ঢাকা, ১৬ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার, ১ ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৭ মহরম ১৪৪৪ হিঃ

কলকাতা কথকতা

দুই পূজার অস্বাভাবিক মৃত্যু, বাঁশদ্রোণীর পূজা মডেল, হারিদেবপুরের পূজা কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী

বিশেষ সংবাদদাতা, কলকাতা

(৪ সপ্তাহ আগে) ১৭ জুলাই ২০২২, রবিবার, ৪:০২ অপরাহ্ন

ঘটনাচক্রে দু’জনের নামই পূজা। একজন বাঁশদ্রোণীর বাসিন্দা পূজা সরকার। অন্যজন হারিদেবপুরের পূজা কুন্ডু।  নাড়ির যোগ দুজনের ছিল কিনা জানা নেই, কিন্তু দুজনের দেহ উদ্ধার হল  রবিবার কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে।  একজন আত্মঘাতী হয়েছে গলায় ফাঁস লাগিয়ে, অন্যজন মাত্রাতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ খেয়ে মৃত্যুকে ডেকে এনেছে। বাঁশদ্রোণীর পূজার বয়স ১৯। উত্তর চব্বিশ পরগণার গাইঘাটা থেকে গোবরডাঙ্গা কলেজের ছাত্রীটি কলকাতায় এসেছিলো মডেলিং এ নাম করবে বলে।  এক বান্ধবীর সঙ্গে বাঁশদ্রোণীর ভাড়া ফ্ল্যাটে থাকতো পূজা। রবিবার ভোররাতে এই বান্ধবী নাকি দেখতে পায় পূজার দেহ ঝুলছে। পুলিশে খবর যায়।

বিজ্ঞাপন
 পুলিশ এসে ডাক্তারের সার্টিফিকেট নিয়ে জানায় পূজা সরকারের দেহে প্রাণ নেই। ১৫মে থেকে ১৭ জুলাই এর মধ্যে উঠতি মডেল ও টেলি অভিনেত্রীদের এটি পঞ্চম আত্মহননের ঘটনা।  বত্রিশ দিনে পাঁচজন। আত্মহত্যা না খুন, পুলিশ কোনও সন্দেহই উড়িয়ে দিচ্ছে না। পূজা সরকারের বান্ধবীকে জেরা করা হচ্ছে। তাদের ফ্ল্যাট থেকে নাকি মাদক দ্রব্য পাওয়া গেছে। আত্মহত্যার প্ররোচনা, প্রণয় ঘটিত কারণ, উচ্চাকাঙ্খা আর তার পরিণতি না পাওয়া হতাশা কি এই আত্মঘাতী হওয়ার কারণ নাকি পূজা সরকারকে খুন করা হয়েছে, পুলিশ নিজেও ধন্ধে।

হরিদেবপুরের পূজা কুন্ডুর আত্মহননে অবশ্য এত জটিলতা নেই।  সরশুনা কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রীটি ঘরে খিল দিয়ে শুয়ে ছিল। সকালে এই পূজা দরজা আর খোলেনি। বাবা বিশ্বনাথ কুন্ডু সাইকেল নিয়ে কাজে যাওয়ার সময়ও মেয়ের ঘরের দরজা বন্ধ দেখে সন্দীহান হন। দরজা ভেঙে দেখা যায় পূজার নিস্পন্দ দেহ। মুখ দিয়ে গাঁজলা বের হচ্ছিল। বিদ্যাসাগর হাসপাতালে নিয়ে গেলে এই পূজা কুন্ডুকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। কিন্তু, কেন পূজার এই আত্মহনন? প্রেমে ব্যর্থতা , পড়াশোনার চাপ নাকি অন্য কোনও মনোমালিন্য? এই ঘটনারও মুলে পৌঁছাতে চাইছে পুলিশ।পুলিশের তদন্তে হয়তো সত্য উন্মোচিত হবে। কিন্তু, দুই পূজার কেউ আর ফিরবে না। পূজার ফুল ঝরে গেছে।

কলকাতা কথকতা থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

কলকাতা কথকতা থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status