ঢাকা, ১৮ মে ২০২৪, শনিবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৯ জিলক্বদ ১৪৪৫ হিঃ

শেষের পাতা

ফুলগাজী-পরশুরামে ‘ফেনী স্টাইলে’ নির্বাচন

নাজমুল হক শামীম, ফেনী থেকে
২৩ এপ্রিল ২০২৪, মঙ্গলবার

উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আবারো আলোচনায় ফেনীর দুই উপজেলা ফুলগাজী ও পরশুরাম। ৬টি পদের মধ্যে ৪টি পদে ভোটের প্রয়োজন হচ্ছে না। প্রত্যাহারের শেষ দিনে একক প্রার্থী থাকায় কোনো পদেই ভোটের প্রয়োজন পড়ছে না পরশুরাম উপজেলায়। বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনেও পরশুরামে সকলে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়েছিল। 

অপরদিকে ফুলগাজীতে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী থাকায় সেখানে চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে ভোট হবে। ফুলগাজীতে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীর সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন দলীয় একজন প্রার্থী। এ ছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা সকলে আওয়ামী লীগের নেতা। 

দুই উপজেলার রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ রেজাউল করিম জানান, ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রথম ধাপে আগামী ৮ই মে ফেনীর ফুলগাজী ও পরশুরাম উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যে মনোনয়ন জমা দানের শেষ দিনে দুই উপজেলায় চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ ও মহিলা পদে ২১ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। পরবর্তীতে গত ১৭ই এপ্রিল মনোনয়ন যাচাই-বাছাই-এ ১৯ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছিল। ওই সময়ে ফুলগাজী উপজেলার দুই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করে দেয়া হয়।

তবে মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন সোমবার দুই উপজেলায় ১৩ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেন।

বিজ্ঞাপন
এদের মধ্যে পরশুরাম উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে বর্তমান চেয়ারম্যান কামাল উদ্দীন মজুমদার ও আবুল হাসেম চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ইকরামুল করিম মজুমদার, নজরুল ইসলাম ও আবদুল রসুল মজুমদার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নিলুফা ইয়াসমিন। এ উপজেলায় ৬ জন প্রার্থী মনোনয়ন প্রত্যাহার করায় চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা ফিরোজ মজুমদার, ভাইস চেয়য়ারম্যান (পুরুষ) পদে ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম. সফিকুল হোসেন মহিম ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান উপজেলা পরিষদ মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সামছুন নাহার পাপিয়া একক প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনী মাঠে রয়েছেন। সেক্ষেত্রে চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়য়ারম্যান পদে এ উপজেলায় ভোটের প্রয়োজন পড়ছে না। প্রার্থীরা সকলে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হতে চলেছেন।

ফুলগাজী উপজেলার চেয়ারম্যান পদে বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আবদুল আলিম মজুমদার ও হুমায়ুন কবির এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মাহফুজা আক্তার ও সাজেদা আক্তার তাদের মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেন। এতে করে চেয়ারম্যান পদে দুইজন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরা হলেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হারুন মজুমদার ও জাফর উল্ল্যাহ মজুমদার। ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরা হলেন মাহবুবুল হক কালা, অনিল বনিক, আবদুর রহিম পাটোয়ারী ও সাইফুদ্দিন মজুমদার। মহিলা ভাইস চেয়ায়ারম্যান পদে একক প্রার্থী থাকায় মঞ্জুরা আজিজ বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হতে চলেছেন।

ফেনীতে ভোটের সংস্কৃতি নিয়ে দীর্ঘদিনের একটি প্রচলিত প্রবাদ রয়েছে। তা হলো ‘ফেনী স্টাইলের নির্বাচন’! পরশুরামে একক প্রার্থী থাকায় ভোট না হওয়া এবং ফুলগাজীতে একাধিকবারের নির্বাচিত বর্তমান চেয়ারম্যান দলের নির্দেশে দলীয় প্রার্থীকে সমর্থন নিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোয় সর্বত্র ‘ফেনী স্টাইল’র নির্বাচন সবর পড়েছে।

এ বিষয়ে ফুলগাজী উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেয়া প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আবদুল আলিম মজুমদারকে মুঠোফোনে ও হোয়াট্‌স অ্যাপে একাধিকবার কল করলেও তিনি রিসিভ করেননি। অপরদিকে একই বিষয়ে বক্তব্য জানতে পরশুরাম উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেয়া প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কামাল উদ্দীন মজুমদার জানান, ‘২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর পরপর তিনবার আমি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হই। এর মধ্যে দুইবার ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ও একবার বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হই। এবার দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতাকে সম্মান জানিয়ে ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিয়েছি। 

এদিকে দেশজুড়ে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দলীয় কোনো প্রার্থীকে সমর্থন না দেয়ার নির্দেশনা দেয়া হলেও ফেনীতে ঘটছে উল্টো ঘটনা। দলীয় প্রার্থী দিয়েছে জেলা আওয়ামী লীগ। এরপরই জেলার রাজনীতিতে ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম হাজারীর একক নিয়ন্ত্রণের বিষয়টি নতুন করে আলোচনায় উঠে এসেছে।

উপজেলা নির্বাচন নিয়ে ফেনী জেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক ও বর্তমান কেন্দ্রীয় যুবলীগের কার্যনির্বাহী সদস্য এম শাখাওয়াত হোসেন ভূঁইয়া বলেন, ‘নিজাম হাজারী রাজনীতির পদ-পদবিকে ব্যবসা হিসেবে নিয়েছেন। শুধু আর্থিক লাভ ও নিজের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্যে দলীয় নির্দেশনা অমান্য করে একক প্রার্থী ঘোষণা করেছেন তিনি।’

দলীয় সমর্থন দেয়ার কথা অস্বীকার করে গত ৭ই এপ্রিল ফেনী পৌরসভার সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী বলেন, ‘উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জেলা আওয়ামী লীগ থেকে আমরা কোনো নমিনেশন ফর্ম বিক্রি করিনি। শুধু জেলার সম্ভাব্য কতোজন প্রার্থী আছে, সেটা জানতে চেয়েছি। কেন্দ্র যেহেতু কাউকে সমর্থন দেবে না, আমাদেরও সমর্থনের সুযোগ নেই। এ বিষয়ে ফেনী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিমসহ বসে আমরা সিদ্ধান্ত নেবো।’
দুই উপজেলার রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ রেজাউল করিম জানান, তফসিল অনুযায়ী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ হবে ২৩শে এপ্রিল ও ভোটগ্রহণ হবে আগামী ৮ই মে। তবে গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে পরশুরামে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় কেউ নির্বাচিত হয়েছে কিনা তা তার জানা নেই।

 

পাঠকের মতামত

এইরকম গডফাদারের মতের বিরুদ্ধে গেলে তার অবস্থা একরামুলের মতনই হবে!! সবাই জীবনের মায়া ত্যাগ করতে চায় না!!!

কামরুল
২৩ এপ্রিল ২০২৪, মঙ্গলবার, ১০:১০ অপরাহ্ন

গডফাদারের মর্জি মত গণতন্ত্র!

আজাদ আবদুল্যাহ শহিদ
২৩ এপ্রিল ২০২৪, মঙ্গলবার, ৮:৩৫ পূর্বাহ্ন

শেষের পাতা থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

শেষের পাতা সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status