ঢাকা, ২২ মে ২০২২, রবিবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২০ শাওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

কলকাতা কথকতা

করোনা অতিমারি, দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির সঙ্গে লড়াই করে মাথা উঁচু করে রেখেছে কলকাতার পাইস হোটেল

জয়ন্ত চক্রবর্তী, কলকাতা

(২ সপ্তাহ আগে) ১ মে ২০২২, রবিবার, ২:৪৯ অপরাহ্ন

ভাত চার পয়সা, রুই মাছের ঝোল আট পয়সা, পাঁঠার মাংস দশ পয়সা।  উনিশ শতকের গোড়ায় পাইস হোটেলের পত্তন হয় কলকাতায়। খাবারের হিসেব পয়সায় হত বলে হোটেলগুলির নামই হয়ে যায় পাইস হোটেল। সারা বছর মুটেমজুর, করণিক, ছাত্র, অফিসের বাবুদের খাইয়ে যাচ্ছে এই পাইস হোটেল। এখন আর পয়সায় হিসেব হয় না। তবু, সেই সাবেক নামটাই থেকে গেছে। অতিমারি কিংবা দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পাইস হোটেলের চলার পথকে রুদ্ধ করতে পারেনি। আজও কলকাতায় পঞ্চাশ - ষাট টাকায় মেলে ডাল - ভাত - সবজি - মাছ। জিনিসের দাম বেড়েছে পাইস হোটেল অদ্ভুত কায়দায় ভারসাম্য বজায় রেখেছে। উত্তর কলকাতার কৈলাশ বোস লেনের জগন্নাথ ভোজনালয়ে আজও পয়তাল্লিশ টাকায় মাছ ভাত মেলে

বিজ্ঞাপন
 এই পাইস হোটেলে আজও মুরগি কিংবা ডিম ঢোকে না। কলকাতার সেরা পাইস হোটেলগুলির মধ্যে অন্যতম এটি। একই নামের হোটেল কলেজ স্ট্রিটে। এই জগন্নাথ হোটেলে নিয়মিত খেতে আসতেন মহাস্বেতা দেবী ও মান্না দে। যেমন নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু নিয়মিত খেতে আসতেন। প্রেসিডেন্সি কলেজের পিছনে মন গোবিন্দ পান্ডার উনিশশো সাতাশ সালে প্রতিষ্ঠিত স্বাধীন ভারত হিন্দু হোটেলে।  মনগোবিন্দ এর উত্তরপুরুষ অংশুমান পান্ডা আজও এই হোটেল চালিয়ে যাচ্ছেন। নিউ মার্কেটের পিছনে সিদ্ধেশ্বরী আশ্রম। এখন চালান পরিবারের দুই পুত্রবধূ রীতা ও দেবযানী সেন। ট্রাডিশনাল এই পাইস হোটেলের নিয়মিত খদ্দের ছিলেন বাংলা সিনেমা দুনিয়ার দুই পুরুষ ছবি বিশ্বাস আর তুলসী চক্রবর্তী। অতিমারির কারণে খদ্দের কম বলে এঁদের কবিরাজি ঝোলটা বন্ধ রয়েছে। সিদ্ধেশ্বরীর ট্রেড মার্ক এই কবিরাজি ঝোল। আসলে ব্যাপারটা কিছু নয়, রুই মাছের সঙ্গে নানা ধরণের সবজি মিশিয়ে একটি ঝোল। উনিশশো তিরিশ সালে ইয়ং বেঙ্গলের প্রবক্তা ডিরোজিও এর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে খিদিরপুরে তারাপদ গুপ্ত স্থাপন করে ফেলেন ইয়ং বেঙ্গল হোটেল। তারাপদ বাবুর বংশধর পৃথা রায় বর্ধন এখন হোটেলটি চালান। অতিমারির সময় লস করলেও হোটেল বন্ধ করেননি পৃথা। এই পাইস হোটেল চালানোটা একটা আবেগ। এটায় একদম মজে গেছি।  

অনলাইনে ডিজিটাল অর্ডার এর যুগে পাইস হোটেলকে রীতিমতো লড়াই করতে হচ্ছে। তবু, কলকাতার বুকে অসংখ্য পাইস হোটেল থেকেই যাবে। কারণ এই হোটেলগুলি নিছক ব্যবসা নয়, হয়তো বা আরও বড় কিছু।

কলকাতা কথকতা থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com