ঢাকা, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, সোমবার, ১১ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৯ সফর ১৪৪৪ হিঃ

মত-মতান্তর

কোনো কালিমা তাকে স্পর্শ করেনি

জিল্লুর রহমান
১০ সেপ্টেম্বর ২০২২, শনিবার

ড. আকবর আলি খান মারা গেছেন গত রাতে। হঠাৎ এই খবরে আমি এতটাই শোকাহত ও স্তম্ভিত যে কিছু বলতে বা লিখতে ইচ্ছা করছিল না। ভীষণ শরীর খারাপ নিয়েও মার্চ মাসে এসেছিলেন সিজিএস- এর অনুষ্ঠানে। বলেছিলেন আমাকে আর না করা সম্ভব হচ্ছিল না তার পক্ষে। চমৎকার বক্তৃতা করলেন, সব গণমাধ্যম সেটি ফলাও করে প্রচার করলো। এর আগেও সিজিএস- এর একাধিক অনুষ্ঠানে এসেছেন। তৃতীয় মাত্রায় অংশ নিয়েছেন বেশ কয়েকবার। বাংলা আর বাংলাদেশকে ভালোবাসতেন হৃদয় উজাড় করে। মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন বলেই হয়তো। সাহসের কমতি ছিল নাতো বটেই, লোভও কাবু করতে পারেনি।

বিজ্ঞাপন
আর তাইতো তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টার পদ ছেড়ে দিয়েছিলেন স্বেচ্ছায়। যে ক’জন হাতে গোনা মানুষ সাহস করে কথা বলতেন তিনি ছিলেন তাদের একজন। অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেল আমাদের, বাংলাদেশের। দেশে-বিদেশে লেখাপড়া করেছেন। চাকরি করেছেন দেশের ভেতরে-বাইরে। প্রশাসনের সর্বোচ্চ স্তরে দায়িত্ব পালন করেছেন নিষ্ঠা আর সততার সঙ্গে। কোনো কালিমা তাকে কখনো স্পর্শ করেনি, কারও কোনো অভিযোগ তাকে ছুঁতে পারেনি। 

 

 

শিক্ষকতা করেছেন। মেধাবী এই মানুষটি লেখালেখি করেছেন দু’হাতে, বাংলায় এবং ইংরেজীতে; পরিশ্রমী গবেষক ছিলেন। প্রিয় স্ত্রী আর কন্যার শোক তাকে  ক্রমাগত একাকী করেছে, কিন্তু থামাতে পারেনি। নিয়ন্ত্রণহীন অসুস্থতা তাকে কখনোই দমাতে পারেনি। অনেকগুলো উল্লেখযোগ্য বই তিনি লিখে গিয়েছেন, যেগুলো থেকে যাবে আজীবন, তার না থাকার মধ্যেও। ড. খান, আমি বিশ্বাস করি, আপনি ভালো থাকবেন ওপাড়ে। কোটি মানুষের ভালোবাসা আপনার সঙ্গে আছে। আপনার অভাব আমরা সবসময় অনুভব করবো সত্যি, কিন্তু আপনি আমদের জন্য যা রেখে গেছেন সেও অনেক, খুব কম মানুষই তা পারে। আপনার কর্ম আমাদের সাহস, শক্তি এবং এগিয়ে চলার অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করবে সকল সময়। আপনার পরিবারের সদস্যদের প্রতি আমাদের সমবেদনা। আল্লাহ আপনার সহায় হোন। শান্তিতে ঘুমান আপনি।

পাঠকের মতামত

" বাংলা আর বাংলাদেশকে ভালোবাসতেন হৃদয় উজাড় করে। মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন বলেই হয়তো। সাহসের কমতি ছিল নাতো বটেই, লোভও কাবু করতে পারেনি।আর তাইতো তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টার পদ ছেড়ে দিয়েছিলেন স্বেচ্ছায়। যে ক’জন হাতে গোনা মানুষ সাহস করে কথা বলতেন তিনি ছিলেন তাদের একজন। অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেল আমাদের, বাংলাদেশের। দেশে-বিদেশে লেখাপড়া করেছেন। চাকরি করেছেন দেশের ভেতরে-বাইরে। প্রশাসনের সর্বোচ্চ স্তরে দায়িত্ব পালন করেছেন নিষ্ঠা আর সততার সঙ্গে। কোনো কালিমা তাকে কখনো স্পর্শ করেনি, কারও কোনো অভিযোগ তাকে ছুঁতে পারেনি।" তিনি এত ভাল ছিলেন বলেই রাষ্ট্র ও সরকারের কাছে হয়েছেন উপেক্ষীত , আর এ জন্যই যদু, মধু , X , Y , Z, ও আব্দুলদের বিভিন্ন রাষ্ট্রীয় খেতাব পেলেও তাঁর ভাগ্যে কুছুই মিলে নাই !

আশেক উল্লাহ্
২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, রবিবার, ১০:০৯ পূর্বাহ্ন

Completely gentle man & honest.

Md.Serajul Islam
১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, সোমবার, ২:৩৩ পূর্বাহ্ন

Inna lillahe Wa inna ilaihe Rajewon.

Kamrozzaman
৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, শুক্রবার, ১১:৪৯ অপরাহ্ন

জীবনের শেষ কয়েক তিনি জুলুমবাজ সরকারের বিরুদ্ধে দেশের মানুষের পক্ষে কথা বলেছেন ঠিকই কিন্তু ওয়ান ইলেভেনের অবৈধ সরকারকে ক্ষমতায় বসানোর চক্রান্তেও লিপ্ত ছিলেন যা তার তত্ত্বাবধায় ক সরকারের উপদেষ্টা থাকাকালীন কার্যক্রম গুলো মনে করলেই স্পষ্ট হয়ে ওঠে তিনি সহ আরো দু তিনজন তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা কে প্রশ্নবিদ্ধ করে জনগণের এবং দেশের অনেক ক্ষতির পথকে শুভম করে দিয়েছেন বলে মনে হয় যদি ও তিনি হয়তো তার জীবনের সেই ভুলগুলো বুঝতে পেরে পরবর্তীতে ভালো কিছু করার চেষ্টা করে গেছেন

Adv.N.I.Bhuiyan
৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, শুক্রবার, ৯:৫১ অপরাহ্ন

His absence will be greatly missed during this difficult situation.

Mustafizur Rahman
৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, শুক্রবার, ১২:৪২ অপরাহ্ন

মত-মতান্তর থেকে আরও পড়ুন

মত-মতান্তর থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং স্কাইব্রীজ প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজিং লিমিটেড, ৭/এ/১ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status