায় সহজ করে বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য আপনাকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

Enamul Kabir Sarker
১৬ নভেম্বর ২০২২, বুধবার, ১২:০০ পূর্বাহ্ন

এটা জনগনের সাথে তামাশা ছাড়া আর কি হতে পারে??

বখতিয়ার
১৫ নভেম্বর ২০২২, মঙ্গলবার, ৯:৫৩ অপরাহ্ন

মত-মতান্তর থেকে আরও পড়ুন

মত-মতান্তর সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status