ঢাকা, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, বুধবার, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৭ শাওয়াল ১৪৪৫ হিঃ

বিশ্বজমিন

পাহাড়সম বকেয়া নিয়ে ধুঁকছে বাংলাদেশের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত

মানবজমিন ডেস্ক

(১ মাস আগে) ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বুধবার, ১১:২০ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ৭:২৬ অপরাহ্ন

mzamin

পাহাড়সম বকেয়া নিয়ে ধুঁকছে বাংলাদেশের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত। অপারেশনাল প্রতিবন্ধকতার সঙ্গে দেশি ও বিদেশি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কাছে ৫০০ কোটি ডলারের দেনা আছে।  মিডিয়ার এসব রিপোর্টের সঙ্গে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বাংলাদেশ ব্যাংকে ডলার সঙ্কটের কথা তুলে ধরে বলেন, প্রতি মাসে ১০০ কোটি ডলার পাওনা পরিশোধে বাধ্যবাধকতা আছে। এই সঙ্কট সমাধানে ইন্ডিপেন্ডেন্ট পাওয়ার প্রোডিউসারদের (আইপিপি) পাওনা পরিশোধের জন্য বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে ‘সোভারিন বন্ড’ ইস্যু করা হবে। এ লক্ষ্যে এরই মধ্যে সুপরিচিত ব্যাংকগুলোর সঙ্গে এ বিষয়ে চুক্তি হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের মাধ্যমে বিশেষ বন্ড চালু করেছে সরকার। প্রাথমিকভাবে এর মূল্য ১২,০০০ কোটি টাকা। বেসরকারি বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের বকেয়া বিল ২০.৬২ বিলিয়ন টাকা নিশ্চিত করার মাধ্যমে বিলকে কমিয়ে ৪২২.৩ বিলিয়ন টাকায় আনা হবে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন ফাইবার টু ফ্যাশন। 

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) বেসরকারি বিদ্যুৎ উৎপাদনকারীদের কাছে ২৫,০০০ কোটি টাকা এবং পেট্রোবাংলার কাছে ৮,০০০ কোটি টাকার দেনা আছে। আদানি, শেভরনের মতো বিদেশি এবং বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের মতো কোম্পানির কাছে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ দেনা আছে সরকার।

বিজ্ঞাপন
এর ফলে পরিস্থিতির আরও অবনতি ঘটতে পারে। পাওনা পরিশোধের ইতিহাস থাকা সত্ত্বেও পাহাড়সম দেনা বাকি থাকার কারণে জ্বালানি সরবরাহকারীদের মধ্যে আস্থার সঙ্কট দেখা দিয়েছে। এর ফলে অপারেশনাল ইস্যু এবং জ্বালানি সঙ্কটের সৃষ্টি হচ্ছে। সব মিলে লোডশেডিংয়ে ভূমিকা রাখছে। আমদানি নির্ভরতা এবং ডলারের সঙ্কট এর ওপর আরও চ্যালেঞ্জ যোগ করেছে। যদি সরকার বেসরকারি বিদ্যুৎ উৎপাদনকারীদেরকে স্থানীয় মুদ্রায় পাওনা পরিশোধ করতে চায় তবুও বছরে এই খাতের প্রয়োজন ১২ বিলিয়ন ডলার। তবে বিনিময় হার নিয়েও মতবিরোধ রয়ে গেছে। দেনা পরিশোধের বাধ্যবাধকতা মিটাতে যে পরিমাণ অর্থের প্রয়োজন তাতে প্রতিদিন তিন কোটি ৩০ লাখ ডলার ঘাটতির মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (বিপিডিবি)। এক্ষেত্রে সরকার উৎপাদন খরচ ও বিক্রয়মূল্যের মধ্যে ফারাক মিটাতে ভর্তুকি দিয়ে যাচ্ছে। ৫০,৮৫৮.২৫ কোটি টাকা রাজস্ব আয় করা সত্ত্বেও উল্লেখ করার মতো ৪৭,৭৮৮.১৭ কোটি টাকা বিপিডিবির লোকসান হয়েছে বলে বলা হয়েছে।

 

পাঠকের মতামত

ফের আগামী মাসে বাড়বে বিদ্যুতের দাম এবং গত ৫ বছরে যে হারে দাম বেড়েছে সেই হিসেবে বিদ্যুৎ বিভাগ শতভাগ লাভজনক প্রতিষ্ঠান হিসাবে চিহ্নিত করা উচিৎ ছিল। কিন্তু এ দেশের দুর্ভাগা মানুষগুলোর কপালে যে শান্তি নামক সুখ পাখিটি নেই!

বন্ধু খান
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বুধবার, ৩:০০ পূর্বাহ্ন

এতো কাহিনী না করে মন্তব্য করার জন্য পাঠককে সুযোগ দিন! দেখা যাবে জনগণের প্রতিক্রিয়া,

Nurul
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বুধবার, ১২:৪০ পূর্বাহ্ন

সাধারণ গ্রাহকের বকেয়া বিলের জন্য লাইন সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। এদের কেন বিচ্ছিন্ন করা হয় না? এরা কি বিশেষ শ্রেণীর নাগরিক ?

Kazi
২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, মঙ্গলবার, ১১:৪৬ অপরাহ্ন

আমরা তো নিয়মিত বিল দিই।এই টাকাগুলো গেলো কই?

Sayed bhuyan
২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, মঙ্গলবার, ১১:৩৯ অপরাহ্ন

ওলোট পালট করে দে মা লুটে পুটে খাই। আওয়ামীলীগ উন্নয়ন??????? সুন্দর দেশটাকে কি করলো এই নব্য বাকশাল।

M hossain
২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, মঙ্গলবার, ১১:১০ অপরাহ্ন

বিশ্বজমিন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত

‌‌‘‌আমাদের আকাশসীমা ব্যবহার করে ইরানে হামলা নয়’‌/ আমেরিকাকে সতর্ক করলো উপসাগরীয় দেশগুলো

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status