ঢাকা, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, মঙ্গলবার, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৩ শাওয়াল ১৪৪৫ হিঃ

প্রথম পাতা

ঘোষণা দিয়ে তিন ব্যাংকে লুট

নুরুল কবির, বান্দরবান থেকে
৪ এপ্রিল ২০২৪, বৃহস্পতিবার
mzamin

বান্দরবানে অনেকটা পূর্ব ঘোষণা দিয়েই ফিল্মি স্টাইলে সিরিজ ব্যাংক ডাকাতি, লুটপাট ও তাণ্ডব চালিয়েছে নতুন সশস্ত্র পাহাড়ি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্ট  (কেএনএফ)। ২৪ ঘণ্টায় রুমা ও থানচি উপজেলায় সোনালী ব্যাংকের দুটি ও কৃষি ব্যাংকের একটি শাখায় হামলা ও লুটপাট চালায় পাহাড়ি সন্ত্রাসীরা। সোনালী ব্যাংকের রুমা শাখার ভল্টের চাবি না দেয়ায় শাখা ব্যবস্থাপক নিজাম উদ্দিনকে অপহরণ করে নিয়ে গেছে তারা। ব্যাংকের তিনটি শাখা থেকে নিরাপত্তা রক্ষীদের ১৪টি অস্ত্র ও ১৭ লক্ষাধিক টাকা লুট করেছে। মারধর করেছে পাশের মসজিদের মসুল্লিদেরও। তাণ্ডব চালিয়েছে আশপাশের দোকানেও। লুটপাটের পর ফাঁকা গুলি ছুড়ে চাঁদের গাড়িতে করে পালিয়ে যায় তারা। এ ঘটনার পর নিরাপত্তাজনিত কারণে বান্দরবানের সোনালী ব্যাংকের সব শাখার লেনদেন বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। সদর ছাড়া আজ বৃহস্পতিবারও বান্দরবানের  সোনালী ব্যাংকের সব শাখার লেনদেন বন্ধ থাকবে। এদিকে রুমা শাখা সোনালী ব্যাংকের ভল্টে থাকা ১ কোটি ৫৯ লাখ ৪৬ হাজার টাকা অক্ষত অবস্থায় পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন সিআইডির কর্মকর্তারা।

বিজ্ঞাপন
চাবি না দেয়ার কারণে ভল্টের তালা খুলতে না পারায় এ টাকা নিতে পারেনি সন্ত্রাসীরা। যদিও প্রত্যক্ষদর্শীরা দাবি করেছিলেন সন্ত্রাসীরা ভল্ট খুলে টাকা লুট করেছে। 

এদিকে বান্দরবানের রুমায় সোনালী ব্যাংকে গত মঙ্গলবার টাকা লুটের ঘটনায় পরিদর্শন করেছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক আইজিপি আবদুল্লাহ আল মামুন। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, থানচিতে দুটি ব্যাংকে হামলার ঘটনা তদন্ত করা হচ্ছে। জড়িতদের কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। পুলিশের সক্ষমতা আগের চেয়ে অনেক বেড়েছে। আমরা সব সমন্বয় করে কাজ করছি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঙ্গলবার রাত ৮টা ২০ মিনিটের দিকে কেএনএফের ৭০-৮০ জন সশস্ত্র সদস্য রুমা উপজেলা পরিষদ এলাকা ঘেরাও করে। তারা সোনালী ব্যাংকে গিয়ে পাহারারত পুলিশ ও আনসার সদস্যদের কাছ থেকে অস্ত্র ছিনিয়ে নেয় এবং মারধর করতে থাকে। ব্যাংকে ঢুকে ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়। একপর্যায়ে ব্যাংকের ভল্ট খোলার জন্য পাশের মসজিদে নামাজরত শাখা ব্যবস্থাপক নিজাম উদ্দিনকে ধরে নিয়ে আসে। কিন্তু ভল্টের চাবি না দেয়ায় নিজাম উদ্দিনকে অপহরণ করে নিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা। 

ব্যাংক লুটের সময় পুলিশ ও আনসার সদস্যদের অস্ত্র নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে জেলা পুলিশ সুপার সৈকত শাহীন বলেন, মঙ্গলবার ৮টা ২০ মিনিটের দিকে ব্যাংকে হামলা হয়েছে। এই হামলার সময় পুলিশের যে গার্ডরা রয়েছে তাদের ১০টা অস্ত্র ছিল। আটটা চাইনিজ রাইফেল, দুইটা এসএমজি। তাদের ৩৮০ রাউন্ড গুলি লুট হয়েছে। এ ছাড়া আনসারের চারটি শর্টগান ও ৩৪ রাউন্ড গুলিও লুট করে নিয়ে গেছে। সরকারি কর্মকর্তাণ্ডকর্মচারীসহ সাধারণ জনগণের নিরাপত্তায় পুলিশ সদস্য সংখ্যা বাড়িয়েছে। সব ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, উপজেলা পরিষদ মসজিদে নামাজে ছিলেন ব্যাংক ম্যানেজার। সেখানে উপজেলা প্রশাসনের অনেক কর্মকর্তাও ছিলেন। ফরজ নামাজ পড়ার পর সন্ত্রাসীরা মসজিদে প্রবেশ করে মুসল্লিদের মারধর শুরু করে। তারা টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নেয়। একপর্যায়ে তারা ব্যাংক ম্যানেজারকে সেখান থেকে ধরে নিয়ে যায়। 

এদিকে রুমার পর বুধবার দুপুরে থানচি উপজেলা সোনালী ও বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের শাখায় ডাকাতি হয়েছে। দুপুর ১২টার দিকে থানচি সদরের  শাহজাহানপুরের দিক থেকে তিনটি চাঁদের গাড়িতে করে সন্ত্রাসীরা গুলি করতে করতে বাজার এলাকায় প্রবেশ করে। এরপর থানচি উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন সোনালী ব্যাংক ও বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের  ভেতরে ঢুকে নগদ টাকা যা পেয়েছে তা নিয়ে চলে যায়। থানচি থানা থেকে ব্যাংক দুটির দূরত্ব ২০০ গজ। উপজেলা পরিষদের দূরত্ব ৩০০ গজ। থানার কাছে দিনদুপুরে ডাকাতির ঘটনায় স্থানীয় লোকজন হতভম্ব। সোনালী ব্যাংক থানচি শাখার ব্যবস্থাপক ফয়সাল হুদা বলেন, অস্ত্রধারী পাঁচ থেকে সাতজন লোক ব্যাংকে ঢুকে। ক্যাশিয়ার সামনে পাওয়া সব টাকা তারা নিয়ে নেয়। আনুমানিক ১৫ লাখ টাকা হতে পারে। ব্যাংকের বাইরে অস্ত্রধারী ১০ থেকে ১২ জন ছিল। পরে তারা ফাঁকা গুলি ছুড়ে চলে যায়।

সোনালী ব্যাংকের পাশে কৃষি ব্যাংক থানচি শাখার ব্যবস্থাপক হ্লা শৈ থোয়াই বলেন, ব্যাংকে চার থেকে পাঁচজন অস্ত্রধারী ঢুকে ক্যাশিয়ারের সামনে থাকা আড়াই লাখ টাকা নিয়ে যায়। পরে তারা ফাঁকা গুলি ছুড়ে চলে যায়। 

প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় মহম্মদ আরমান বলেন, তিনি সোনালী ব্যাংকে টাকা জমা দিতে যান। বের হওয়ার সময় দেখেন অস্ত্রধারী লোকজন ব্যাংকে ঢুকছে। তারা ক্যাশিয়ারের সামনে থেকে টাকা লুট করে নিয়ে যায়। এদিকে রুমা সোনালী ব্যাংকে সন্ত্রাসী হামলা ও লুটপাটের ঘটনার তদন্তে কক্সবাজার  থেকে পিবিআইয়ের পাঁচ সদস্যের একটি টিম রুমা পরিদর্শন করেছে। বুধবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন বান্দরবানের জেলা প্রশাসক শাহ মোজাহিদ উদ্দিন, পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি মাহফুজুর রহমান, বান্দরবানের পুলিশ সুপার মো. সৈকত শাহীন। তারা  সোনালী ব্যাংকটির ভল্ট  দেখেন। 

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক শাহ মোজাহিদ উদ্দিন পরিদর্শন শেষে বলেন, পিবিআই ও ব্যাংকের তদন্ত টিমের কাজ  শেষে বলা যাবে ভল্ট থেকে টাকা খোয়া গেছে কিনা। এদিকে অপহৃত ব্যাংক ম্যানেজার নিজাম উদ্দিনের এখনো কোনো খোঁজ  মেলেনি। তাকে উদ্ধারে নিরাপত্তা বাহিনীর বেশ কয়েকটি টিম অভিযান পরিচালনা করছে এলাকায়। 

এদিকে বুধবার বিকাল সাড়ে চারটার দিকে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) চট্টগ্রাম অঞ্চলের বিশেষ পুলিশ সুপার শাহনেওয়াজ খালেদ বলেন, রুমায় সোনালী ব্যাংকের শাখা থেকে কোনো টাকা লুট হয়নি। সিআইডি’র চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার ইউনিটের দুটি দল রুমায় গিয়ে বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করেছে। পরে ব্যাংকের ভল্ট খুলে সব টাকা গুনে দেখা হয়। দেখা যায়, মঙ্গলবার রাখা ১ কোটি ৫৯ লাখ ৪৬ হাজার টাকার পুরোটা রয়েছে। অবশ্য থানচিতে দুটি ব্যাংকের শাখা থেকে অস্ত্রধারীরা সাড়ে ১৭ লাখ টাকা নিয়ে গেছে বলে জানান ব্যাংক দুটির শাখা কর্মকর্তারা। 

কেএনএফ ২০২২ সালের মাঝামাঝি থেকে তৎপরতা শুরু করে। পাহাড়ে তাদের আস্তানায় সমতলের নতুন জঙ্গি সংগঠন জামাতুল আনসার ফিল হিন্দাল শারক্বীয়ার সদস্যরা সশস্ত্র প্রশিক্ষণ নিয়েছিল বলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এর আগে গণমাধ্যমকে জানিয়েছিল। সেই আস্তানায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী গত বছর অভিযান চালিয়ে জামাতুল আনসার ফিল হিন্দাল শারক্বীয়া ও কেএনএফের বেশ কয়েকজন সদস্যকে গ্রেপ্তার করে। কেএনএফ সদস্যদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনার জন্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা মারমার নেতৃত্বে ‘শান্তি প্রতিষ্ঠা’ কমিটি গঠন করা হয় গত বছরের মে মাসে। ওই কমিটির সঙ্গে ৫ই মার্চ দ্বিতীয় দফা বৈঠক হয় বেথেলপাড়ায়।

তিন সপ্তাহ আগে ফেসবুকে ‘বদলা নেয়ার’ ঘোষণা কেএনএফের: ওদিকে ব্যাংকে হামলার তিন সপ্তাহ আগে এক ফেসবুক পেজ থেকে ‘বদলা নেয়ার’ ঘোষণা দেয় পাহাড়ের বিচ্ছিন্নতাবাদী সন্ত্রাসী সংগঠন কেএনএফ। বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কর্তৃক তাদের দুই সদস্যকে আটকের ‘ফিডব্যাক’ হিসেবে তারা এ ঘোষণা দিয়েছিল। ‘কুকি-চিন ন্যাশনাল আর্মি- কেএনএ’ নামের এক ফেসবুক পেজ থেকে গত ১২ই মার্চ এক পোস্ট করা হয়। ওই পোস্টে বলা হয়, ‘বাংলাদেশ সেনাবাহিনী চুক্তি ভঙ্গ করে বম সম্প্রদায়ের নিরীহ জনগণ লালমুয়ানওম বম (গিলগাল বা অবচলিত পাড়া) এবং রামনুয়াম বমকে (দুনিবার পাড়া) আটক করেছে। এর ফল খুব সুন্দরভাবে ফিডব্যাক দেয়া হবে। নিরীহ জনগণকে হয়রানি বন্ধ করা না হলে।’ সংগঠনটির ইনফরমেশন অ্যান্ড ইন্টেলিজেন্স ব্রাঞ্চের দায়িত্বে থাকা ক্যাপ্টেন ফ্লেমিংয়ের বরাতে এ ঘোষণা দেয়া হয়। বিচ্ছিন্নতাবাদী সন্ত্রাসী সংগঠনটির এ ঘোষণার ২১ দিনের মাথায় গতকাল বান্দরবানের রুমা উপজেলা সদরে সোনালী ব্যাংকে হামলার ঘটনা ঘটে।

বান্দরবানের সব উপজেলায় বন্ধ সোনালী ব্যাংক: নিরাপত্তাজনিত কারণে বান্দরবান সদর শাখা ছাড়া থানচি, রুমা, রোয়াংছড়ি, আলীকদম, লামা ও নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার সোনালী ব্যাংকের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বুধবার সোনালী ব্যাংকের চট্টগ্রাম উত্তর বিভাগীয় কার্যালয়ের জেনারেল ম্যানেজার মো. মোসা খান  বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, মঙ্গলবার ও বুধবারের ঘটনায় নিরাপত্তাজনিত কারণে সাময়িক সময়ের জন্য বান্দরবানের সদর শাখা ছাড়া সব উপজেলার সোনালী ব্যাংকের কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়েছে।  এ ছাড়া বৃহস্পতিবারও সদর উপজেলা ছাড়া বান্দরবানের সোনালী ব্যাংকের বাকি শাখার লেনদেন বন্ধ থাকবে। 

নিরাপত্তার দাবিতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন: এদিকে পার্বত‌্য এলাকার সকল নাগ‌রি‌কের নিরাপত্তা নি‌শ্চিত কর‌তে এবং  ব্যাংক ডাকা‌তি ও সরকা‌রি অস্ত্র লুট এবং ব্যাংক ম‌্যা‌নেজার‌কে অপহরণের প্রতিবা‌দে বি‌ক্ষোভ সমা‌বেশ ক‌রে‌ছে পার্বত‌্য চট্টগ্রাম নাগ‌রিক প‌রিষদ। বুধবার সকাল ১১টায় বান্দরবান মুক্ত ম‌ঞ্চে এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন পার্বত‌্য চট্টগ্রাম নাগ‌রিক প‌রিষ‌দ কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান কাজী মজিবর রহমা‌র। এসময় পার্বত‌্য চট্টগ্রাম নাগ‌রিক পরিষদ সহ-সভাপতি আবুল কালাম, সাধারণ সম্পাদক নাছিরুল আলম বক্তব্য রাখেন। 

বিভিন্নভাবে অবস্থান জানান দিচ্ছে কুকি-চিন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
কুকি-চিন বিভিন্নভাবে নিজেদের অবস্থান জানান দিচ্ছে। পাহাড়ে ব্যাংক ডাকাতির একটি প্রচেষ্টা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেন, আমাদের কাছে যা তথ্য আসছে কুকি-চিন যে গ্রুপটি রয়েছে, যারা আগেও বান্দরবানে একটি জায়গায় অবস্থান করে জঙ্গি বাহিনীর সঙ্গে আঁতাত করে একটা ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করেছিল। র‌্যাব ও আর্মি সেই ঘাঁটি সরিয়ে দিয়েছে। অন্যদিকে ভারতীয় সীমান্তে বাংলাদেশি হত‌্যার বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সীমান্ত হত‌্যা নিয়ে দু’দেশের আলোচনা হচ্ছে। গতকাল সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। 

মন্ত্রী বলেন, আমাদের আইজিপি ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সেখানে অবস্থান করছেন। রুমাতে সোনালী ব্যাংকে ঢোকার আগে বৈদ্যুতিক যে সাব-স্টেশন ছিল সেটাকে বন্ধ করে তারা ব‌্যাংকের দিকে অগ্রসর হন। সেখানে পুলিশ মোতায়েন ছিল। পুলিশ ও ব্যাংকের ম্যানেজার সবাই তারাবির নামাজে ছিল। সেই সময় তারা ঢুকে দুই পুলিশকে আহত করে দু’টি এসএমজি ও আটটি চাইনিজ রাইফেল লুট করে। উপজেলা কমপ্লেক্সে আনসারদের শর্টগানগুলোও তারা নিয়ে নেয়। আসাদুজ্জামান খান আরও বলেন, আজকে দিনের বেলায় আমরা দেখলাম, থানচিতে কৃষি ও সোনালী ব‌্যাংকে আক্রমণ করেছে। এই অপারেশনটা এখনো চলছে। আমাদের পুলিশের সঙ্গে সেখানে গোলাগুলি করছে। সেখান থেকে কত টাকা নিয়েছে বা ক্ষয়ক্ষতি কী পরিমাণ তা এখন জানাতে পারবো না। এ বিষয়ে আমাদের যা যা করার, করবো। সরকারের যথেষ্ট পরিমাণ ফোর্স রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত সেখানে পুলিশ ও বিজিবি রয়েছে। প্রয়োজনে সেখানে সেনাবাহিনীও যাবে। আর এ বিষয়টি আমাদের কাছে একেবারে নতুন। থানচি একটি শান্তিপূর্ণ এলাকা। এটা পর্যটকদের জন্য ভ্রমণের মূল জায়গা। রুমাও শান্তিপূর্ণ জায়গা ছিল। সেই জায়গা তারা কেন বেছে নিয়েছে সে-সবকিছু দেখার বিষয় রয়েছে। এগুলো দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব বলে জানান মন্ত্রী।

পাঠকের মতামত

পার্বত্য এলাকা থেকে সেনাবাহিনীর মূল অংশ তুলে নেওয়ার পর সেখানে নিরাপত্তা ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে। ফলে পার্বত্য এলাকা সম্পূর্ণ অরক্ষিত অবস্থায় পড়ে আছে। এখন যা হবার তাই হচ্ছে। সরকার শুধুমাত্র বিভিন্ন বাহিনীকে বিরোধীদলের নেতাকর্মীদের উপর জুলুম-নির্যাতন চালাতে এক পায়ে খাড়া। সরকার নিজেই পার্বত্য এলাকাকে তাদের কাছে দিয়ে দিতে চাই। শুধুমাত্র ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য অসম্ভব এবং অকল্পনীয় সিদ্ধান্ত নিতে তারা বিন্দুমাত্র পিছপা হচ্ছে না বা হবে না।

শওকত আলী
৪ এপ্রিল ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ৩:২৩ অপরাহ্ন

এত পুলিশ এত আনসার, এর সাথে বিজিবি আর আর্মি..... থানচি তেই এই অবস্থা, পাহাড়ে কি অবস্থা.... সব বীরত্ব নিরীহ মানুষের মিছিলে, মানুষ পিটিয়ে আর গুলি করে..... সাবাস সব বাহিনী....

উদ্দিন
৪ এপ্রিল ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ২:০৮ অপরাহ্ন

বেনজির ঘটনা তাইলে ধামাচাপা পরলো?

আহমেদ
৪ এপ্রিল ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১০:৩৭ পূর্বাহ্ন

২ টি চায়নিজ এস এমন জি এবং ৮ চায়নিজ রাইফেল থাকা সত্বেও একটা গুলিও শত্রুর বিরুদ্ধে খরচ করে নাই তা হলে ওরা কি দায়িত্ব পালন করেছে।

প্রকাশে অনিচ্ছুক
৪ এপ্রিল ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১০:২১ পূর্বাহ্ন

হবে না কেন? এই সেদিন পড়লাম এক মন্ত্রীর কান্ড, খবর এই মানবজমিনেরই। মন্ত্রীর বকেয়া বিল থাকে ৯ লাখ টাকা কিন্তু মাসের হিসাব আসে মোটে মাত্র ৩৭ টাকা। এসব আমলনামা সবার জানা। সমাজ কল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদের গ্রামের বাড়িতে এমন কান্ড। ফিল্মি স্টাইলে সিরিজ ব্যাংক ডাকাতি, লুটপাট ও তাণ্ডব চালিয়েছে নতুন সশস্ত্র পাহাড়ি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্ট (কেএনএফ)। ২৪ ঘণ্টায় রুমা ও থানচি উপজেলায় সোনালী ব্যাংকের দুটি ও কৃষি ব্যাংকের একটি শাখায় হামলা ও লুটপাট চালায় পাহাড়ি সন্ত্রাসীরা। অবস্থা বুঝে সোনা বন্ধুরা ব্যবস্থা নিচ্ছে। ঝোপ বুঝে কোপ মারছে মাথা বরাবর? তারপরও মাথা অনড়।

Nazma Mustafa
৪ এপ্রিল ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ৯:২৮ পূর্বাহ্ন

ISIS যেমন বন্ধুদেশের “বন্ধুদের” দ্বারা সৃষ্ট তেমনি এই KNF বন্ধুদেশের দ্বারা সৃষ্ট সংগঠন! দেশের এই "বয়কট" উত্তাপের সময় কেন ব্যাংক ডাকাতি, বাসে-কলকারখানাতে লাগাতার আগুন, বুয়েট দখল, ফেসবুক-ইউটিউব বন্ধের নাটক-সিনেমা?? বন্ধুদেশর এই অস্থিরতায় অনুমান করছি, তারা "বাংলা বসন্তের" আগমনী বার্তা পেয়ে গেছে!

জাভেদ পাটওয়ারী
৪ এপ্রিল ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ৯:১৮ পূর্বাহ্ন

Huge number of Law Enforcers are mobilized in the area including army establishments. Is it then a joke?

nasir uddin
৪ এপ্রিল ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ৮:১৮ পূর্বাহ্ন

পয়সা বানাও বেনজিরের ছোট ভাইয়েরা। ওদিকে ইন্ডিয়ার খে্লোয়ার কুকিচিন বাংলাদেশ রাষ্ট্রকেই চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে সবচাইতে বৃহত রাষ্ট্রায়তক ব্যাংক লুট করে তার ম্যানেজারকে গুম করে দিল।

মজলুম বনি আদম
৪ এপ্রিল ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ৭:০১ পূর্বাহ্ন

দেশটা যে মেরুদণ্ড হীন করছে তারই প্রমাণ! দেশরক্ষার যে বাহিনী আছে তাদের নাম নিতেও জনগণের ভাদে! তারা শুধু বেতনে জন্য চাকরি করছে তাও ঠিক ভাবে করছে না দুনিয়াতে না হলে আখেরাতে হলেও দিতে হবে! বেতন কি হালাল হচ্ছে?

Arfath
৪ এপ্রিল ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ৬:০৩ পূর্বাহ্ন

পারেনতো শুধু নিজের দেশের নিরীহ জনগণকে নির্যাতন, খুন,গুম করতে।এই দেশদ্রোহীদের কিছুই করতে পারেন না।

Saber ahmed
৪ এপ্রিল ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১:৫২ পূর্বাহ্ন

সরকার তার অবৈধ ক্ষমতাকে নিষ্কন্টক করতে দেড় দশক ধরে ক্ষমতাকালে নানা অজুহাতে দেশে কথিত জঙ্গী নিধন করেছে। এবং দেশকে জঙ্গীমুক্ত বলে বিদেশী সারটিফিকেট বাজারজাত করেছে। অথচ জনগণের জান মাল এর নিরাপত্তার হুমকি ক্ষুদ্র সশস্ত্র কুকি চীনকে নির্মূল করতে পারেনি। সরকারের সমস্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে ভঙ্গুর করে দিয়ে প্রকাশ্যে দিনের আলোতে ফিল্মি স্টাইলে ব্যাংক লুট সরকারের অদক্ষতার অজ্ঞতার অকর্মন্যতার জানান দিল। যে সরকার ব্যাংকের নিরাপত্তা দিতে পারেনা এরা জনগণের নিরাপত্তাও দিতে পারেনা এদের হাতে দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্বও কিঞ্চিত নিরাপদ নয়। ক্ষুদ্র সশস্ত্র জঙ্গী গোষ্ঠির মোকাবেলায় যে সরকার চরম ব্যর্থ সে সরকারের হাতে বাংলাদেশ নিরাপদ নয় জাতি নিরাপদ নয়। এ সরকারের পতন আন্দোলন সফল করে দেশের সার্বভৌমত্ব অর্থনীতি নিরাপদ করতে এখনি জনগণকে সংগ্রামে ঝাপিয়ে পড়তে হবে নয়তো জাতি এর খেসারত দিবে যুগ যুগান্তরে তাতে কোন সন্দেহ নাই।

আলমগীর
৪ এপ্রিল ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১:৪১ পূর্বাহ্ন

মন্তব্য করার মতো ভাষা নেই, দেশের নিরাপত্তা ব্যবস্হা এতোটাই উদ্বিগ্ন,,যে আমাদের আর কী দেখার বাকি রইলো। এদের কঠোর হস্তে দমন করতে হবে।

হোসেন মাহবুব কামাল
৪ এপ্রিল ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১:৩৩ পূর্বাহ্ন

কুকি-চিন নিশ্চিতভাবই প্রতিবেশী কারো ইন্ধনে এই দুষ্কর্ম চালিয়ে যাচ্ছে।

Siddq
৪ এপ্রিল ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১:৩০ পূর্বাহ্ন

প্রায় নিউজ পেপারে হুবুহু একই লেখা। কোনো ব্যাক্তির উদৃত বাক্য একই হতে পারে সমস্যা নেই। কিন্তু নিউজ পড়ে মনে হলো অনেক কিছুই কপি পেস্ট। কি যে হচ্ছে দেশে

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক
৪ এপ্রিল ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১২:২৬ পূর্বাহ্ন

প্রথম পাতা থেকে আরও পড়ুন

   

প্রথম পাতা সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status