ঢাকা, ২৫ জুন ২০২২, শনিবার, ১১ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৪ জিলক্বদ ১৪৪৩ হিঃ

শিক্ষাঙ্গন

মহানবী (সা.) কে অবমাননার প্রতিবাদ

সাধারণ শিক্ষার্থীদের ‘শিবির’ আখ্যা দিলেন বেরোবি শিক্ষক মশিউর

বেরোবি প্রতিনিধি

(১ সপ্তাহ আগে) ১১ জুন ২০২২, শনিবার, ৮:১৬ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ৪:২৫ অপরাহ্ন

মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা:) ও তার পরিবারকে নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদে বিক্ষোভকারী সাধারণ শিক্ষার্থীদেরকে ‘শিবির’ আখ্যা দিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ায় ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছেন বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) গণিত বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মশিউর রহমান। একজন শিক্ষকের এমন বিরূপ মন্তব্যে শিক্ষার্থীদের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।
শুক্রবার রাতে মশিউর রহমান তার ফেসবুক ওয়ালে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ‘শিবির’ আখ্যা দিয়ে পোস্ট করলে ক্যাম্পাসের ভেতরে-বাহিরে চরম সমালোচনা শুরু হয়। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে পাল্টা প্রতিবাদ জানাচ্ছেন শিক্ষার্থীরা।
ফেসবুক স্ট্যাটাসে তিনি (মশিউর) লিখেছেন, শিবির ক্যাম্পাসগুলোতে কতটা শক্তিশালী প্রশাসন দেখলো তো। পুরো লিডিং এ ছিল শিবির। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনে দায়িত্বে থাকা অনেকেই এদের প্রটোকলেও ছিলেন। কি কমু? বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে এদের বিরুদ্ধে এক সাথে লড়াই করতে হবে।
তার ফেসবুক পোস্টের পরপরই ক্যাম্পাসের সাধারণ শিক্ষার্থীদের মাঝে চরম ক্ষোভ শুরু হয়। পোস্টের মন্তব্যের ঘরে কড়া সামালোচনা করেন শিক্ষার্থীরা। মুসাদ্দেক নামের এক শিক্ষার্থী মন্তব্য করেন, বাংলাদেশের অনেক জায়গায় জুমার নামাজের পর মিছিল হয়েছে। তারা কি সবাই শিবির? মনে রাখবেন বাংলাদেশের মানুষ ধর্মভীরু। আর বিষয়টা যখন আমাদের প্রিয় নবীকে নিয়ে তখন তো দলমত আসার কথাই আসেনা।

বিজ্ঞাপন
প্রতিবাদ করলেই যদি শিবির হয় তাহলে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোও শিবির।
শিক্ষক মশিউরের স্ট্যাটাসের তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন মাশফিকুর রহমান নামের একজন।  মাশফিকুরের ফেসবুক স্ট্যাটাস শেয়ার করে মশিউর রহমান লিখেন, আমাকে সোশ্যাল মিডিয়ায় সরাসরি হত্যার হুমকি দানকারী এই ব্যক্তিকে দ্রুত গ্রেপ্তারের জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি। আগামীকাল মামলা হবে। 

 তবে সেই শিক্ষার্থীর পোস্টে হত্যার কথা উল্লেখ নেই। এদিকে সমালোচনার মুখে আরেক স্ট্যাটাসে শিক্ষার্থীদের মন্তব্যের প্রেক্ষিতে ডিজিটাল আইনে মামলা করার হুমকি দিয়ে পুনরায় পোস্ট করায় শিক্ষক মশিউর রহমানের প্রতি ক্ষোভ জানিয়েছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। তার পোস্টের স্ক্রিনশট শেয়ার করে সাধারণ শিক্ষার্থীরাও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে তার পোস্টের বিপক্ষে পোস্ট করে এর প্রতিবাদ করছেন। 

প্রসঙ্গত, ভারতের জনতা পার্টির (বিজেপি) সাবেক মুখপাত্র নূপুর শর্মা এবং দলটির নয়াদিল্লি শাখার গণমাধ্যম প্রধান নবীন জিন্দাল মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) ও তার পরিবার সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্য করেন। এরই প্রতিবাদে গতকাল শুক্রবার বাদ জুমা বেরোবি ক্যাম্পাসসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লীরা।

পাঠকের মতামত

ওরে আগে মারা উচিত। ওই আবার চেতনার বাহক। কুলাঙ্গার।

হামিম
১২ জুন ২০২২, রবিবার, ১০:০১ পূর্বাহ্ন

উনি হাইব্রিড নেতা হতে চাচ্ছেন।

Mobarak
১২ জুন ২০২২, রবিবার, ৭:২৪ পূর্বাহ্ন

উনি তো মনে হচ্ছে দালাল টাইপের কেউ

Md. Khairul Islam
১২ জুন ২০২২, রবিবার, ৩:৫১ পূর্বাহ্ন

হাইব্রিড নেতা হওয়ার ইচ্ছা। শিক্ষকতা ছেড়ে রাজনীতিতে নেমে যান।

মোঃ জহিরুল ইসলাম
১২ জুন ২০২২, রবিবার, ৩:৪৪ পূর্বাহ্ন

ও তো শিক্ষক নামের এক বেহায়া, আমি ভাষা খুঁজে পাচ্ছি না ওরে যে কি ভাবে ধিক্কার জানাই ।

মুহাম্মদ আলমগীর
১২ জুন ২০২২, রবিবার, ৩:০৭ পূর্বাহ্ন

বাংলাদেশে মুসলমান নামে হিন্দুরা শাসন ক্ষমতায় আছে। এরা আবার সকাল বেলা উঠে জায়নামাজ খোঁজে ও গভীর রাতে তাহাজ্জুত নামাজ পড়ে। তা"হলে, মহানবীর কটুক্তিতে কেন নিরবতা। এরা রাতে ভোট চুরি করে শাসন ক্ষমতায়। এরা নেমক হারাম ও মহান আল্লাহর দূশমন!

Barbic
১২ জুন ২০২২, রবিবার, ১:১২ পূর্বাহ্ন

এটা ভুল ধারণা ও বিশ্লেষন মশিউর সাবের । এই প্রতিবাদ বাংলাদেশ সরকারের বিরুদ্ধে নয় । ভারতের কটূক্তি কারিদের বিরুদ্ধে । সরকার কিছু দ্বিপাক্ষিক কারণে প্রতিবাদ করা থেকে বিরত থাকলে দেশের মুসলমান মাত্র ই প্রতিবাদ করে ভারতের বিজেপি সরকার কে সতর্ক বার্তা দেওয়া অপরিহার্য ।

Kazi
১১ জুন ২০২২, শনিবার, ১১:৫২ অপরাহ্ন

এতে প্রমানিত হয় তিনিও একই অপরাধী। শুধু মুখ খুলে বলতে পারে না। তা না হলে এই পরিস্থিতিতে সে কিভাবে এমন মন্তব্য করল?

Md. Masud Rana
১১ জুন ২০২২, শনিবার, ১০:৩৪ অপরাহ্ন

মহানবী(স) কোন দল গোষ্ঠি কিংবা গোত্রের নয় ওনাকে প্রেরন করা হয়েছে সমস্ত বিশ্বজাহানের জন্য। দলমত নির্বিশেষে যেকোন সম্প্রদায়ের লোক মহানবী( স) কে নিয়ে কটুক্তি কিংবা অশোভন মন্তব্য করলে তার তীব্র থেকে তীব্রতর প্রতিবাদ করার অধিকার রাখে। শিক্ষক হিসাবে এতটুকু কান্ডজ্ঞানহীন মন্তব্য শিক্ষক নামের কলংক। শিবির কোন নিষিদ্ধ কিংবা স্বীকৃত অপরাধী সংগঠন নয়। শিবির দেশের প্রচলিত আইনকানুন মেনেই এদেশে বিচরণ করে। শিবির ট্যাগ ব্যবহার করে কারো প্রতি বিদ্বেষ পোষণ আইনত অপরাধ। এতে জনৈক শিক্ষকের ইসলাম মুসলিম নবী রাসূল বিদ্বেষ চরমভাবে ফুটে উঠেছে। ভারতীয় ঘটনা খোদ ভারত বর্ষের সনাতনী হিন্দু ধর্মের ভাই বোনেরাও এ ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে। তাহলে ভারতের হিন্দু ভাই বোনেরাও কি শিবির???

আলমগীর
১১ জুন ২০২২, শনিবার, ১০:৩৭ পূর্বাহ্ন

ঐ মুনাফিকটাকে বৃন্দাবন পাঠানো হোক।

মোঃ মনিরুজ্জামান
১১ জুন ২০২২, শনিবার, ১০:০৯ পূর্বাহ্ন

হয় ইনি... লেজে ঝুলতে চাচ্ছেন না হয় সরকারি পদ পেতে চাচ্ছেন.. মরতে হবে পরকালের বিশ্বাস করেন.. ভালো থাকবেন

Md Nur Hossain
১১ জুন ২০২২, শনিবার, ৯:৫৬ পূর্বাহ্ন

কাকে খুশি করার জন্য এসব আবুল তাবুল বলে শিক্ষিত পাপীরা জানি না।

Emon
১১ জুন ২০২২, শনিবার, ৯:৩৭ পূর্বাহ্ন

মশিউর রহমানের মত লোকেরা শিক্ষিত বোকা!

Bijoy
১১ জুন ২০২২, শনিবার, ৯:৩১ পূর্বাহ্ন

মশিউর রহমানকে বরখাস্ত করা উচিত

..
১১ জুন ২০২২, শনিবার, ৯:১৬ পূর্বাহ্ন

মহানবীর অবমাননার বিরুদ্ধে প্রতিবাদকারীরা শিবির হলে তিনি শিব সেনা। কথা ক্লিয়ার, না ভেজাল আছে?

এ,টি,এম,তোহা
১১ জুন ২০২২, শনিবার, ৮:৩৬ পূর্বাহ্ন

Mr. Mashiur should be changed his religious identity and if possible should be taken Indian citizenship.

Mahbub
১১ জুন ২০২২, শনিবার, ৮:০৩ পূর্বাহ্ন

নমরূদের বংশধরেরা এখানে ও আছে, এই নাস্তিককে অবিলম্বে সাসপেন্ড করে রাস্তায় দিগম্বর করে পিটানো উচিৎ..

Jalal Ahmed
১১ জুন ২০২২, শনিবার, ৭:৪৭ পূর্বাহ্ন

শিবসেনা কিভাবে বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক ?

Mahmud
১১ জুন ২০২২, শনিবার, ৭:৪৫ পূর্বাহ্ন

শিক্ষাঙ্গন থেকে আরও পড়ুন

শিক্ষাঙ্গন থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com