ঢাকা, ২৪ জুন ২০২৪, সোমবার, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৭ জিলহজ্জ ১৪৪৫ হিঃ

প্রথম পাতা

পাইলটের মৃত্যু দায়ীদের খুঁজতে মায়ের রিট

স্টাফ রিপোর্টার
১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, মঙ্গলবারmzamin

গালফ এয়ারের পাইলট ক্যাপ্টেন ইউসুফ হাসান আল হিন্দির মৃত্যুর ঘটনা তদন্ত ও বিমান সংস্থাটির অবহেলার দায়ে জড়িতদের বের করে ব্যবস্থা নিতে সিভিল এভিয়েশন অথরিটি অব বাংলাদেশের (সিএএবি) প্রতি নির্দেশনা চেয়ে রিট আবেদন করা হয়েছে। 

সোমবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় গালফ এয়ারের ক্যাপ্টেন ইউসুফ হাসান আল হিন্দির মা সামিহার পক্ষে তাদের আইনজীবী শাকিব মাহবুব এ রিট করেন। রিটে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান, গালফ এয়ারের কান্ট্রি ম্যানেজার ইসা শাহ ও কো-পাইলট খালিল আবদুল রাজাককে বিবাদী করা হয়েছে।

সামিহার আইনজীবী ব্যারিস্টার সাকিব মাহবুব মানবজমিনকে বলেন, রিট আবেদনটি করা হয়েছে তার মূল বিষয় বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানের গালফ এয়ারকে তদন্তের বিষয়ে অবহেলা এবং অস্বীকৃতির কারণ চ্যালেঞ্জ করে করা হয়েছে। বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ আইন অনুযায়ী বাংলাদেশ থেকে যেসব এয়ারলাইন্স ফ্লাইট পরিচালনা করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার ক্ষমতা রাখে। কিন্তু হাইকোর্টে পূর্বে পাইলটের বোনের রিট পিটিশনে হাইকোর্টের আদেশ থাকা সত্ত্বেও বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ গালফ এয়ারের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের তদন্ত করতে অস্বীকৃতি জানায়। এর যুক্তি হিসেবে তারা বলে, কোনো বিদেশি এয়ারলাইন্সের বিরুদ্ধে তাদের তদন্ত করার কোনো এখতিয়ার নেই। কেউ যদি বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ আইন, ২০১৭ দেখেন, সেখান থেকে স্পষ্টভাবে প্রতীয়মান হবে যে, বাংলাদেশে যদি কোনো ঘটনা ঘটে সেক্ষেত্রে সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়ার এখতিয়ার তাদের রয়েছে। তার মা গালফ এয়ারের কর্মকর্তা ও ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালকে এ মৃত্যুর জন্য দায়ী করেছেন। গালফ এয়ারের ক্যাপ্টেন ইউসুফ হাসান আল হিন্দি ২০২২ সালের ১৪ই ডিসেম্বর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এসময় তার তিন বার হার্ট অ্যাটাক হয়। অন্যদিকে আল হিন্দিকে যখন ফ্লাইটের দায়িত্ব দেয়া হয় গালফ এয়ার ফেডারেল এভিয়েশন অথরিটির দেয়া গাইডলাইন অনুসরণ করেনি।

বিজ্ঞাপন
মৃত পাইলটের হার্টে ৯৯ শতাংশ ব্লকেজ ছিল।

মৃত পাইলটের মা সামিহা বলেন, ‘বাহরাইন ও গালফ এয়ার বাংলাদেশের ব্যবস্থার অপব্যবহার করে এবং ন্যায়বিচারকে বাধাগ্রস্ত করে আমার ছেলের মৃত্যুতে তাদের সম্পৃক্ততা মুছে ফেলার আপ্রাণ চেষ্টা করছে। আমার ছেলে গালফ এয়ারে ২৫ বছর কাজ করেছে। কেন গালফ এয়ার ইউনাইটেড হাসপাতালের ডাক্তারদের বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে পারলো না? পাইলটের মা সামিহা আরও বলেন, গালফ এয়ার এবং মুসলিম দেশ বাহরাইন আমার ছেলের কাছ থেকে আমার ইসলামিক উত্তরাধিকারকে জিম্মি করে তাদের ও চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে আমাদের আইনগত ব্যবস্থা নেয়া বিরত রাখতে বলপ্রয়োগ করছে।

প্রথম পাতা থেকে আরও পড়ুন

   

প্রথম পাতা সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status