ঢাকা, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, শুক্রবার, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৯ শাওয়াল ১৪৪৫ হিঃ

শরীর ও মন

রোগ শনাক্তে “কোলনস্কপি” ও এর প্রয়োজনীয়তা

ডা. মোহাম্মদ তানভীর জালাল
২৪ মার্চ ২০২৪, রবিবার

কোলনস্কপি হচ্ছে কোলন বা বৃহদন্ত্রের একটি পরীক্ষা। যে পরীক্ষার মাধ্যমে  চিকিৎসকরা বৃহদান্ত্র, মলদ্বার বা পায়ুপথের বিভিন্ন সমস্যা নির্ণয় করতে পারি। এমনকি ক্যান্সারের মতো জটিল রোগ প্রাথমিক অবস্থায় নির্ণয় করা যায়। ফলে ফলপ্রসূ চিকিৎসা করা সম্ভব হয়। এমনকি সার্জারি এড়ানো সম্ভব হয়।

প্রকার
কোলনস্কপি মূলত দুই ধরনের।
- শর্ট কোলনস্কপি ও
- ফুল কোলনস্কপি।
কখন করবেন?
রোগী যখন পায়খানার রাস্তায় কোনো সমস্যায় ভোগেন যেমন- 
- মলদ্বারে ব্যথা, ফুলা, বা পায়খানার সঙ্গে রক্ত যাওয়া
- ঘন ঘন পায়খানা হওয়া।
- পায়খানা ক্লিয়ার না হওয়া।
- বিজল বিজল পায়খানা হওয়া বা পায়খানার সাথে আম বা মিউকাস যাওয়া।
- বয়স পঞ্চাশের বেশি হলে স্ক্রিনিং এর উদ্দেশ্যে- অর্থাৎ ক্যান্সার আছে কিনা?
- যাদের নিকটাত্মীয়ের মধ্যে কোলন ক্যান্সারের ইতিহাস আছে।
- এ ছাড়া, আলসারেটিভ কোলাইটিস এবং ক্রনস ডিজিজের রোগ নির্ণয়, রোগের উন্নতি বা ফলোআপের জন্য।
- ক্যান্সারের রোগীর পরবর্তী ফলোআপের জন্য।

কোলনস্কপির প্রস্তুতি-
কোলনস্কপির জন্য ভালো প্রস্তুতি খুবই আবশ্যক। কেননা প্রস্তুতি ভালো না হলে আসল রোগ নির্ণয়ে সমস্যা হতে পারে। আর ভালো প্রস্তুতি বলতে পেটের সব মল পরিষ্কার করাকে বুঝায়।
- সাধারণভাবে পরীক্ষার আগের দিন নরম তরল খাবার খাবে।
- আঁশ জাতীয় খাবার, শাকসবজি ও ফলমূল খাবে না।
- এরপর রাতে এবং পরীক্ষার দিন সকালে কিছু ওষুধ খাবে পায়খানা নরম করার জন্য।

কখন বুঝবেন প্রস্তুতি ঠিকমতো হয়েছে?
ওষুধ খাওয়ার পর অনেকবার পাতলা পায়খানা হবে। পায়খানা হতে হতে যখন শেষ পর্যন্ত পানির মতো মল যাবে তখন বুঝতে হবে প্রস্তুতি সঠিক হয়েছে। প্রয়োজনে এ সময় রোগী ঘন ঘন খাবার স্যালাইন খাবে। তবে বয়স্ক রোগী, ডায়াবেটিস ও কিডনি রোগীদের ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে।

বিজ্ঞাপন
আর এ সময় শক্ত কোনো ধরনের খাবার সম্পূর্ণ রূপে নিষেধ থাকবে। এটা প্রায় সব রোগীর একটি সাধারণ সমস্যা। প্রায় সব রোগীই এ পরীক্ষার কথা শুনলে ভয় পান। আধুনিক যুগে ভয় পাওয়ার কোনোই কারণ নেই। এ পরীক্ষা করার আগে বিভিন্ন ইনজেকশন দেয়া হয়, যাতে রোগীর ব্যথা না হয় এবং রোগী ঘুমিয়ে থাকেন। এমনকি অজ্ঞান করেও এ পরীক্ষা করা যায় যে, পরীক্ষা করার পর রোগী যখন সজাগ হন তখন তিনি কোনো ব্যথাই অনুভব করেন না। তাই ভয় না পেয়ে যাদের প্রয়োজন তাদের উচিত সঠিক সময়ে পরীক্ষাটি করে নেয়া। 

লেখক: সহযোগী অধ্যাপক (কলোরেক্টাল সার্জারি বিভাগ) কলোরেক্টল, লেপারোস্কপিক ও জেনারেল সার্জন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা। 
ইমেইল: [email protected]  www.facebook.com/Dr.Mohammed TanvirJalal 
ফোন: ০১৭১২-৯৬৫০০০৯

শরীর ও মন থেকে আরও পড়ুন

   

শরীর ও মন সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status