ঢাকা, ১৫ জুলাই ২০২৪, সোমবার, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৮ মহরম ১৪৪৬ হিঃ

নির্বাচিত কলাম

সাম্প্রতিক

বার্সেলোনা বস হ্যান্সি ফ্লিকের দর্শন!

মাহবুব নাহিদ
১৬ জুন ২০২৪, রবিবারmzamin

ডুবতে বসা ক্লাব বার্সেলোনার ভাঙা তরীতে নতুন মাঝি হিসেবে এসেছেন জার্মান কোচ হ্যান্সি ফ্লিক। হ্যান্সি ফ্লিক ক্যারিয়ারের লম্বা সময় জার্মানির সহকারী কোচ ছিলেন। ছিলেন জার্মান ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখের কোচ, ছিলেন জার্মান জাতীয় দলের কোচ!

তার ক্যারিয়ারের পুরোটা সময় জুড়ে তিনি ছিলেন জার্মানির সঙ্গে জড়িত। বার্সেলোনার খেলার ধরনের সঙ্গে তার দর্শন পুরোপুরি অমিলের। বার্সেলোনার খেলার ধরন হচ্ছে ট্রেডিশনাল ট্যাঙ্গো পাসিং এবং বল পায়ে রেখে খেলা। কিন্তু ফ্লিকের খেলানোর দর্শনটা একটু ভিন্ন। তিনিও বল পায়ে রাখতে পছন্দ করেন কিন্তু বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই লং বলে খেলাতে পছন্দ করেন। তার টিমের খেলোয়াড়দের যেকোনো পজিশনে খেলার জন্য প্রস্তুত থাকতে হয়। তিনি কিমিখকে ডিফেন্স থেকে তুলে মিডফিল্ডে খেলিয়েছেন, ডেভিসকে উইঙ্গার থেকে ফুলব্যাক বানিয়েছেন, ডেভিড আলাবাকে ফুলব্যাক থেকে সেন্টার ব্যাক বানিয়েছেন

হ্যান্সি ফ্লিক তার দলকে ৪-২-৩-১ ফর্মেশনে খেলাতে পছন্দ করেন। আর তার দলে যে ধরনের খেলোয়াড় প্রয়োজন সেই খেলোয়াড় অনেক রয়েছে বার্সেলোনা দলে।

বিজ্ঞাপন
দুই সেন্টারব্যাক পজিশনে একজন লং খেলার যোগ্যতা থাকতে হবে আরেকজন ভার্টিকাল পাসিং। সেক্ষেত্রে পাউ কুবার্সি বা রোনাল্ড আরাউহো একজন জায়গা হারাতে পারেন, আর একটা জায়গা পেতে পারেন ক্রিস্টিয়েনসন। তবে যদি কোনো কারণে ডাবল পিভটে ক্রিস্টিয়েনসনকে খেলানোর পরিকল্পনা তিনি করে ফেলেন তাহলে পাউ কুবার্সি এবং আরাউহো দুইজন জায়গা পেতে পারেন, সেন্টার ব্যাক পজিশনে চলে আসতে পারেন জুলেস কুন্ডেও কুন্ডেকে সেন্টারব্যাকে খেলালে রাইটব্যাক পজিশনে জায়গা পোক্ত হবে ক্যান্সেলোর। তা না হলে ক্যান্সেলো এবং কুন্ডের মধ্যে একজন জায়গা পাবেন দলে। এক্ষেত্রে দলে জায়গা হারাবেন সার্জিও রবার্তো। লেফটব্যাক পজিশনে খেলার জন্য আছেন বালদে, তার ব্যাকাপ হিসেবে একজন খেলোয়াড় কিনতে হবে।

বায়ার্ন মিনিখের টিমে মিডফিল্ডে ডাবল পিভটে খেলতেন কিমিখ এবং গোরেটজকা। বার্সেলোনা ইতিমধ্যে কিমিখকে আনার জন্য চেষ্টা শুরু করেছে। যদি কিমিখ চলে আসে তাহলে কিমিখের সঙ্গে ডি ইয়ং যে জুটি গড়বে তা চোখ বন্ধ করে বলে দেয়া যায়। কিন্তু কিমিখকে না আনতে পারলে বার্সেলোনা হয়তো বায়ার লেভারকুসেন থেকে প্যালাসিওসকে আনার চেষ্টা করতে পারে। সেটাতেও সফল না হলে ডি ইয়ংয়ের সঙ্গে গাভির জুটি দেখা যেতে পারে, এমনকি ডি ইয়ংয়ের সঙ্গে গুন্দোগানকেও দেখলে অবাক হবো না, এমনকি ডাবল পিভটে দেখা যেতে পারে ক্রিস্টিয়েনসনকে। যদি ডাবল পিভটে গুন্দোগানকে খেলানো হয় তাহলে সেন্ট্রাল এটাকিং মিডফিল্ডার পজিশনে খেলতে পারেন পেদ্রি, তবে কিমিখ বা প্যালাসিওস আসলে সেন্ট্রাল এটাকিং মিডফিল্ডার পজিশনে খেলবেন গুন্দোগান, ব্যাকাপ হিসেবে থাকবেন পেদ্রি এবং ফারমিন লোপেজ। রাইট উইংয়ে ফ্লিকের হাতে দুইটি সুন্দর অপশন আছে। এই পজিশনে লামিন ইয়ামাল এবং রাফিনহা আছেন। কিন্তু লেফট উইংয়ে খেলার মতো খেলোয়াড় ফ্লিকের পছন্দসই হচ্ছে না বলেই মনে হচ্ছে। ফেলিক্স, তোরেস থাকলেও আমার মনে হচ্ছে ফ্লিক এই পজিশনে খেলোয়াড় কেনার চেষ্টা করবেন। আবার গাভি বা পেদ্রিকেও এই পজিশনে খেলানোর ঝুঁকি নিতে পারেন। আর যদি জাভির মতো রাফিনহাকে খেলানোর ঝুঁকি নেন কিনা সেটাও দেখার বিষয়, কারণ বার্সেলোনা ঠিকভাবে খেলোয়াড় কিনতে পারবে কিনা সেটা অনেক বড় ব্যাপার।
সেন্টার ফরোয়ার্ড পজিশন নিয়ে খুব একটা চাপ নেই ফ্লিকের। রবার্ট লেওয়ানডস্কির সঙ্গে তার দারুণ এক রসায়ন। ব্যাকাপ হিসেবে ভিক্টর রকেকেও রাখতে চাচ্ছেন ফ্লিক।

মোদ্দা কথা বার্সেলোনাকে একদম ঢেলে সাজাতে চাচ্ছেন ফ্লিক। নতুন কিছু খেলোয়াড় আনতে চাচ্ছেন। কিন্তু ফ্লিকের দর্শন ধরতে না পারার ঝুঁঁকিও ফেলে দেয়া যায় না।

কিন্তু রিয়াল মাদ্রিদ যেহেতু এমবাপ্পে আর এন্ড্রিককে এনে দল শক্তিশালী করেছে, বার্সেলোনা হয়তো সেই কাজটা ফ্লিকের মাধ্যমে করতে চাচ্ছে!

 

 

নির্বাচিত কলাম থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

নির্বাচিত কলাম সর্বাধিক পঠিত

সাম্প্রতিক প্রসঙ্গ/ তাসে কি তবে টোকা লেগেছে?

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status