ঢাকা, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, শনিবার, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ৩ শাওয়াল ১৪৪৫ হিঃ

খেলা

বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ না করা ইংল্যান্ডের জন্য লজ্জার

ইশতিয়াক পারভেজ
১৩ মার্চ ২০২৩, সোমবার
mzamin

বাংলাদেশ ক্রিকেটের উন্নতিতে বড় অন্তরায় কি? টেলিগ্রাফ ইংল্যান্ডের সাংবাদিক উইল ম্যাকফারসন জানালেন তার নেপথ্যের কারণ। অকপটেই বললেন ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার মতো বড় ক্রিকেট দেশগুলো বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানায় না। এমনকি খুব বেশি সিরিজ খেলতেও আসে না। এটিই হচ্ছে এদেশের ক্রিকেটের উন্নতিতে বড় অন্তরায়। বিশেষত টাইগাররা টেস্ট ক্রিকেটে পিছিয়ে আছে তার  জন্য এই কারণটি যথেষ্ট। শুধু তাই নয় এই ইংলিশ এই সংবাদকর্মী মনে করেন বাংলাদেশকে ২০১০ এর পর থেকে আমন্ত্রণ না জানানো ইংল্যান্ডের জন্য দারুণ লজ্জার। এ দিয়ে দ্বিতীয়বার বাংলাদেশ সফরে এসেছেন ম্যাকফারসন। এদেশের ক্রিকেটকে তিনি দারুণভাবে ফলো করেন। টাইগারদের ক্রিকেট নিয়ে নিজের অভিজ্ঞতা দৈনিক মানবজমিন-এর সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে তুলে ধরেছেন। তার কথোপকথনের মূল অংশ তুলে ধরা হলো-

বাংলাদেশ ক্রিকেট নিয়ে আপনার মূল্যায়ন কি?
ম্যাকফারসন: এটি বাংলাদেশে আমার দ্বিতীয় ভ্রমণ।

বিজ্ঞাপন
এর আগে আমি ২০১৬ সালে এ দেশে এসেছিলাম। ঢাকা ও চট্টগ্রামে দুইবারই আমার দারুণ সময় কেটেছে। দুটি শহরই দারুণ সুন্দর। এদেশের মানুষের অতিথিয়তা আমাকে দারুণ মুগ্ধ করেছে। সবচেয়ে বড় বিষয় হলো বাংলাদেশ-ইংল্যান্ডের ক্রিকেটটা এখানে দারুণ প্রতিযোগিতামূলক হয়। যা আমাকে ভীষণভাবে মুগ্ধ করে। 
 

বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড ক্রিকেট লড়াইয়ে আপনার প্রত্যাশা কি?
ম্যাকফারসন: আামি সব সময় প্রত্যাশা করি বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড ক্রিকেট লড়াই দারুণ জমবে। কারণ নিজ কন্ডিশনে টাইগাররা শক্ত প্রতিপক্ষ। এখানে দারুণ কিছু স্পিনার আছেন। যেমন সাকিব আল হাসান, তাইজুল ইসলাম, মেহেদী হাসান মিরাজ। ঐতিহাসিকভাবেই সত্য যে, ইংল্যান্ড স্পিনে দুর্বল। আমি মনে করি ইংল্যান্ডের জন্য এমন প্রতিপক্ষের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জয় ছিল অনেক বড় অর্জন। 

বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ড ক্রিকেটর মধ্যে বড় পার্থক্য কি?
ম্যাকফারসন: প্রথমেই সবার জানা যে দুই দেশের কন্ডিশনটাই অনেক বড় পার্থক্য। এখানে স্পিনাররা রাজত্ব করে আর ইংল্যান্ডে পেসাররা। কিন্তু সম্প্রতি বাংলাদেশেও দারুণ সব পেসার আছে। তাসকিন, মোস্তাফিজ, হাসানরা অনেক ভালো বোলার। যদি ইংল্যান্ডের সঙ্গে আরেকটি বড় পার্থক্য বলি সেটি হলো তাদের অনেক টেলেন্ট ক্রিকেটার আছে। যারা কিনা টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে দারুণ করছে। স্পিনে যেমন আদিল রশিদের নাম বলতে হয়। এ ছাড়াও বেন স্টোকসেরও নাম বলতে হয়। যাদের কারণে ওয়ানডে ও টেস্ট ক্রিকেটে তারা দারুণ প্রতিযোগিতা তৈরি করতে পারে।

শেষ ৬/৭ বছরে বাংলাদেশ ক্রিকেটে কি পরিবর্তন দেখছেন?
ম্যাকফারসন: আমি অনেকদিন থেকেই বাংলাদেশ ক্রিকেটকে ফলো করি।  বাংলাদেশ নিজেদের মাটিতে ভয়ঙ্কর। এখানে বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার ধারাবাবিকভাবে মাঠে নিজেদের নিয়ন্ত্রণ ধরে রেখেছে। আমি চাই ২০২৭ এর নতুন সূচিতে ইংল্যান্ডে আবারো বাংলাদেশ খেলতে আসুক।  

বাংলাদেশ ক্রিকেটে এখনো ঘাটতি কোথায় দেখেন?
ম্যাকফারসন: বাংলাদেশে অনেক প্রতিভাবন ক্রিকেটার আছে। কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তাদের খেলার সুযোগ খুবই কম। সাকিব. মোস্তাফিজ ছাড়া আর তেমন কেউ বিদেশি লীগে খেলার সুযোগ পায় না। আমি মনে করি তাদের ক্রিকেট স্কিলের ইন্নতি এটা বড় বাধা। 

ওয়ানডে বাংলাদেশ মাঝারি মানের, টি-টোয়েন্টি এখনো উন্নতির চেষ্টা করছে। কিন্তু টেস্ট ক্রিকেটে দারুণভাবে পিছিয়ে, এর পিছনের কারণ কি বলে মনে করেন?
ম্যাকফারসন: টেস্ট ক্রিকেটে অনেক বেশি গভীরতা। বড় দলগুলোর বিপক্ষে যত খেলবে তত এর উন্নতি হবে। ইংল্যান্ডে বাংলাদেশ খেলতে যেতে পারে না অনেক বছর। এটা ইংল্যান্ডের জন্যও বড় লজ্জার যে তারা বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানায় না ১৩ বছর ধরে। দেখেন নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশ খেলার সুযোগ পায়। সেখানে টাইগাররা কিন্তু টেস্ট জিতে নিয়েছে। অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড ও ভারতের মতো ৩ বা ৫ ম্যাচের সিরিজ খেলতে সুযোগ পায় না। আমি বলবো এটি বাংলাদেশ ক্রিকেটের উন্নতিতে অনেক বড় আন্তরায়। তারা যত ভিন্ন ভিন্ন কন্ডিশনে খেলবে তত উন্নতি করবে।

কেন বাংলাদেশ ইংল্যান্ডে খেলার সুযোগ পায় না! আপনার কি মনে হয় ইসিসিব’র এটি নিয়ে ভাবা উচিত?
ম্যাকফারসন: সঠিক কারণ বলা মুশকিল। তবে আমার মনে হয় অমন্ত্রণ না জানানোর কারণ একটাই হতে পারে আর্থিক। ইংল্যান্ডের আন্তর্জাতিকভাবে ভালো নাগরিকের পরিচয় দিতে হবে। তাদের বাংলাদেশসহ অন্যান্য দলগুলোকে খেলার সুযোগ করে দেয়া উচিত। শুধু টাকার কথা ভেবে অস্ট্রেলিয়া-ভারতের বিপক্ষে খেললে হবে না। ইংল্যান্ডের উচিত বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানানোর মাধ্যমে তাদের ক্রিকেটের উন্নতিতে ভূমিকা রাখা। 

খেলা থেকে আরও পড়ুন

   

খেলা সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status