ঢাকা, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, সোমবার, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৫ শাবান ১৪৪৫ হিঃ

প্রথম পাতা

প্রথম বিদেশ সফরে ভারতে যান দক্ষিণ এশিয়ার সরকার প্রধানরা, কিন্তু ...

তারিক চয়ন
২৮ নভেম্বর ২০২৩, মঙ্গলবার
mzamin

যেকোনো দেশের প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতাদের বিদেশ বিশেষ করে বড় বা ক্ষমতাধর দেশগুলোতে সফর দেশে-বিদেশে ব্যাপক কৌতূহল তৈরি করে থাকে। আর সেটি যদি হয় সরকার প্রধানদের প্রথম বিদেশ সফর তাহলে তো কথাই নেই, আগ্রহ এবং কৌতূহলের মাত্রা বহুগুণ বেড়ে যায়। একইভাবে দক্ষিণ এশিয়ার কোনো সরকারপ্রধান ক্ষমতাগ্রহণের পর তিনি প্রথম কোন দেশ সফরে গেলেন তা জানতে মুখিয়ে থাকেন সংশ্লিষ্ট দেশ ও অঞ্চলের বিভিন্ন শ্রেণি- পেশার মানুষের পাশাপাশি সারা দুনিয়ার রাজনৈতিক বিশ্লেষক এবং গবেষকরাও।

নিকট অতীতে দক্ষিণ এশিয়ার প্রায় সব দেশের সরকারপ্রধানদেরই দেখা গেছে এ অঞ্চলের বৃহত্তম দেশ ভারতকে নিজেদের প্রথম বিদেশ সফরের গন্তব্য হিসেবে বেছে নিতে। এটাই দীর্ঘদিনের রেওয়াজ বা প্রথা। এক্ষেত্রে বলাবাহুল্য, যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ আফগানিস্তান এবং ভারতের সঙ্গে বৈরী সম্পর্কের দেশ পাকিস্তান অবশ্যই উদাহরণ নয়।

দীর্ঘদিন ধরে চলতে থাকা গণবিক্ষোভ আর অর্থনৈতিক ধসের মধ্যেই গত বছরের জুলাই মাসে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহেকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করেন দেশটির সংসদ সদস্যরা। ঠিক এক বছর পর অর্থাৎ চলতি বছরের জুলাই মাসে ভারত সফর করেন তিনি। বিগত তিন দশকে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালনকালে বিভিন্ন সময় ভারত সফর করলেও প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণের পর এটাই ছিল রনিলের প্রথম ভারত সফর এবং সেই সঙ্গে প্রথম বিদেশ সফরও।

২০২২ সালের ডিসেম্বর মাসে হিমালয়কন্যা খ্যাত নেপালের প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে বসেছিলেন পুষ্পা কমল দাহাল। গত ৩১শে মে তিনি দীর্ঘ চার দিনের সফরে ভারতে যান। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে এটাই ছিল তার প্রথম ভারত সফর। সেই সঙ্গে প্রথম বিদেশ সফরও।

বিজ্ঞাপন
দাহালের আগে নেপালের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন শের বাহাদুর দেউবা। মোট পাঁচ দফায় দেশটির শাসন বিভাগের শীর্ষ পদ- প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালনকারী দেউবা সর্বশেষ ২০২১ সালের জুলাই মাসে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেয়ার পর ঐতিহ্যের সঙ্গে তাল মিলিয়ে নিজের প্রথম দ্বিপক্ষীয় বিদেশ সফরের গন্তব্য হিসেবে ভারতকেই (২০২২ সালের ১লা-৩রা এপ্রিল) বেছে নিয়েছিলেন।

দক্ষিণ এশিয়ার ছোট্ট দেশ ভুটান। প্রায় সোয়া শত বছর ধরে দেশটি রাজত্ব করা বর্তমান রাজবংশের পঞ্চম রাজা জিগমে খেসার ওয়াংচুক। ২০০৬ সালে বাবা জিগমে সিংহে ওয়াংচুক সরে দাঁড়ালে ভুটানের রাজার দায়িত্ব পান তিনি। ২০০৮ সালের নভেম্বরে রাজা হিসেবে তার অভিষেক হয়। পরের বছরের (২০০৯) ডিসেম্বর (২১ থেকে ২৬) মাসে তিনি নিজের প্রথম রাষ্ট্রীয় বিদেশ সফরে ভারতে যান। এর দুই বছর পর (২০১১ সালের ১৩ই অক্টোবর) এক সাধারণ ঘরের মেয়ে  জেটসান পেমার সঙ্গে জিগমে খেসার ওয়াংচুকের বিয়ে হয়। বিয়ের মাত্র ১০ দিন পর (২৩শে অক্টোবর) রাজা-রানী ভারত সফর করেন। নয় দিনের দীর্ঘ ওই সফরই ছিল রাজা-রানীর একত্রে প্রথম বিদেশ সফর।

২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে ভারত মহাসাগরের দ্বীপরাষ্ট্র মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অপ্রত্যাশিত জয় পেয়েছিলেন বিরোধী দলের প্রার্থী ইব্রাহিম মোহামেদ সলিহ। ভারত অভিমুখী পররাষ্ট্রনীতির জন্য পরিচিত সলিহ ওই বছরের ১৭ই নভেম্বর প্রেসিডেন্টের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। ঠিক পরের মাসেই (১৭ই ডিসেম্বর) তিনি নিজের প্রথম বিদেশ সফরের অংশ হিসেবে ভারত গমন করেন। সলিহকে হারিয়ে চলতি বছর মালদ্বীপের নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন বিরোধীদলীয় প্রার্থী মোহামেদ মুইজ্জু, যিনি ‘চীনপন্থি’ হিসেবে পরিচিত। ১৭ই নভেম্বর তিনি প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেয়ার আগেই বিবিসিকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে জানান যে, নির্বাচনে জয়ী হওয়ার কয়েকদিন পরেই তিনি ভারতীয় রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে দেখা করেছেন এবং “তাকে অত্যন্ত স্পষ্টভাবেই জানিয়ে দিয়েছেন যে, ভারতীয় প্রতিটি সৈন্যের এখান (মালদ্বীপ) থেকে চলে যাওয়া উচিত।”

বিবিসি’র খবরে তখন বলা হয়েছিল, ‘মালদ্বীপ দীর্ঘদিন ধরেই ভারতীয় বলয়ে রয়েছে। কাজেই মিস্টার মুইজ্জুর এই দাবির ফলে দিল্লি ও মালের মধ্যে কূটনৈতিক উত্তেজনা তৈরি হতে পারে বলে। গত সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিত মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে মিস্টার মুইজ্জুর বিজয়ী হওয়াকে ভারতের জন্য একটি ধাক্কা হিসেবে দেখা হচ্ছিলো। কারণ ২০১৮ সালে দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই মালদ্বীপের সদ্য বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম মোহামেদ সোলিহ, যিনি নির্বাচনে মিস্টার মুইজ্জুর প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন, ভারতের সঙ্গে দেশটির ঘনিষ্ঠতা বাড়িয়েছিলেন।’

এসব কিছু মিলিয়ে, মোহামেদ মুইজ্জু প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর তিনি প্রথম রাষ্ট্রীয় সফরে কোন্‌ দেশ ভ্রমণ করবেন তা নিয়ে জনমনে ছিল ব্যাপক কৌতূহল। কিন্তু, দীর্ঘদিনের রেওয়াজ বা প্রথা হিসেবে প্রথম রাষ্ট্রীয় সফরে ভারত না গিয়ে তিনি বেছে নিয়েছেন তুরস্ককে। ট্রিবিউন ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়েছে, চলতি মাসের শুরুতে তিনি সংযুক্ত আরব আমিরাত সফর করলেও গত রোববার তুরস্ক সফরের মাধ্যমেই তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে বিদেশ সফর শুরু করেছেন।

প্রথম পাতা থেকে আরও পড়ুন

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2023
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status