ঢাকা, ১৯ আগস্ট ২০২২, শুক্রবার, ৪ ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২০ মহরম ১৪৪৪ হিঃ

প্রথম পাতা

মারিজুয়ানা কাণ্ড

নাইজেরিয়ান বন্ধুর সঙ্গে লিভ টুগেদার করতেন আনারকলি

মিজানুর রহমান
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার

বাসায় নিষিদ্ধ মাদক মারিজুয়ানা রাখার অভিযোগে নাইজেরিয়ান বন্ধুসহ আটক হয়েছিলেন বাংলাদেশি কূটনীতিক কাজী আনারকলি। প্রায় ২৪ ঘণ্টা তিনি বন্দি ছিলেন ইন্দোনেশিয়ার মাদক নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের ডিটেনশন সেন্টারে। সেখানে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পরে কূটনৈতিক প্রচেষ্টায় বিশেষত ইন্দোনেশিয়া সরকারের বদান্যতায় তিনি মুক্তি পান। দূতাবাসের জিম্মায় তাকে ছাড়া হলেও শর্ত দেয়া হয় যত দ্রুত সম্ভব ইন্দোনেশিয়ার সীমানা ত্যাগ করতে। বিষয়টি সেগুনবাগিচার নোটিশে আসে তাৎক্ষণিক। 

জাকার্তার বাংলাদেশ দূতাবাসের মাধ্যমেই চলে নেগোসিয়েশন। সূত্র বলছে, সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে ইন্দোনেশিয়ার মাদক নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ অত্যন্ত কঠোরতার সঙ্গে কাজী আনারকলির বাসায় অভিযান চালায়, মাদক উদ্ধার করে এবং নাইজেরিয়ান বন্ধুসহ তাকে তুলে নিয়ে যায়। সূত্র মতে, যুক্তরাষ্ট্রের লস এনজেলস থেকে জোগাড় হওয়া ওই বিদেশি বন্ধুর সঙ্গেই জাকার্তার বাসা শেয়ার করতেন আনারকলি। সূত্র মতে, এ দু’জনের সম্পর্ক ছিল লিভ টুগেদারের। তবে তার বয়ফ্রেন্ড বা যার সঙ্গে বাসা শেয়ার করতেন তার নাম জানা সম্ভব হয়নি।

বিজ্ঞাপন
এটা নিশ্চিত যে, তিনি নাইজেরিয়ার নাগরিক। 

সূত্র বলছে মাদক নিয়ন্ত্রণে ইন্দোনেশিয়ার সরকার অত্যন্ত কঠোর। তারা চিকিৎসা কর্মেও এখন পর্যন্ত মারিজুয়ানার ব্যবহারের অনুমতি দেয়নি। মাদক রাখা বা সেবনে যাবজ্জীবন এমনকি মৃত্যুদণ্ডেরও বিধান রয়েছে ইন্দোনেশিয়ার আইনে। সূত্র জানায়, কূটনীতিকের বাসায় মাদক রয়েছে এটা নিশ্চিত হওয়ার পরই ৫ই জুলাই তারা অভিযান পরিচালনা করে। তবে তার আটক এবং মুক্তির পর দেশত্যাগে ততটা চাপ তৈরি করেনি। বরং সেই চাপ ছিল ঢাকার পক্ষ থেকে। কারণ তখন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেনের পূর্ব নির্ধারিত ইন্দোনেশিয়া সফরের প্রস্তুতি চলছিল। 

এদিকে আনাকলির আটক বিষয়ে আনুষ্ঠানিক তদন্ত শুরু করেছে সরকার। এ নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (পূর্ব) মাশফি বিনতে শামসকে প্রধান করে উচ্চ পর্যায়ের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আজ থেকে তদন্ত কমিটি আনুষ্ঠানিক কাজ শুরু করবে। তবে সরকারের দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, কূটনৈতিক দুনিয়ায় বাংলাদেশের উজ্জ্বল ভাবমূর্তিকে চরমভাবে ক্ষুণ্ন্ন করা আনারকলির মারিজুয়ানা কাণ্ডের অনানুষ্ঠানিক তদন্ত আগে থেকেই চলছে। ১৬ই জুলাই জাকার্তা মিশনের উপ-প্রধান কাজী আনারকলি ইন্দোনেশিয়া ছেড়ে আসার পরদিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন দেশটি সফরে যান। সেই সময় মন্ত্রীর সফরসঙ্গী ছিলেন সচিব মাশফি বিনতে শামস। 

তাকে বিষয়টির প্রাথমিক অনুসন্ধান করে আসতে বলা হয়েছিল। তিনি এ নিয়ে কিছু তথ্য সংগ্রহ করে এসেছেন। সেই সময়ে ইন্দোনেশিয়া সরকারের কাছে এ সংক্রান্ত বিস্তারিত রিপোর্টের অনুরোধ করা হয়েছে। ওই রিপোর্ট হাতে পাওয়ার অপেক্ষায় রয়েছে ঢাকা। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য আনারকলিকে ডাকা এবং অন্যান্য প্রক্রিয়া দ্রুতই সম্পন্ন হবে। উল্লেখ্য, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেনও এ বিষয়ে অবহিত জানিয়ে এক কর্মকর্তা বলেন, আনারকলিকে ফিরিয়ে আনা এবং তার বিষয়ে আনুষ্ঠানিক তদন্তের কাজটি নীরবেই করতে চেয়েছিল মন্ত্রণালয়। অনেক আগেই তার তদন্তের ফাইল ইনিশিয়েট করা হয়েছে এবং তা অনুমোদন হয়ে আছে। কিন্তু চিঠি ইস্যু হয়নি। আজ চিঠি ইস্যু এবং অন্যান্য আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হবে বলে নিশ্চিত করেছে সেগুনবাগিচা।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী যা বলেছেন
এদিকে ইন্দোনেশিয়ায় বাংলাদেশ মিশনের উপ-প্রধান কাজী আনারকলির বাসায় মাদক পাওয়া এবং তাকে প্রত্যাহারের ঘটনাকে ‘দুর্ভাগ্যজনক ও বিব্রতকর’ বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। মঙ্গলবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপে তিনি বলেন, ‘আমরা এটা ইনভেস্টিগেট করছি। নিউজটা আমরা দেখেছি, নিউজটা শুধু দেখার বিষয় না, আমরা সেই কর্মকর্তার বিষয়ে কয়েক দিন আগ থেকেই জানি। আমরা তদন্ত করছি। এটা আমাদের জন্য বিব্রতকর। 

এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, একজন কর্মকর্তা এটার মধ্যে ইনভলবড, এটাকে স্টোরি বলি বা ঘটনা বলি, বা ইনসিডেন্টই বলি, তিনি ইনভলবড। তিনি নিজে করেছেন, না তার বন্ধু করেছে- সেটা পরে তদন্তে নিশ্চিত হওয়ার আশা করে তিনি বলেন, পুরো জিনিসটা আমাদের দুর্ভাগ্যজনক এবং বিব্রতকর। তদন্তে তিনি দোষী সাব্যস্ত হলে যথোপযুক্ত আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে এমন আশ্বাস দিয়ে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, পররাষ্ট্র ক্যাডারের যে হাই স্ট্যান্ডার্ড, এটার সঙ্গে আমরা কখনোই কমপ্রোমাইজ করবো না। তদন্তে যদি সে (আনারকলি) দোষী সাব্যস্ত হয়, অবশ্যই তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে, এটুকু বলতে পারি। 

জাকার্তায় বাংলাদেশের উপ-রাষ্ট্রদূত আনারকলি ভিয়েনা কনভেনশন অনুযায়ী পুরোপুরি কূটনৈতিক দায়মুক্তির আওতাধীন ছিলেন। বাংলাদেশকে না জানিয়ে তার বাসায় মাদক নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের অভিযান কীভাবে হলো? এমন প্রশ্ন ছিল প্রতিমন্ত্রীর কাছে। সাংবাদিকরা এ-ও জানতে চেয়েছিলেন এ নিয়ে বাংলাদেশ সরকার ঢাকাস্থ ইন্দোনেশিয়ার দূতাবাস বা দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে প্রশ্ন তুলেছে কি-না? জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ নিয়ে আমার প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া হচ্ছে, এখানে তারা কোনো ভুল করেনি। কারণ সেই বাসায় আরেকজন বিদেশি নাগরিক ছিলেন বলে আমরা শুনেছি। সেক্ষেত্রে পুলিশ যেতেই পারে। প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা ধন্যবাদ জানাই ইন্দোনেশিয়া সরকারকে তারা আমাদের এ নিয়ে সহযোগিতা করেছেন। আমাদের ডিপ্লোম্যাটকে ফিরিয়ে দিয়েছে। তিনি এখন আমাদের কাস্টডিতে আছেন, আমাদের নিয়ন্ত্রণই রয়েছেন। এটা আমাদের কাজের জন্য সহায়ক হবে।’ 

উল্লেখ্য, কূটনৈতিক দায়িত্ব থেকে আনারকলিকে ফেরত আনার ঘটনা এবারই প্রথম নয়। এর আগে বাসার গৃহকর্মী নিখোঁজের ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলস থেকে ২০১৭ সালে তাকে ফেরত আনা হয়েছিল। পররাষ্ট্র ক্যাডারের ২০ ব্যাচের কর্মকর্তা আনারকলি ওই সময় যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলসে বাংলাদেশের ডেপুটি কনসাল জেনারেল ছিলেন। মার্কিন সরকারের বেঁধে দেয়া সময়ের মধ্যে তাকে জাকার্তায় জরুরি পদায়ন করা হয়েছিল এবং  ইন্দোনেশিয়ার ভিসা পাওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই তিনি যুক্তরাষ্ট্র ছাড়তে বাধ্য হয়েছিলেন।

 

পাঠকের মতামত

বিচার করবে কে? বেড়ায় যদি খেত খায় তাহলে পাহারা দিবে কে? একটা গল্প মনে পড়ে গেলো, এক মুরব্বি ব্যক্তি এক কিশোর ছেলেকে দাঁড়িয়ে পেশাব করতে দেখে বললেন যে তোর বাপকে বলবো। যখন বাপকে বলার জন্য তাদের বাড়িতে গেলো, দখল যে বাপ্ হেঁটে হেঁটে পেশাব করছে। এসব নৈতিক স্খলনের, এসব অপরাধীদের বিচার করবে কে? কার কাছে বিচার দিবেন? বিচার দিতে গিয়ে দেখবেন যে সেখানে ক্ষত আরো বেশি।

salim khan
৭ আগস্ট ২০২২, রবিবার, ১০:৪৩ অপরাহ্ন

শুধু আনারকলি নয় আরও অনেক রাষ্ট্রদূত দেশের বাইরে একই অপকর্ম করছে। বিচার হয় না। Promotion হয়। যে কমকর্তারা যত বেশি অপকর্ম দূর্নীতি করে তাদের Promotion হয়। কারণ এই সরকার তো জনগণের ভোটে নির্বাচিত সরকার নয়। ওরাই রাতের বেলা ভোট দিয়ে এই আওয়ামী সরকারকে নির্বাচিত করে। স্বাধীন দেশের নাগরিক হয়েও আমরা পরাধীন।

আজাদ
৭ আগস্ট ২০২২, রবিবার, ৮:৩৭ অপরাহ্ন

বাংলাদেশ ফরেন সার্ভিসের কোন নৈতিক মানদন্ড নেই। সব মিশনেই এমন কাহিনী আছে। পরকীয়া, নারী সহকর্মীদের যৌন হেনস্থা, বিদেশীদের সাথে বেলেল্লাপিনা, দুর্নীতি, স্বেচ্ছাচার চলছেই। কিছুদিন পূর্বে জেদ্দায় সেফ হোমে নারী কর্মী ধর্ষণের অভিযোগ আসে। একজনকে দেশে বদলি করা হলেও ফরেন ক্যাডারের ক্ষমতাধর কনসাল জেনারেলকে পুরস্কৃত করে রাশিয়ার মস্কোয় বদলি করা হয়। নৈতিক অবক্ষয়ই বাংলাদেশ ফরেন সার্ভিসে ভাল পদায়নের চাবিকাঠি।

Dr.Md. Kabiruzzaman
৫ আগস্ট ২০২২, শুক্রবার, ২:০৯ পূর্বাহ্ন

এ দেশের অধিকাংশ উচ্চ শিক্ষিত লোকদের চরিত্রটাই প্রায় এরকম "যত বড় শিক্ষিত তত বড় লুচ্চা দূর্নীতিবাজ"।

MOHAMMAD RAFIQUL ISL
৪ আগস্ট ২০২২, বৃহস্পতিবার, ৫:৩৩ অপরাহ্ন

বারবার অপরাধ করার পরও তাকে শাস্তি না দিয়ে কেন পদায়ন করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সকলের শাস্তি কামনা করছি।

এম আর
৪ আগস্ট ২০২২, বৃহস্পতিবার, ৫:০০ অপরাহ্ন

দু'টি ঘটনা আমাকে খুব পীড়া দিয়েছে- ১। বাংলাদেশের একজন কূটনীতিক অবৈধভাবে দীর্ঘকাল যাবৎ বিদেশী নাগরিকের সাথে একত্রে বসবাস ও বিবাহ বহির্ভূত শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত সেটা সংশ্লিষ্ট দূতাবাস জানেই না বা জেনেও গোপন করে রেখেছে। ২। ৫ই জুলাই পুলিশের হাতে আটক হওয়ার খবর আমরা এই ডিজিটাল বাংলাদেশে বসে জানতে পারলাম প্রায় ২৬ দিন পর। সরকারের নৈতিকতা আর সংবাদপত্রের স্বাধীনতার মানদন্ড সম্পর্কে আর মনে হয় বিস্তারিত কিছু না বলাই মঙ্গলকর। পাঠক সবই জানেন ও বুঝেন।

Ron
৪ আগস্ট ২০২২, বৃহস্পতিবার, ১:৪২ অপরাহ্ন

ওকে গণপিটুনি দেওয়া হোক। কারণ জনগণের টাকায় সে বেলাল্লাপনা করেছে।

Aslam Kabir
৪ আগস্ট ২০২২, বৃহস্পতিবার, ১২:১৭ অপরাহ্ন

বাংলাদেশ ফরেন সার্ভিসের কোন নৈতিক মানদন্ড নেই। সব মিশনেই এমন কাহিনী আছে। পরকীয়া, নারী সহকর্মীদের যৌন হেনস্থা, বিদেশীদের সাথে বেলেল্লাপিনা, দুর্নীতি, স্বেচ্ছাচার চলছেই। কিছুদিন পূর্বে জেদ্দায় সেফ হোমে নারী কর্মী ধর্ষণের অভিযোগ আসে। একজনকে দেশে বদলি করা হলেও ফরেন ক্যাডারের ক্ষমতাধর কনসাল জেনারেলকে পুরস্কৃত করে রাশিয়ার মস্কোয় বদলি করা হয়। নৈতিক অবক্ষয়ই বাংলাদেশ ফরেন সার্ভিসে ভাল পদায়নের চাবিকাঠি।

Aloha
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ৮:০৮ অপরাহ্ন

৩০ লক্ষ শহীদের বিনিময়ে অর্জিত বাংলাদেশের স্বপ্ন এই সব কুলাঙ্গারের জন্য লুণ্ঠিত হতে পারে না, দ্রুত আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শান্তির ব্যবস্থা করা হোক।

সোলায়মান কবির
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ৪:২৮ অপরাহ্ন

High profile LUCCHA.MOFA of Bangladesh must give her a heavy punishment.

Shafiur
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ১:৫০ অপরাহ্ন

দেশের গন্ডি পেরিয়ে বিদেশের মাটিতেও বাঙালি মাদক ছড়িয়ে দিতে দ্বিধাবোধ করে না.....!!!

Md Forkan Molla
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ১২:২২ অপরাহ্ন

আমেরিকা থেকে বহিষ্কারের পর, আবার কেন ইন্দোনেশিয়ায় পদায়ন করা হয়েছে!

Jahir
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ১২:১৩ অপরাহ্ন

Very bad

MD. ABDUL BAREK
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ১০:১৪ পূর্বাহ্ন

আহ,নাইজেরিয়ানের কি সৌভাগ্য

তৌহিদ শিকদার
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ৯:৩১ পূর্বাহ্ন

I can't believe ! How comes ? How does she get all these postings ?

Abdul Matin
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ৯:২৭ পূর্বাহ্ন

আঘাটে ঘাট আপথে পথ

Nayeem
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ৮:৪১ পূর্বাহ্ন

দেশের নাম ডোবানোর অপরাধে ওর তো সর্বোচ্চ সাজা হওয়া দরকার। আর লিভটুগেদার বা ব্যাভিচারের অপরাধের বিচার তো হবে বলে মনে হয় না।

গোলাম রব্বানী
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ৮:২৬ পূর্বাহ্ন

Mr. Moni what I can tell you that it’s true” PaP Bap kow Chare na “ it’s true I live in England I used to know them very well. She devoured her second husband when she was in Hong Kong because of her and her husband extra marital affairs. Now I know her 2nd husband is suffering from paralysis and she is facing consequences of her ill action.

Tariqul Islam
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ৮:২০ পূর্বাহ্ন

বাংলাদেশের বর্তমান অর্থনৈতিক সামাজিক রাজনৈতিক পারিবারিক যে ধারা অনুযায়ী আমরা চলছি, চলতে বাধ্য হচ্ছি সে অনুযায়ী কাজী আনার কলির জীবনাচার একদম সঠিক মানানসই।

মোঃ আতাউর রহমান
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ৮:১৫ পূর্বাহ্ন

একজন কূটনীতিকের এমন পদস্খলন কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না। সে বহির্বিশ্বে আমাদের মানসম্মান ডুবিয়েছে। বানিয়েছে হাসির পাত্র। ফেলেছে চরম লজ্জায়। একবার সে পার পেয়েছিল এখন যেন কিছুতেই তেমনটা না ঘটে। মহিলার যথাযথ বিচার চাই।

মাহবুবুর রহমান শিশির
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ৭:১৬ পূর্বাহ্ন

lকিছু বলার ভাষা হারিয়ে ফেলেছি। যারা দেশের পাহারা দেবে তারাই আজ আসামি। আওয়ামীলীগ দলীয় করন কতটুকু পর্যন্ত পৌঁছে গেছে কল্পনা করা যায় না। মানসম্মান শেষ।

Rafiqul
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ৬:৫৮ পূর্বাহ্ন

very sad....

omur
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ৬:২৭ পূর্বাহ্ন

Please taslima nasrin tel about anar koli

Shahadat Hossain
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ৩:৫৮ পূর্বাহ্ন

এরা দেশের মান সম্মান শেষ করে দিতে কোন কুন্ঠাবোধ করে না

মোহাম্মদ সাইফুল ইসলা
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ৩:৪৭ পূর্বাহ্ন

মিঃ প্রতিমন্ত্রী, এখন আপোষ করবেন না। তাহলে,নিজের গৃহপরিচারিকা নিখোঁজের কারনে কাজি আনারকলিকে যখন যুক্তরাষ্ট্র বহিষ্কার করলো,আপনারা তাকে কেনো ইন্দোনেশিয়ায় পদায়ন করলেন? কোন খুঁটির জোড়ে সে এত গুরুত্ব পাচ্ছে? ৫ জুলাই এর ঘটনা,ব্যবস্থা নিতে কেনো এত বিলম্ব? মিডিয়া প্রকাশ না করলে এটাও আগের মত অন্যত্র পদায়নে শেষ করতেন,তাই না? আজ বিশ্ব জানছে আপনাদের চারিত্রের সৌন্দর্য! আপনাদের কারনেই মাথা উঁচু

Hkan Habibe Mostafa
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ৩:১২ পূর্বাহ্ন

I wonder how this person could get away from punishment every time he did a misconduct. During her first years of service, despite being married to someone, she started an obnoxious relationship with a married man from BD Airforce who was Prime Minister Khaleda Zia's ADC at that time. Everyone knew about that affair but no one intervened. Rather she was given a scholarship to England bypassing her senior officer. Then that ADC and she eloped to England and lived together while she was studying . No punishment was ever given to her for her misconduct, rather she came back to Ministry like a hero and was sent to Hong Kong as Vice Consul. There, she got involved in a nasty fight (that went physical) with her boss and his wife. Since her 2nd husband was the ADC to Prime Minister Khaleda Zia, Anarkoli got away with her misconduct again, but the senior officer was recalled from Hong Kong. Then she was given posting to Rome. According to staff members working at that Embassy at that time, she got involved with a Bangladeshi expat (businessman ) in Milan. Govt. changed and so changed her relationship. Her second husband disappeared from the scene and she started relationship here and there. Yet no one said a word against her. She gave birth to a baby girl whose paternity remained a mystery even today. Yet she was transferred to and became Director Administration !!! Her arrogance, misbehavior, misdemeanor, misuse of power became nightmare to her junior colleagues. If you don't believe me, as anyone in the foreign service who witnessed her arrogance at that time. She was the queen (bee) of the Ministry at that time ! Then she was sent to USA where she got involved in human smuggling. She took with her a man as her servant which is very unusual. Why would a female single diplomat with a girl child would take an unrelated adult man as servant? why did the ministry give permission? then that man reportedly fled and complained to State Department that he had allegedly paid 20 lac Taka for his visa to USA. She was about to be arrested but Ministry saved her again and brought her back to Bangladesh within 24 hours. And what was the punishment she was given? Within 15 days, she was given a posting to Indonesia. She took that new Nigerian man with her, lived with her for years, everyone knew that but all remained silent and let her live with that foreigner for years. And you know the rest. Now, I am risking my life for posting this comment. For security reasons I am using VPN so that they cannot locate me. Thanks everyone.

Moni
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ২:৫৭ পূর্বাহ্ন

মারিজুয়ানা বা ইয়াবা কোনো মাটার না, তার চেয়ে বেশি হলো একজন ডিপ্লোমেট কি করে একজন বিদেশি বয়ফ্রেন্ডকে তার বাসায় স্থান করে দিয়েছে এবং তাও নাইজেরিয়ান পৃথিবীর মধ্যে সব চেয়ে ক্রিমিনালদের জন্মদাতা। একটা দেশের জন্যও সর্বোচ্চ গোপনীয়তার হুমকির মুখে ও ? দেশের প্রশাসন কি নাকের ডগায় তৈল দিয়ে ঘুমাচ্ছেন যে তারা খোঁজ খবর রাখেন না একজন ডিপ্লোমেট বিদেশের মাটিতে কিভাবে, কাদের সঙ্গে উঠা বসা করে ?? ওরা আর দুইদিন পরে দেশ বিক্রি করে দিবে ??

Khokon
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ২:৪১ পূর্বাহ্ন

This is very shamefull matter.

Kibria
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ২:০৫ পূর্বাহ্ন

১ কোটি প্রবাসীর লজ্জায় আজ মাথা অবনত। এই সরকার যাকে-তাকে উচ্চপদে আসীন করাতে আজকে সারা বিশ্বে বাংলাদেশের মান-সম্মান ভুূলুণ্ঠিত ।

Khan
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ১:৫১ পূর্বাহ্ন

এত এত বাংলাদেশী থাকতে নাইজেরিয়ান!

sienat
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ১:২১ পূর্বাহ্ন

বিষয় টি অত্যান্ত দুঃখ জনক, দেশের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করেছেন বলে আমি মনে করি। তার দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তি দাবি করছি।

আঃ মালেক রেজা, সিনিয়
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ১:০১ পূর্বাহ্ন

এটাই বর্তমান বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি।

ফয়সাল আহমেদ
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ১২:৪৫ পূর্বাহ্ন

খবরটা শুনে আমি এতই হতবিহবল যে আমার খোলা চোয়াল অনেকক্ষণ পরে বন্ধ হলো!বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশের এক অপূরণীয় ক্ষতি ক্ষতি হয়ে গেলো।ওয়াসফিয়া নাজরীনরা বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি গড়ে,আর এই মনোভাবের মহিলারা বাংলাদেশের ভাবমূর্তি তলিয়ে দেয়! খুব লজ্জ্বা লাগছে।

নার্গিস জিনাত
৩ আগস্ট ২০২২, বুধবার, ১২:২৬ পূর্বাহ্ন

I don't care what consequences awaits her for the crime. How she and her bosses, the government will compensate the damage caused to my country? That's it.

Citizen
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১১:২৫ অপরাহ্ন

হে আনারকলি তুমি এই নাইজেরিয়ান কে দিয়েছ তোমার গোলাপ গোলাপের কলি

Anwar
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১১:১৬ অপরাহ্ন

অবাক হওয়ার কিছু নেই এটাই আজকের বাংলাদেশ।

সৈয়দ মুরাদ
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১১:১১ অপরাহ্ন

কঠোর শাস্তি চাই।

তারেক আহমেদ চৌধুরী
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১০:৩৬ অপরাহ্ন

আমাদের দেশেও তো মাদক আইনে মৃত্যুদণ্ডাদেশ আছে। আনারকলিকে শুধু চাকরি থেকে বরখাস্ত করে শাস্তি শেষ হবে নাকি মাদক আইনে বিচার হবে?

তারেক আহমেদ চৌধুরী
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১০:৩৩ অপরাহ্ন

কোন কিছুই শুনতে চাইনা। দেশের ইজ্জত লুণ্ঠনের দায়ে এই লুচ্চা মহিলার কঠোর শাস্তি চাই।

রুহুল আমিন
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১০:২৫ অপরাহ্ন

তার টোটাল পরিচয় প্রকাশ করা হোক।

Amirswapan
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১০:০১ অপরাহ্ন

You can stay in the power for a long time by taking power illegally, but in that case, the rulers indulged in various evils inside and outside of the country. ANARKOLI is not proof of that?

Iqbal Mirza
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৯:৩৯ অপরাহ্ন

অভিনন্দন আনারকলি

পারভেজ মাহমুদ
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৯:৩৮ অপরাহ্ন

She was married and has a daughter from her first marriage. I knew her husband too who was a decent guy. She never looked like a Foreign Service material. It is quite surprising how did she qualify for such prestigious service. MOFA's wait-and-see attitude towards her allowed the things to go that far. I will not be surprised if she is given another opportunity or posting in the near future.

Andalib
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৯:৩৩ অপরাহ্ন

নিয়োগের মাপকাঠি যদি তেল মারা আর ঘুষ হয় তাহলে মাদকের কারবার ঠিকই আছে

জামশেদ পাটোয়ারী
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৯:৩৩ অপরাহ্ন

এ ব্যাপারে তসলিমা নাসরিন কি বলবে?

মোকছেদ আলূ
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৯:৩২ অপরাহ্ন

শপথ ভঙ্গ করেছেন, চাকুরীবিধি লংঙ্গন করেছেন। মানব পাচারে অভিযুক্ত। এবার আর ওএসডি নামক দোষ চেপে যাওয়া নয়। সরাসরি বরখাস্ত করুন।

মোহাম্মদ হারুন আল রশ
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৯:২৯ অপরাহ্ন

ভাইরে মানুষকে দিয়েই তো দেশ। টপ লেভেলে যারা বসে আছে যারা আমজনতাদের শাসন করছে তাদেরই কতটুকু লাজলজ্জা, মানসম্মান আছে ? মানুষের জন্যই দেশ লজ্জিত হয় আবার মানুষের জন্যই দেশ গৌরবান্বিত হয়। আমাদের আগে ভালো মানুষ হওয়া বেশি জরুরী।

T U Khan
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৯:১৭ অপরাহ্ন

লিভিং টুগেদার সস্কৃতি ঝৌন ব্যাভিচার ছাড়া আর কিছুই নয়। ইসলামী শিক্ষার অভাবে এই অপ সস্কৃতি ছড়িয়ে পড়ছে। বস্তুবাদী ও নাস্তক্যবাদী শিক্ষা ব্যবস্থা এর জন্য দায়ী।দেশের সম্মানহানীর জন্য তার উপযুক্ত বিচার চাই। আর্থিক ও শারীরিক উভয় দন্ডে দন্ডিত করা হোক।

shahidul islam
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৯:১০ অপরাহ্ন

আমাদের সক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে,সক্ষমতা বৃদ্ধি প্রকাশে সহযোগীর ভুমিকা পালনের জন্য আমারকলি কে ধন্যবাদ।

রকিব
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৯:০৩ অপরাহ্ন

"তদন্তে তিনি দোষী সাব্যস্ত হলে যথোপযুক্ত আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে এমন আশ্বাস দিয়ে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, পররাষ্ট্র ক্যাডারের যে হাই স্ট্যান্ডার্ড, এটার সঙ্গে আমরা কখনোই কমপ্রোমাইজ করবো না। তদন্তে যদি সে (আনারকলি) দোষী সাব্যস্ত হয়, অবশ্যই তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে, এটুকু বলতে পারি।" অথচ ২০১৭'র লসএঞ্জেলস কান্ডে কোন ব্যবস্থা না নিয়ে ইন্দোনেশিয়ায় পদায়ন করা হয়। আর আনারকলিও সেখান থেকে তার নাইজিরিয়ান লিভ টুগেদার পার্টনারকে নিয়েই ইন্দোনেশিয়া আসেন। এটা একজন বাংলাদেশী কটনীতিকের জীবনাচার! ধিক ফরেন মিনিস্ট্রিকে এ ধরনের অনৈতিক ও বেআইনি জীবনা যাপনে সহায়তা করার জন্য। লসএঞ্জেলস ঘটনায় ব্যবস্থা নিলে এবং নজরদারির আওতায় আনা হলে আজকের এ অবস্থা হতো না।

আবু বকর
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৮:৪২ অপরাহ্ন

যতদুর জানি একজন উচ্চ পদে আসিন কুটনীতিক ৭/২৪ ঘন্টা যে দেশে তার কাজ সে দেশের সরকারের নিরাপত্তা রক্ষার দায়িত্য রত স্পেশাল বাহিনীর সার্ভিলেনসের আওতাধিন থাকেন এবং সেটা কূটনৈতিক প্রটোকলের মধ্যেই একধরনের নজরদারি বলা চলে অনেক সময় দেখানো হয় যে এটা শুধু নিরাপত্তা দেওয়া হচ্ছে আসলে মোটেও তা নয়।এ ব্যাপারে বন্ধু রাস্ট্রও একদেশের খবরাখবর অন্য রাস্ট্রকে জরুরীভাবে জানায়।যাকে ইনদোনেশিয়ায় গ্রেফতার করা হয়েছে তিনি কোনভাবেই দায়মুকতির আওতায় পড়েন না কারন একজন নাইজেরিয়ান ড্রাগ ডিলারের সাথে উনি দীর্ঘ দিন ধরে বাংলাদেশী মুসলমান নারী হয়ে এবং বিদেশি মিশনে উচচপদে থাকা অবস্তায় সমস্ত কূটনৈতিক রীতিনিতি ভংগ করে দিনের পর দিন দেশিও পাওয়ারফুল উচ্চ পদে আশিন দোষরদের মদদে ধরাকে সরা জ্ঞান করে লিভ টুগেদার করেছেন যা বাংলাদেশি মুসলিম সংসকিরিতির সংগে সাংঘরশিক বাংলাদেশের সুনাম খুন্ন করেছেন যা আজ আমেরিকার পত্র পত্রিকায়ও ছাপা হয়েছে এটাও আমাদের বিদেশে থেকে জানতে হলো ।ছি ছি পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের কর্ম কর্তাদের, আপনাদের বিছানা গরম করতে পারলেই আমেরিকাতে অনৈতিক কাজ করে বিতাড়িত হলেও তাকে পোস্টিং দিয়ে বিদেশে রাখতে হবে।এবং ইনদোনেশিয়ার হিজরা রাস্ট্রদূতকে অনতিবিলম্বে প্রত্যাহার করা হোক কারন উনার সাবঅরডিনেট কিভাবে দায়িতব্য পালন এবং অবৈধ বিদেশি নাগরিকের সংগে বাংলাদেশের সারথো বহির্ভূত গোপনিয়তা ভংগ করে সংবেদনশীল তথ্য বাইরে পাচার করছিলেন কিনা তা দেখার দায়িত্য ছিলো রাস্ট্রদুতের, উনি সেখানে চরমভাবে ব্যর্থ হয়েছেন।আর যতদূর জানি পররাষ্ট্র ক্যাডারের উচ্চপদে আশিনদের তাদের স্বামী অথবা পত্নীর সমস্ত তথ্য মন্ত্রনালয়ে জানাতে হয় এবং তারা অন্যকোনো পেশায় সহজে যেতে পারেন না সেখানে এত উচ্চপদে থেকে একজন মহিলা কি ভাবে বিদেশি নাগরিকের সংগে বিয়ে বহির্ভূত অনৈতিক সম্পর্কে একসাথে থাকেন এবং মাদকসহ ধরা পড়েন।আমার এ মতামত হয়তো মানবজমিন ছাপাবে না কিন্ত একজন নাগরিক হিসাবে আমার দেশের ভাবমূর্তি চরম লংঘনের পর জনগনের টেকস এর টাকায় বেতনভুক কর্মকর্তাদের এহেন নেক্কারজনক কান্ডে চুপ করতে না পেরে তিব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং এই কূটনীতিককে চাকরী থেকে অব্যাহতি দিয়ে শাস্তির আওতায় আনার দাবী জানাচ্ছি। জিয়া আহসান ডালাস টেকসাস ইউ এস এ ।

Mustafa Ahsan
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৭:০২ অপরাহ্ন

হতাশাজনক কাজ।

farah pordeshi
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৬:৫৬ অপরাহ্ন

ভাল মানুষ হওয়া বড় কথা।

farah pordeshi
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৬:৫৩ অপরাহ্ন

লস এন্জেলসের ঘটনার পর সরকারের আরো সতর্ক হওয়া দরকার ছিল। তার খুটির জোর শক্ত ছিল বলেই সে যাত্রায় লঘু শাস্তি হয়েছে। নাইজেরিয়ানদের ব্যক্তিগত পর্যায়ের বেপরোয়া মহিলারাই বেশী পছন্দ করেন। she is crazy.

জামশেদ পাটোয়ারী
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৫:৪৩ অপরাহ্ন

ছি, ছি, ছি। একজন কূটনীতিক, শেষ পর্যন্ত লিভটুগেদার, আবার সাথে মাদক। দেশের মানসম্মান ধুলায় মিশিয়ে দিলো।

মুহম্মদ নূরুল ইসলাম
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৪:৫৬ অপরাহ্ন

লিভিং টুগেদার সস্কৃতি ঝৌন ব্যাভিচার ছাড়া আর কিছুই নয়। ইসলামী শিক্ষার অভাবে এই অপ সস্কৃতি ছড়িয়ে পড়ছে। বস্তুবাদী ও নাস্তক্যবাদী শিক্ষা ব্যবস্থা এর জন্য দায়ী।

Dr. Mohammad Ziaul H
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৪:২৭ অপরাহ্ন

মুরুব্বিরা বলেন চরিত্র নাকি চেহেরাতেই লিখা থাকে। আহারে, কি সুন্দর ফুলের মত পরিত্র। মনে কয় নাইজেইরান হইয়া যাই।

ইয়াচিন
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ৪:০৩ অপরাহ্ন

"পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, পররাষ্ট্র ক্যাডারের যে হাই স্ট্যান্ডার্ড, এটার সঙ্গে আমরা কখনোই কমপ্রোমাইজ করবো না।" Your "high standard" is not good enough. This lady foreign ministry official was deported from the US. She would have been arrested if she did not have diplomatic immunity. She committed a crime on US soil and knowingly you sent her to Indonesia as diplomat. The failure is squarely falls on your shoulder, Mr. Minister. It's a shame.

Robin
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ২:৫৬ অপরাহ্ন

Block power

Ahmed
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১:৫৬ অপরাহ্ন

সর্বাগ্রে তাকে চিরস্থায়ী ভাবে বরখাস্ত করা হউক। একজন কূটনিতীক ভিন্ন দেশীর সঙ্গে লিভটুগেদার দেশের নিরাপত্তার জন্য ভয়ঙ্কর। মারিজুয়ানা আসক্ত হয়ে খৈ হারিয়ে দেশের গোপন তথ্য পাস করেছেন অবশ্যই। চরিত্র যাচাই বাছাই করে বিদেশের মিশনে লোক পাঠান । দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে ।

Kazi
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১:২৫ অপরাহ্ন

ওনার শিক্ষাজীবন,ছাত্র থাকাকা‌লিন কি কর‌তো,কিভা‌বে কা‌দের সহ‌যো‌গিতায় চাকু‌রি‌পেল এবং দুতাবাস এর দা‌য়িত্ব পেল এ সমস্ত বিষ‌য়ে অনুসন্ধা‌নিমুলক প্রতি‌বেদন দেখ‌তে চাই।কারন বিগত সম‌য়ে আমরা দে‌খে‌ছি কেউ অপরাধ কর‌লে তার অ‌ভিভাবক বা সহ‌যো‌গি‌দের ঢাক‌ঢোল পি‌টি‌য়ে আই‌নের আওতায় আনা হয় এবং জাতীয় মনমাধ‌্যমে ফলাও ক‌রে সংবাদ প্রচার করা হয় অপরা‌ধির প‌রিবার বা সহ‌যো‌গি‌দের নি‌য়ে।আমার ধারনা ওনার একমাত্র যোগ‌্যতা উ‌নি ছাত্রলীগ কর‌তো!!!ওনার কার‌নে পুর দে‌শের ই‌মেজ সংক‌টে ওনা‌কে কি ভা‌বে আত্নপক্ষ সমার্থনের সু‌যোগ দেয় ওনা‌কে আই‌নের মাধ‌্যমে আ‌গে মাদকাসক্ত নিরাময়‌কে‌ন্দ্রে চি‌কিৎসা করা‌নো উ‌চিত।

‌মোঃ আ‌মি
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১:২২ অপরাহ্ন

Black men are very demanding to women because of their size. Cleopatra use to like black slaves in her bed.

Nam-nai.
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১২:৪৬ অপরাহ্ন

মনে হচ্ছে ভালোই খুটির জোড় আছে এনার। প্রথম ঘটনার পর ব্যবস্থা নেয়া উচিত ছিল।

Moinul Alam
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১২:৪৫ অপরাহ্ন

কাজী আনাকলিকে তো দেখতেই লাগছে আফ্রীকান নারীর মত,তার জন্য নাইজেরিন বন্ধু ঠিক আছে,গুড় চয়েস!

কাজী
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১২:৩০ অপরাহ্ন

আমরা কামলা বিদেশে বসে দেশে রেমিটেন্স পাঠাই আর ওনারা আমলা বিদেশ আসে মাদক বিক্রি করতে হুন্ডি খারাপ না মাদক বিক্রি

rashed haider
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১২:২৩ অপরাহ্ন

She should be summarily dismissed, promptly flushed out of the country’s diplomatic service, and handed over to the competent law enforcement agency for further investigation into her alleged involvement in drugs ( as media reports). Bangladesh Foreign Ministry is partly responsible too for knowingly letting her share apartment with a foreign national. They have to come out clean on this. The Foreign Minister will abdicate his responsibility if he gives in to her possible “high-connections” and does not act forcefully.

P Khan
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১২:১৯ অপরাহ্ন

আনারকলি তুই শেষ পর্যন্ত কি না নাইজেরিয়ান সেলিম ধরলি!!!

shabbir Ahmed
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১১:৫৮ পূর্বাহ্ন

Shame Shame

Paplu
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১১:৫৫ পূর্বাহ্ন

what a tragedy ? it's a shame for the country & for Bangladeshi ladies. what a shit minded officer? how did she got the foreign service need to investigate this also.

xyz
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১১:৫১ পূর্বাহ্ন

দেশের সম্মানহানীর জন্য তার উপযুক্ত বিচার চাই। আর্থিক ও শারীরিক উভয় দন্ডে দন্ডিত করা হোক।

শহীদ
২ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১১:০২ পূর্বাহ্ন

প্রথম পাতা থেকে আরও পড়ুন

প্রথম পাতা থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status