ঢাকা, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, শুক্রবার, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৯ শাওয়াল ১৪৪৫ হিঃ

শরীর ও মন

ত্বকে মেহেদী ব্যবহারে সাবধানতা

ডা. জেসমীন আক্তার লীনা
২৯ মার্চ ২০২৪, শুক্রবার
mzamin

মেহেদী একটি অতি পরিচিত নাম। বাংলা সাহিত্য বা কবিতায় এর বহুমাত্রিক ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়। প্রকৃত অর্থে মেহেদী একটি রঙ। যা বাহ্যিক জীবনে অনেক উপকারে আসে। কেউবা মাথায় ব্যবহার করে আবার কেউ বা হাতে এবং আঙ্গুলে ব্যবহার করে। 
বিশেষ কোনো উপলক্ষে কেউ আবার ব্যবহার করে। প্রকৃত মেহেদী হলো প্রাকৃতিক মেহেদী। বর্তমানে বাজারে অনেক কোম্পানি মেহেদী পরিবেশন করে যা সৃষ্টিকর্তা প্রদত্ত প্রাকৃতিক নির্যাস থেকে তৈরি না হয়ে প্রস্তুত হয় বিভিন্ন  কেমিক্যালের সমন্বয়ে। এই  কেমিক্যাল সমন্বয়ই মানব জীবনে নিয়ে এসেছে এক বিরাট বিপর্যয়। আসছে ঈদ মেহেদী কোম্পানিগুলোর সাজ সাজ রব। 
বিশেষ করে বাচ্চাদের মেহেদী থেকে সামলানো খুব কঠিন। সখের এই মেহেদীর জন্য মাশুল দিতে হতে পারে মারাত্মক চর্মরোগে।

বিজ্ঞাপন
বহুজাতিক কোম্পানির বিভিন্ন কেমিক্যাল মেহেদীতে সংমিশ্রণের ফলে চর্ম রোগ হয়। মেহেদীতে প্যারাফিনাইলানিডিয়ামিন, প্যারাফিনাইলমার্কারিক নাইট্রেট, পটাসিয়াম 
ডাইক্রোমেট-এর মতো রাসায়নিক আকছারই এই ধরনের জিনিসে ব্যবহার করা হয়। যা অ্যালার্জি ও চর্মরোগের কারণ হয়ে উঠতে পারে। তাই সবার আগে দেখে নেয়া উচিত এই রাসায়নিক কারও পক্ষে ক্ষতিকর হতে পারে কি না। তারপরই মেহেদী পরা উচিত। যদিও স্থানীয় বহু মেহেদীর দোকানেই এর তেমন কোনো ব্যবস্থা নেই। সামনে ঈদ এই উৎসবে মেহেদী কি  ব্যবহার করবো না তা কিন্তু না। মেহেদী যেহেতু প্রকৃতি থেকে এসেছে তাই প্রকৃত পাতার মেহেদীই আমরা ব্যবহার করতে পারি। বিভিন্ন ব্র্যান্ড কোম্পানির মেহেদী ব্যবহার করতে চাইলে বুঝে-শুনে করবেন। পরিশেষে মেহেদী রাঙানো ঈদে  আপনি থাকুন সুস্থ ও সুন্দর।
লেখক: ডাক্তার
চেম্বার: অরোরা স্কিন অ্যান্ড এয়েসথেটিকস, পান্থপথ, ঢাকা
প্রয়োজনে: ০১৭২০-১২১৯৮২।

 

শরীর ও মন থেকে আরও পড়ুন

   

শরীর ও মন সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status