ঢাকা, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, বুধবার, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৭ শাওয়াল ১৪৪৫ হিঃ

অনলাইন

খতনা করাতে গিয়ে সংকটাপন্ন আরেক শিশু

অনলাইন ডেস্ক

(১ মাস আগে) ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১২:৪০ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ৫:২৩ অপরাহ্ন

mzamin

 ঢাকায় খতনা করাতে গিয়ে দুই শিশুর মৃত্যুর রেশ কাটতে না কাটতেই একইভাবে আরেক শিশুর জীবন সংকটে পড়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে কোম্পানীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। পরে অভিভাবকদের ক্ষোভের মধ্যে সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক ও তাঁর সহযোগীরা পালিয়ে গেছেন। বুধবার বিকেলে ওই হাসপাতালের জরুরি বিভাগে এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, শিক্ষানবিশ উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার সৌরভ ভৌমিক তড়িঘড়ি করে আল নাহিয়ান তাজবীব নামে শিশুটির খতনা করার সময় তার গোপন অঙ্গের মাথার অংশ কেটে ফেলেন। এতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয় আট বছর বয়সী শিশুটির। তার আর্তচিৎকারে বাবা আলমগীর হোসেন দ্রুত অপারেশন রুমে ঢুকে দেখতে পান, তাঁর সন্তানের রক্তে কেবিনের বেড ভিজে গেছে। এ সময় সৌরভ ভৌমিক দুই সহযোগীকে নিয়ে পালিয়ে যান।
বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর হাসপাতালের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ সেলিম শিশুটিকে হাসপাতালের কেবিনে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। এ ব্যাপারে ডা. সেলিম বলেন, সৌরভ ভৌমিক শিক্ষানবিশ উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার হিসেবে জরুরি বিভাগে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। তিনি জানান, এ সময় জরুরি বিভাগে কর্মরত ছিলেন উপসহকারী মেডিকেল অফিসার বিজয় কুমার দে।

বিজ্ঞাপন
তাঁর অনুপস্থিতিতে সৌরভ ভৌমিক তড়িঘড়ি করে খতনা করতে গিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটান।
ডা. সেলিম বলেন, পুরো ব্যাপার সিভিল সার্জনকে জানানো হয়েছে। তিনি বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। শিশুটির অবস্থা আশঙ্কাজনক নয়; এক সপ্তাহ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকলে কাটার স্থান শুকিয়ে যাবে।
শিশুটির বাবা আলমগীর হোসেন বলেন, ‘আমার ছেলেকে গরুর মতো তড়িঘড়ি করে খতনা করতে গিয়ে তার এ বিপদ ঘটিয়েছে। আমি তাদের ধরতে গেলে সৌরভ ভৌমিকসহ তিনজনই পালিয়ে যায়। আমার ছেলের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আমি জড়িতদের বিচার চাই।’ 

 

 

পাঠকের মতামত

ওই উপসহকারী কমিউনিটি কর্মকর্তার পুরুষাঙ্গের অগ্রভাগ কেটে দিলেই সঠিক বিচার হবে।

অনিচ্ছুক
২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১:৩৫ পূর্বাহ্ন

Repeated mishap, why?

Khokon
২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১২:১৯ পূর্বাহ্ন

সৌরভ ভৌমিক এটা ইচ্ছা করে করেনি তো!!

Humayun Kabir
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বুধবার, ১১:১৮ অপরাহ্ন

এটিই ধর্মের প্রতি অনিহার অংশ নয় তো? ইসলাম ধর্মে খৎনা করার বিধান চালু আছে এবং সুন্নত। এই সুন্নতকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে এমন সব ঘটনা ঘটছে নাতো? নতুবা একটি মৃত্যুর রেশ না কাটতে আর একটি ঘটবে কেন? এই বিষয়ে সজাগ হওয়া জরুরি।

গর্জন
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বুধবার, ১০:২১ অপরাহ্ন

আব্বাস এর সাথে সহমত পোষণ করছি।

নাই
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বুধবার, ১০:১৩ অপরাহ্ন

জানিনা ভুক্তভুগি বিচার পাবে কি না ! তবুও বলছি মামলা করেন!

Borno bidyan
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বুধবার, ১০:০৯ অপরাহ্ন

ekti particular group er doctor ta ei kaj kortesey. bujhen kara?

Abbas
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বুধবার, ৭:৫৫ অপরাহ্ন

“উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার” এইটা আবার কোন ধরনের ডাক্তার? আগে জানতাম এম,বি,এস, পাশ করার পর চাকরীতে যোগ দিলে। বলতো এসিসটেন্ট সার্জন। এরা কি আসলে এম,বি,বি,এস ডাক্তার নাকি মাধ্যমিক পাশের পর ২/৩ বৎসর ট্রেনিং নেয়া পল্লী চিকিৎসক? আর এরা অপারেশন করেই বা কিভাবে?

Siddq
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বুধবার, ১২:১৯ অপরাহ্ন

অনলাইন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

অনলাইন সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status