ঢাকা, ৪ অক্টোবর ২০২২, মঙ্গলবার, ১৯ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিঃ

দেশ বিদেশ

বাজারদর টিসিবি’র হিসাব

নাজমুল হুদা
১৩ আগস্ট ২০২২, শনিবার

নিত্যপণ্যের দামে লাগাম টানা যাচ্ছে না। প্রতিনিয়ত বাড়ছে সবকিছুর দাম। বাজারে চাল, ডাল, তেল, আটা, মাছ-মাংসসহ সব ধরনের পণ্যের দাম এখন ঊর্ধ্বমুখী। সম্প্রতি জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে নতুন করে এসব পণ্যের দাম আরও বৃদ্ধি পাচ্ছে। সবচেয়ে বেশি বেড়েছে শুকনা মরিচ আর আটার দাম। গত এক বছরের ব্যবধানে শুকনা মরিচের দাম ৭৮ শতাংশ আর আটার দাম বৃদ্ধি পেয়েছে ৫৮ শতাংশ। এ ছাড়া সয়াবিন তেলের মূল্য ৩৭ শতাংশ, ডালের ৫১ শতাংশ পর্যন্ত মূল্যবৃদ্ধি হয়েছে। গতকাল ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) বাজার দর পর্যালোচনা করে এসব চিত্র দেখা গেছে।  টিসিবি’র বাজার দর পর্যালোচনা করে দেখা যায়, বাজারে প্রতি কেজি সরু চাল বিক্রি হচ্ছে ৬৫-৭০ টাকায় যা এক বছর আগে ছিল ৬০-৬৮ টাকা, মাঝারি আকারের চাল ৫২-৫৮ টাকা যা এক বছর আগে ছিল ৫০-৫৮ টাকা আর মোটা চাল বিক্রি হচ্ছে ৫০-৫৪ টাকায় যা এক বছর আগে ছিল ৪৭-৫২ টাকা। গত এক বছরের ব্যবধানে সরু চালে ৫.৪৭ শতাংশ, মাঝারি আকারের চালে ১.৮৫ শতাংশ ও মোটা চালে দাম বেড়েছে ৫.০৫ শতাংশ।

বিজ্ঞাপন
 এক বছরের ব্যবধানে লাগামহীন ভাবে দাম বেড়েছে আটাতে। 

খোলা সাদা আটা ৫৮.৩৩ শতাংশ বেড়ে প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪৫-৫০ টাকায়, প্যাকেটজাত আটা ৪৪.১২ শতাংশ বেড়ে ৪৮-৫০ টাকা, খোলা ময়দা ৫৬ শতাংশ বেড়ে ৫৫-৬২ টাকা আর প্যাকেটজাত ময়দা ৫৫.১৭ শতাংশ বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৬৫-৭০ টাকায়। অথচ এক বছর আগেও খোলা সাদা আটা ২৮-৩২ টাকা, প্যাকেটজাত আটা ৩৩-৩৫ টাকা, খোলা ময়দা ৩৫-৪০ টাকা আর প্যাকেটজাত ময়দা বিক্রি হয়েছিল ৪২-৪৫ টাকায়।  এই সময়ের মধ্যে সয়াবিন তেলের দামও বেড়েছে। টিসিবি’র তথ্য অনুযায়ী, বাজারে এখন খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১৬৫-১৭২ টাকা লিটার যা এক বছর আগে বিক্রি হয়েছিল ১২০-১২৫ টাকায়। অর্থাৎ এক বছরের ব্যবধানে ৩৭.৫৫ শতাংশ দাম বেড়েছে। বোতলজাত সয়াবিন তেল ২৬.৯ শতাংশ বেড়ে ১৮০-১৮৮ টাকা লিটার বিক্রি হচ্ছে যা এক বছর আগে ছিল ১৪০-১৫০ টাকা আর আর পাম অয়েল ১৪.৬৮ শতাংশ বেড়ে ১২০-১৩০ টাকা লিটার বিক্রি হচ্ছে যা এক বছর আগে ছিল ১০৬-১১২ টাকা।  খুচরা বাজারে এক বছরের ব্যবধানে সব ধরনের ডালের দাম বেড়েছে। দেশি মসুর ডাল ২৬.১৯ শতাংশ বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ১৩০-১৩৫ টাকা যা এক বছর আগে বিক্রি হয়েছিল ১০০-১১০ টাকা। বিদেশি ডাল (বড় দানা) ৪০ শতাংশ বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ১০০-১১০ টাকা যা এক বছর আগে ছিল ৭০-৮০ টাকা।

 এ ছাড়া অ্যাংকর ডাল ৫১.১৬ শতাংশ বেড়ে ৬০-৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এদিকে এক বছরের ব্যবধানে শুকনা মরিচের দাম বেড়েছে লাগামছাড়া। গত বছর আমদানিকৃত শুকনা মরিচ মানভেদে ১৮০-২৮০ টাকা কেজি বিক্রি হয়েছিল যা এ বছর ৭৮.২৬ শতাংশ বেড়ে ৩৮০ থেকে ৪৪০ টাকায় ঠেকেছে। আর দেশি শুকনা মরিচ ৪৭.৭৩ শতাংশ বেড়ে ৩০০-৩৫০ টাকায় ঠেকেছে যা গত বছর বিক্রি হয়েছিল ১৮০-২৬০ টাকা কেজি। এ ছাড়া এক বছরের ব্যবধানে দেশি রসুনের দাম বেড়েছে ৭.৬৯ শতাংশ, আমদানিকৃত রসুন ৪.৩৫ শতাংশ, দেশি আদা ৮.৩৩ শতাংশ, আমদানিকৃত হলুদ ১৭.৬৫ শতাংশ, জিরা ১৮.০৬ শতাংশ, দারুচিনি ১৫ শতাংশ, লবঙ্গ ১২.৫ শতাংশ, ধনে ২০.৮৩ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। খুচরা বাজারে সবকিছুর সঙ্গে পাল্লা দিয়ে মাছ-মাংসের দামও বেড়েছে। বাজারে এখন প্রতি কেজি গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৬৮০-৭০০ টাকা কেজি যা এক বছর আগে বিক্রি হয়েছিল ৫৮০-৬০০ টাকা। এ ছাড়া ব্রয়লার বিক্রি হচ্ছে ১৮০-১৮৫ টাকা যা এক বছর আগে বিক্রি হয়েছিল ১২০-১৪০ টাকা আর দেশি মুরগি বিক্রি হচ্ছে ৫০০-৫৫০ টাকা যা এক বছর আগে বিক্রি হয়েছিল ৪৫০-৫০০ টাকা। বাজারে প্রতি কেজি ইলিশ মাছ আকার ভেদে বিক্রি হচ্ছে ৬০০-১৪০০ টাকা যা এক বছর আগে বিক্রি হয়েছিল ৫০০-১৩০০ টাকা আর রুই মাছ ২৫০-৩৪০ টাকা বিক্রি হচ্ছে।

পাঠকের মতামত

Onek Manus 9,000Tk.ay Job karay but Desh-e adunik vabe Krishi kaj kartah chaiy na?

no need name
১২ আগস্ট ২০২২, শুক্রবার, ৮:৪৫ অপরাহ্ন

দেশ বিদেশ থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

দেশ বিদেশ থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং স্কাইব্রীজ প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজিং লিমিটেড, ৭/এ/১ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status