ঢাকা, ২২ মে ২০২৪, বুধবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৩ জিলক্বদ ১৪৪৫ হিঃ

শরীর ও মন

লিভারে অতিরিক্ত চর্বি থাকলে ঈদের খাবারের নিয়ন্ত্রণ

অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নিল
৯ এপ্রিল ২০২৪, মঙ্গলবার
mzamin

আমাদের অনেকেরই একটি সমস্যা হচ্ছে লিভারে অতিরিক্ত চর্বি জমা হওয়া। লিভারে অতিরিক্ত চর্বি তাড়াতে সারা বছরই ডায়েট করেন অনেকে। অনিয়মিত খাদ্যাভ্যাসের কারণে যেসব অসুখ সহজেই শরীরে বাসা বাঁধে তার অন্যতম ফ্যাটি লিভার।আমাদের প্রত্যেকের লিভারেই একটা নির্দিষ্ট পরিমাণে চর্বি থাকে। সেটাই স্বাভাবিক। কিন্তু মাত্রাতিরিক্ত চর্বি জমে গেলে তা সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

ফ্যাটি লিভার রোগীদের অবশ্যই খাবার দাবারে নিয়ন্ত্রণ থাকতে হবে। আর ঈদ উপলক্ষে বাহারী খাবারের লোভ সামলে  একটু হিসেব করে খাওয়া উচিত। বিশেষ করে  অনেকে মাংস, পোলাও, বিরিয়ানি সঙ্গে কোল্ড ড্রিংস  ইত্যাদি খেতেই থাকেন। এতে করে লিভারের সমস্যা বাড়তেই থাকে। এই নিবন্ধে আলোচনা করবো ফ্যাটি লিভার রোগীদের কি খাওয়া উচিত এবং কি খাবার বর্জন করা উচিত।

আসুন জেনে নেই লিভারে অতিরিক্ত চর্বি থাকলে বা ওজন কমাতে চাইলে যেসব খাবার খাওয়া যাবে না। 
১. যাদের লিভারের অতিরিক্ত চর্বি জমা হয়েছে তারা তেলেভাজা কোনো খাবার খাবেন না। এ ছাড়া ফাস্টফুড এড়িয়ে চলুন।
২. লিভারের অতিরিক্ত চর্বি থাকলে যদি দুধ খেতে চান, তবে ফ্যাট ফ্রি দুধ খেতে পারেন।
৩. বিরিয়ানি, তেহারি, ফ্রাইড চিকেন খাবেন না।
৪. মাছ বা মুরগির মাংস খেতে পারেন, তবে গরু, খাসির মাংস, ভেড়ার মাংস খাওয়া যাবে না।
৫. ফল বা ফলের রস, সবজি, ভাত, ওট্‌স, চিড়া, খই, ছোলা, স্যুপ, সবজি খিচুড়ি (কম তেলে রান্না) খেতে পারেন।
৬. চর্বিযুক্ত সামুদ্রিক মাছে ওজন বাড়ে।

বিজ্ঞাপন
তাই ওজন কমাতে চাইলে চর্বিযুক্ত মাছ না খাওয়াই ভালো।

যে তিন খাবার খেতে পারেন অনায়াসে
শাক-সবজি: শরীরের যত্ন নিতে সবুজ শাকসব্জির কোনো বিকল্প হয় না। যেকোনো অসুস্থতায় নিশ্চিন্তে খাওয়া যায় নানা রকম সবজি। কিছু রোগের ক্ষেত্রে শাকসবজিই হয়ে ওঠে অন্যতম ওষুধ। তেমনই একটি ফ্যাটি লিভার। ফাইবার, মিনারেলস্‌, অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টের মতো উপকারী পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ খাবার রোজের পাতে রাখুন। ভাত কম খান, ক্ষতি নেই। কিন্তু সবব্জি বেশি করে খাওয়ার অভ্যাস করুন।

মাছ: সুস্থ থাকতে  প্রতিদিনের পাতে এক টুকরো মাছ খুব জরুরি। ফ্যাটি লিভারের সমস্যা থাকলেও মাছ খেতেই পারেন। মাছে রয়েছে ওমেগা-৩, যা শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে। ছোট মাছ খেতে পারেন, উপকার পাবেন। তবে ফ্যাটি লিভারের রোগীদের তেল-চর্বির পরিমাণ বেশি, এমন মাছ না খাওয়াই শ্রেয়।

মুরগির মাংস: এই মাংসে রয়েছে ভরপুর পরিমাণে প্রোটিন। শরীরে প্রোটিনের ঘাটতি পূরণ করতে খাদ্য তালিকা থেকে মুরগির মাংস বাদ দেয়া ঠিক হবে না। তবে বেশি তেল-ঝাল-মসলা দিয়ে রান্না করা ঠিক হবে না। চিকেন স্টু খেতে পারেন। একেবারে অল্প তেল দিয়ে পাতলা ঝোলও তৈরি করতে পারেন। তাই বলে রোজ মাংস খাওয়া ঠিক হবে না। সপ্তাহে দু-তিন দিন খেতে পারেন।

তবে, ফ্যাটি লিভারে ভুগে থাকলে কী কী খাবেন, সে বিষয়ে চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নেয়া অত্যন্ত জরুরি। 

লেখক: অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান, ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি ডিভিশন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়। 
চেম্বার: ল্যাব এইড স্পেশালাইজড হাসপাতাল, মিরপুর রোড, ধানমণ্ডি, ঢাকা। হটলাইন-১০৬০৬

 

শরীর ও মন থেকে আরও পড়ুন

   

শরীর ও মন সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status