ঢাকা, ১৯ আগস্ট ২০২২, শুক্রবার, ৪ ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২০ মহরম ১৪৪৪ হিঃ

অনলাইন

চাঁদা দাবির আভিযোগ ঢাবি ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে, লেগুনা ভাঙচুর

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার

(১ মাস আগে) ২ জুলাই ২০২২, শনিবার, ৩:০৯ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১০:৩২ পূর্বাহ্ন

প্রতি মাসে দাবিকৃত দেড় লাখ টাকা চাঁদা দিতে রাজি না হওয়ায় নীলক্ষেত রুটে চলাচলকারী চারটি লেগুনা ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের এফ. রহমান হল শাখার কর্মীদের বিরুদ্ধে।

স্যার এ এফ রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রিয়াজুল ইসলাম এবং সাধারণ সম্পাদক মুনায়েম শাহরিয়ার মুনের নির্দেশে তাদের অনুসারীরা গতকাল শুক্রবার (১জুলাই) সন্ধ্যায় এ হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ করেন নীলক্ষেত লেগুনা সমিতি কর্তৃপক্ষ।

নীলক্ষেত মোড় হয়ে ৩টি ভিন্ন ভিন্ন রুটে ৬০-৭০টি লেগুনা চলাচল করে। ফের হামলার আশঙ্কায় আজ সবকটি রুটেই বন্ধ রয়েছে লেগুনা চলাচল। এতে ভোগান্তিতে পড়েন এসব রুটে প্রতিদিন চলাচল করা সাধারণ যাত্রীরা।

লেগুনা সমিতি সূত্রে জানা যায়, গত সপ্তাহে লেগুনা মালিক সমিতির নেতাদের ডাকেন স্যার এ এফ রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক। এফ রহমান হলের সামনে চায়ের দোকানে হওয়া সেই বৈঠকে তারা সমিতির নেতাদের কাছে ‘হাতখরচ’ হিসেবে প্রতি মাসে দেড় লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। এ নিয়ে মালিক সমিতির সঙ্গে তাদের ২ দফা বৈঠক হয়। কিন্তু মালিক সমিতির ছাত্রলীগের এই অযৌক্তিক দাবি মেনে নিতে রাজি না হওয়ায় হামলা-ভাঙচুর চালান ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা।

ছাত্রলীগের সাথে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন লেগুনা মালিক রফিক। নীলক্ষেত থেকে চকবাজার রোডে তার দুটি লেগুনা রয়েছ। তিনি বলেন, আমাদের সঙ্গে বসার পর হল ছাত্রলীগের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমরা এখন নতুন কমিটি পাইছি। আমাদের কিছু হাত খরচ দিয়েন। এরপর আমাদের একজন বলেন, কত দিতে হবে ভেঙে বলেন।

বিজ্ঞাপন
তখন রিয়াজ ভাই বলেন, দেড় লাখ টাকা দিয়েন। এই কথা শুনে আমাদের সবাই উঠে চলে আসছি। তাদের প্রোগ্রাম থাকায় তারাও চলে যায়। এই ঘটনার চার-পাঁচ দিন তাদের সঙ্গে আর যোগাযোগ হয়নি। তারাও কোনো ঝামেলা করেনি।
লেগুনা মালিক রফিক আরও বলেন, চার-পাঁচদিন পর এসে তারা গাড়ি ভাঙচুর এবং চালকদের মারধর করা শুরু করেন। স্ট্যান্ডে কোনো গাড়িই তারা রাখতে দেন না।

নীলক্ষেত স্ট্যান্ডের সুপারভাইজার মহসিন মানবজমিনকে বলেন, গতকাল ১০-১২ জন ছাত্রলীগ নেতা কর্মী লাঠিসোটা নিয়ে এসে অতর্কিতভাবে রাস্তায় থাকা লেগুনার উপর হামলা চালান। এতে চারটি লেগুনা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর আগেও তারা বেশ কয়েকবার বিভিন্ন লেগুনার লুকিং গ্লাস ও সামনের গ্লাস ভাঙচুর করেন। এ পর্যন্ত মোট সাতটি লেগুনায় হামলা হয়েছে। আজকের নীলক্ষেতে তিনটি রোডে সবকটিতে লেগুনা চলাচল বন্ধ রেখেছে মালিকরা। ঘটনার সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত সংশ্লিষ্টরা লেগুনা রাস্তায় নামাবেন না বলে তিনি জানান।

তবে অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে এফ রহমান হল ছাত্রলীগের সভাপতি রিয়াজুল ইসলাম মানবজমিনকে বলেন,  গত তিনদিন ধরে আমি অসুস্থ। হামলার বিষয়ে আমি কিছু জানি না। আমার বিরুদ্ধে যারা অভিযোগ করছে তাদের আমি চিনিও না, চাঁদা চাওয়া তো প্রশ্নই উঠে না। এটি আমার মান সম্মান নষ্ট করার জন্য পরিকল্পিতভাবে করা হয়েছে। আমি সুস্থ হয়ে তাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেব।
 

পাঠকের মতামত

কবি এখানেই নিরব, চোরের দশ দিন গিরস্থের ১ দিন

মামুন হোসেন
৩ জুলাই ২০২২, রবিবার, ১:০৭ অপরাহ্ন

আধুনিক ব্যাংকক শহরে মূল সড়কে টুকটুক নামে তিন চাকার গাড়ি চলে আইনসং্গত ভাবেই । আমাদের এখানে বিষয়টি বেআইনি রেখে ঘুষ-চাদাবাজির সুযোগ করে দেয়া হচ্ছে ।

Quamrul
২ জুলাই ২০২২, শনিবার, ৯:২৯ পূর্বাহ্ন

এরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এবং চাদাঁবাজি এদের আয়ের খাত! ভাবতে প্রচন্ড কষ্ট লাগে, রাজনৈতিক দলগুলো শুধুমাত্র অবৈধ ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে কিভাবে দানব পুষছে! আরও অবাক লাগে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরাও এই অবৈধ ক্ষমতাধরদের দাস হয়ে জীবন অতিবাহিত করে শুধুমাত্র একটা পদ, একটা পূর্বাচলের প্লটের আশায়! লেগুনা চলাচল নিয়ে অনেকে নাদানের মত প্রশ্ন তুলছে! আরে ভাই লেগুনা চলাচল বন্ধ করতে হলে সিটি কর্পোরেশন আছে তারা করবে, তাই বলে এই সুযোগে ছাত্ররা তো চাঁদাবাজি করতে পারেনা! আর এই লেগুনাগুলো চালু করছে কারা? এমন বিভিন্ন নেতারাই তো চালু করছে।

সোহেল
২ জুলাই ২০২২, শনিবার, ৮:২০ পূর্বাহ্ন

রূপনগর দুয়ারীপাড়া থেকে মিরপুর এক নাম্বার কিছু লেগুনা চলে। এগুলোর ফিটনেস নেই, চালক অপ্রাপ্তবয়স্ক।এগুলো থেকে কারা চাঁদাবাজি করে? পুলিশ কেন এসব লেগুনা চলতে দিচ্ছে? এছাড়া মিরপুর ষাট ফুট সড়কেও কিছু লেগুনা চলাচল করে। সেগুলিও ফিটনেসবিহীন এবং চালক অপ্রাপ্তবয়স্ক।

Bablu
২ জুলাই ২০২২, শনিবার, ৫:১৫ পূর্বাহ্ন

অনলাইন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

অনলাইন থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status