ঢাকা, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, বুধবার, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিঃ

কলকাতা কথকতা

বিজেপির নবান্ন অভিযানের আগেই দ্বিধাবিভক্ত দলকে এক করার প্রয়াস

বিশেষ সংবাদদাতা, কলকাতা

(২ সপ্তাহ আগে) ১০ সেপ্টেম্বর ২০২২, শনিবার, ১১:১১ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১২:৪১ অপরাহ্ন

ফাইল ছবি

তৃণমূল কংগ্রেস সরকারের দুর্নীতির বিরুদ্ধে রাজ্য বিজেপির নবান্ন অভিযান মঙ্গলবার। তার আগে নিজেদের ফুটিফাটা চেহারাটি ঢাকার চেষ্টা করল গেরুয়া শিবির। অমিত শাহ ঘনিষ্ঠ সুনীল বনসলকে রাজ্যের আংশিক সময়ের পর্যবেক্ষক করে অবস্থা সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেছিল বিজেপি। কিন্তু, সুনীল বনসল বুঝতে পারেন যে গোষ্ঠী দ্বন্দ্বে বিদীর্ণ বিজেপিকে একাট্টা করা আংশিক সময়ের পর্যবেক্ষকের কাজ নয়, চাই পূর্ণ সময়ের পর্যবেক্ষক। যেহেতু, সুনীল বনসলকে বাংলা ছাড়াও ওড়িশা ও তেলেঙ্গানার কাজ দেখতে হয়। তাই বিহারের প্রাক্তন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মঙ্গল পান্ডেকে বঙ্গ বিজেপির সর্বক্ষণের পর্যবেক্ষক নিযুক্ত করা হলো। তাঁকে সাহায্য করবেন রাঁচির প্রাক্তন মেয়র আশা লাকরা ও অমিত মালব্য। অর্থাৎ, আবার সেই অবাঙালি ব্রিগেড। ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে অবাঙালি ব্রিগেড কে পথে নামিয়ে বিজেপি মাশুল ভালোই দিয়েছিলো। আবার সেই ভুল তারা করছে নাতো? মঙ্গলবারের নবান্ন অভিযানের নেতৃত্বে কিন্তু তিন বঙ্গ সন্তান।

বিজ্ঞাপন
নবান্ন অভিমুখে তিনটি মিছিলের নেতৃত্ব দেবেন সুকান্ত মজুমদার, দিলীপ ঘোষ ও  শুভেন্দু অধিকারী। এই তিনজনের মধ্যের সমীকরণ আবার  ঘাঁটা। বঙ্গ বিজেপির অসুখ এটাই। পুরোনো নেতাদের ভাষায় উড়ে এসে জুড়ে বসা নেতাদের তাঁরা মানবেন না। নতুনরা আবার আধিপত্য নিয়ে রাজ করতে চান। দুয়ের টানাপোড়েন এ প্রাণ ওষ্ঠাগত সাধারণ কর্মীদের। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নন বিজেপির নেতাদের এখন যেন প্রতিপক্ষ বিজেপি নেতারাই। তাই, বঙ্গে শত দুর্নীতি সত্ত্বেও- এডভান্টেজ তৃণমূল!                 
 

কলকাতা কথকতা থেকে আরও পড়ুন

কলকাতা কথকতা থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং স্কাইব্রীজ প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজিং লিমিটেড, ৭/এ/১ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status