ঢাকা, ১৬ জুন ২০২৪, রবিবার, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৯ জিলহজ্জ ১৪৪৫ হিঃ

কলকাতা কথকতা

ইলিশ খাবেন বেশ ভাবনা-চিন্তা করে, কিন্তু কেন?

বিশেষ সংবাদদাতা, কলকাতা

(১ বছর আগে) ২৯ মে ২০২৩, সোমবার, ১০:৫৯ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১২:৩১ পূর্বাহ্ন

mzamin

ইলিশ পাতুরি, সর্ষে ইলিশ ভাপা কিংবা সর্ষে কালোজিরে আর কাঁচালঙ্কা দিয়ে ইলিশের কাঁচা ঝোল খেতে ভালোবাসে না এমন বাঙালি বোধহয় দুই বাংলা খুঁজেও মিলবে না। ইলিশ আবার বাংলাদেশের জাতীয় মাছ। পদ্মা-মেঘনার ইলিশ যে মুখে দিয়েছে তার তো স্বর্গলাভ! এপার বাংলায় গঙ্গার ইলিশও সেইরকম। এই ইলিশ সম্পর্কে সতর্কবার্তা জারি করলো ভারতের ফুড সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগ। তারা ১২০টি সামুদ্রিক মাছকে বিপজ্জনক তালিকাভুক্ত করেছে। তার মধ্যে ইলিশও আছে। তাদের বক্তব্য অনুযায়ী ইলিশের খাদ্যগুণ অপরিসীম। এর মধ্যে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড আছে যা মানুষের শরীরের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম এবং সোডিয়াম আছে ইলিশে যা শরীরের পক্ষে ভালো। প্রতি একশো গ্রাম ইলিশে প্রোটিন আছে ২১.৮ গ্রাম।

বিজ্ঞাপন
কিন্তু ইলিশে আছে হিষ্টিডিন নামের এক অ্যামিনো আসিড যা পেটে গেলে অ্যাজমা এবং এই জাতীয় রোগের সম্ভাবনা। ভারতের অ্যাজমা আসোসিয়েশন জানাচ্ছে যে এর ফলে শ্বাসকষ্ট, নাক দিয়ে জল পড়া, গায়ে গোটা বেরোনো এবং পেটে খিঁচ ধরতে পারে। তাই বলে কি ইলিশ খাওয়া নিষিদ্ধ? ফুড সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি জানাচ্ছে যে মোটেই তা নয়। একটা, দুটো ইলিশ খাওয়াই যেতে পারে। কিন্তু বর্ষাকালে ইলিশ দিয়ে ভূরিভোজ এবার মূলতবি থাক।   

কলকাতা কথকতা থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

কলকাতা কথকতা সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status