ঢাকা, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১১ শাবান ১৪৪৫ হিঃ

খেলা

‘আমার বলার কিছু ছিল না, চেয়ে চেয়ে দেখলাম, তুমি চলে গেলে’

সৌরভ কুমার দাস

(৯ মাস আগে) ২২ মে ২০২৩, সোমবার, ১:৪৪ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১:৫৮ অপরাহ্ন

mzamin

‘আমার বলার কিছু ছিল না, চেয়ে চেয়ে দেখলাম, তুমি চলে গেলে’ ভারতীয় সঙ্গীত শিল্পী হৈমন্তি শুকলার এই গানটা শোনেননি এমন বাঙালি হয়তো নেই। আইপিএলে দল রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর ব্যাটার ও সাবেক অধিনায়ক বিরাট কোহলি বাঙালি না হলেও তার মনেও অন্য কোনো ভাষায় এই গানটাই বাঁজছে! আর শুকলার কাছে ‘তুমি’ প্রেমিক হলেও কোহলির কাছে সেটা নিশ্চিতভাবেই আইপিএলের অধরা শিরোপা। 

গুজরাট টাইটান্সের ব্যাটিং ইনিংসের ১৯তম ওভার, বোলিংয়ে আরসিবির মোহাম্মদ সিরাজ। ততক্ষণে কোহলির দলের হার সময়ের অপেক্ষা মাত্র! ক্যামেরার লেন্স খুঁজে নিলো ডাগআউটে বসে থাকা কোহলিকে। একটু আগে ক্যাচ ধরতে গিয়ে হাঁটুতে আঘাত লাগায় বাইরে বসে আছেন। টিভি পর্দায় দেখেই বোঝা গেলো, হতাশার সাগরে ডুবে যাচ্ছেন ক্রমশ। মাথার ক্যাপটা টেনে মুখের সেই হতাশাই যেন ঢাকতে চাইলেন তিনি।

একই সঙ্গে হয়তো শুকলার গানটিই তার মনে বাঁজছিল! মৌসুমের পর মৌসুম যায় ব্যাট হাতে রান বন্যা বইয়ে দেন, আবার খারাপ সময়ও কাটান! তবে তার দুর্দান্ত সময়েও যেন আরসিবির ভাগ্য বদলায় না, বদলালো না গত ১৬ আসর ধরেই! 

এই যেমন আজকের ম্যাচের কথাই ধরুন না! প্লে অফ খেলতে টেবিল টপার গুজরাট টাইটান্সের বিপক্ষে জয়ের কোনো বিকল্প নেই আরসিবির। ফাফ ডু প্লেসি আর কোহলি মিলে দুর্দান্ত শুরু করলেন। এবারের আসরে দলটির সংগ্রহ কত হবে সেটাই নির্ভর করেছে এই দুজনের উপরে। আর কিছু ম্যাচে গ্লেন ম্যাক্সওয়েল! প্লেসি ও ম্যাক্সওয়েল কেউই আজ ইনিংস বড় করতে পারলেন না!

অগত্যা কোহলিকেই আবার সেই পুরোনো কাঁধে বইতে হলো আরসিবির ইনিংস! টি-টোয়েন্টিতে তার বিরুদ্ধে বল নষ্টের অভিযোগ পুরোনো। কিছু ক্ষেত্রে সেটা সত্যিও বটে! তবে যে দলে তিনজন ব্যাটার তার আবার দুইজন অল্পতে ফেরেন সেদিন কি আদৌ বল নষ্টের অভিযোগ করা যায়? কি জানি বাপু! বল নষ্টের দিনে তার সেঞ্চুরি এলো ৬০ বলে! 

সেঞ্চুরির আগ মুহূর্ত থেকে একটু ঘুরে আসি! ৯৯ রানে অপরাজিত কোহলি।

বিজ্ঞাপন
১৯তম ওভারের শেষ বলে স্ট্রাইকে থাকা অনুজ রাওয়াতের শট চলে গেলো লং অনে। যেটা আপাতদৃষ্টিতে সিঙ্গেলই মনে হবে। অথচ সেটাকেই কোহলি বানালেন দুই, যেটা নিয়ে কোহলির যে তাড়না সেটাই কোহলিকে আজকের অবস্থানে নিয়ে এসেছে। অথচ থ্রোটা কিন্তু কোহলির এন্ডেই হলো এবং সেটা সরাসরি স্টাম্পেই লাগলো। কিন্তু ৩৪ বছরের তরুণের যে ফিটনেস তাতে এসব থ্রো থোড়াই কেয়ার করবেন! 

১৯৭ রান বোর্ডে, কিন্তু সেই পুরোনো রোগ পিছু ছাড়লো না আরসিবির! একের পর এক ফুলটস, হাভভলি, অতিরিক্ত রান! শেষ পর্যন্ত পাঁচ বল বাকি থাকতে ম্যাচ নয় বরং আইপিএল থেকে ছিটকে গেলো আরসিবি! গুজরাটের জার্সিতে যেন বিরাট বনে গেলেন শুভমন গিল! কোহলির মতো তিনিও করলেন টানা দুই ম্যাচে সেঞ্চুরি! তবে তার মুখে শেষ হাসি থাকলেও ছিল না কোহলির মুখে! 

এই সেঞ্চুরিতে কোহলি ভেঙেছেন আইপিএলে ক্রিস গেইলের সর্বোচ্চ ৬ সেঞ্চুরির রেকর্ড। চলতি আসরে তার ব্যাট থেকে এসেছে ১৪ ম্যাচে ছয় ফিফটি আর দুই সেঞ্চুরিতে ৬৩৯ রান, স্টাইক রেট ১৩৯! তার চেয়ে বেশি রান শুধু সতীর্থ প্লেসির ৭৩০ এবং গিলের ৬৮০! প্লেসি গত দুই আসরে গায়ে দিচ্ছেন আরসিবির জার্সি, আর কোহলির গায়ে সেটা গত ১৬ বছর ধরে।

টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহাক হয়েও দলের এমন পরিণতি হলে কেমন লাগে সেটা কোহলির কাছ থেকে জেনে নিতে পারেন প্লেসি। ২০১৬ সালে চার সেঞ্চুরিতে কোহলি করেছিলেন ৯৭৩ রান, যেটা এখনও আইপিএলের এক আসরে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড! অথচ আরসিবি কিন্তু শিরোপা জেতেনি! 

আইপিএলের কোহলিকে আপনি কি বলবেন? অধিনায়ক থাকাকালীন তাকেই দায়ী করা হতো শিরোপা না জেতার জন্য! সবাই মোটামুটি নিশ্চিত কোহলি অধিনায়ক না থাকলে পরের আসরেই শিরোপা যাবে বেঙ্গালুরুতে! কই? টানা দুই আসরে তো অধিনায়কত্ব করছেন না, শিরোপা গেছে আরসিবিতে? 

তবে অধিনায়কত্ব ছেড়েও অবশ্য তার নিস্তার নেই! তাকে এখন হজম করতে হয় বল নষ্টের অভিযোগ। অথচ তার দলের পরিকল্পনাই থাকে তিন ব্যাটার নিয়ে! যাদের দুজন আগেভাগে ফিরলে ইনিংস টানার বাড়তি দায়িত্বও থাকে!

সবাই বলে বড় খেলোয়াড়দের কানে বাইরের কথা যায় না! তবে এটাই সত্য গেলেও তারা পাত্তা দেন না! এই যেমন সেঞ্চুরি করে ওঠার পর কোহলির কণ্ঠেই কিছুটা অভিমানের সুরও শোনা গেলো। বললেন, 'অনেকেই ভাবে আমার টি-টুয়েন্টি ক্রিকেটটা বুঝি শেষ, কিন্তু আমি তা একটুও ভাবিও না… 

কোহলিকে আপনি বরং আইপিএলের এক অভাগা রাজকুমার নামেই ডাকতে পারেন। নিজ রাজ্য রক্ষায় যে শেষ রক্তবিন্দু পর্যন্ত লড়লেও বাকিদের ব্যর্থতায় তাকে ফিরতে হয় পরাজিত বীর হিসেবেই! যিনি মানুষের ভালোবাসা জেতেন, নিন্দুকের প্রশংসা আদায় করেন, রেকর্ড গড়েন-ভাঙেন! কিন্তু দিন শেষে শুধু ট্রফিটাই জেতা হয় না।  

খেলা থেকে আরও পড়ুন

   

খেলা সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2023
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status