ঢাকা, ১৫ জুলাই ২০২৪, সোমবার, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৮ মহরম ১৪৪৬ হিঃ

বিশ্বজমিন

'সংখ্যালঘুদের সুরক্ষায় রাষ্ট্র ব্যর্থ', স্বীকার করলেন পাকিস্তানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী

মানবজমিন ডেস্ক

(২ সপ্তাহ আগে) ২৫ জুন ২০২৪, মঙ্গলবার, ১২:০৮ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১২:৪৯ অপরাহ্ন

mzamin

পাকিস্তান সরকার সংখ্যালঘুদের সুরক্ষায় ব্যর্থ হয়েছে। কারণ সংসদের নিম্নকক্ষ দেশের বিভিন্ন অংশে সাম্প্রতিক গণপিটুনির ঘটনার নিন্দা জানিয়ে একটি প্রস্তাব পাস করে। একথা স্বীকার করে নিলেন পাকিস্তানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী খোয়াজা আসিফ।  প্রতিরক্ষা মন্ত্রী বলেন, সংখ্যালঘুদের প্রতিদিন হত্যা করা হচ্ছে... পাকিস্তানে কোনো ধর্মীয় সংখ্যালঘু নিরাপদ নয়। এমনকি মুসলমানদের ছোট সম্প্রদায়ও নিরাপদ নয়। যদিও সংসদে আসিফের বক্তৃতার সময়ে সরকার বিরোধী পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ বা পিটিআই সদস্যরা স্লোগান দিতে থাকেন , যারা আসলে দেশে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে নতুন করে সামরিক অভিযান শুরু করার বিষয়ে সরকারের ঘোষণার  প্রতিবাদ জানাচ্ছিলেন। ডেপুটি স্পিকার গোলাম মুস্তফা শাহ বাজেট বিতর্ক থামিয়ে সংসদে নীতিগত বিবৃতি দেওয়ার জন্য মন্ত্রী খোয়াজা আসিফকে ডেকে নেন।

একটি গুরুত্বপূর্ণ এবং অত্যন্ত সংবেদনশীল বিষয়ে কথা বলতে চেয়ে  বিব্রতকর অবস্থার মধ্যে পড়ে  যান প্রতিরক্ষামন্ত্রী। পিটিআইয়ের এই সদস্যরা তার কথা শুনতে প্রস্তুত ছিলেন না। মন্ত্রী বলছিলেন যে তারা সংখ্যালঘুদের সমর্থনে পার্লামেন্টে একটি প্রস্তাব আনতে চেয়েছিলেন কারণ  এই দেশে মুসলমানদের সাথে সংখ্যালঘুদের সমান সাংবিধানিক অধিকার রয়েছে এবং এ বিষয়ে একটি জাতীয় ঐক্যমত হওয়া উচিত। খোয়াজা আসিফ বলেন, আমাদের সংবিধান সংখ্যালঘুদের সুরক্ষা প্রদান করে, কিন্তু কার্যত আমরা দেখছি সোয়াত, সারগোধা এবং ফয়সালাবাদে তাদের হত্যা করা হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
এটা গোটা দেশের জন্য  উদ্বেগ ও বিব্রতকর বিষয়। 

গত ২০ই জুন, শিয়ালকোটের একজন বাসিন্দাকে সোয়াতের মাদিয়ান থানার ভিতরে  জনতা পিটিয়ে হত্যা করেছিল। পবিত্র কোরআন- এর  অবমাননার অভিযোগে তাকে আটক করা হয়। ওই ব্যক্তিকে হত্যার পাশাপাশি  পুলিশ স্টেশন এবং একটি সরকারি গাড়িতে আগুন দেয় বিক্ষুব্ধ জনতা। খোয়াজা আসিফ বলেন, ইসলাম ধর্মের নামে মানুষ কাউকে হত্যার অনুমতি দেয়নি।  ব্লাসফেমির কারণে যারা নিহত হয়েছেন সেইসব অভিযুক্তের বিরুদ্ধে  অভিযোগ প্রমাণিত হয়নি বলে তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, 'মানুষ ব্যক্তিগত বিরোধের জন্য ধর্মীয় অনুভূতিকে কাজে লাগাচ্ছে। আমাদের সংখ্যালঘু ভাই-বোনদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

সংখ্যাগরিষ্ঠের মতো তাদেরও এদেশে বসবাসের অধিকার রয়েছে। পাকিস্তান সকল পাকিস্তানিদের, তারা মুসলিম, খ্রিষ্টান, শিখ বা অন্য যে কোন ধর্মের হোক না কেন তাদের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে।  আমরা বিশ্বকে  একটি বার্তা দিতে চাই যে জাতীয় পরিষদ এই ইস্যুতে ঐক্যবদ্ধ। যদিও পিটিআই সদস্যদের তীব্র প্রতিবাদের কারণে, সরকার প্রস্তাবটি উপস্থাপন করতে ব্যর্থ হয় এবং ডেপুটি স্পিকার মধ্যাহ্নভোজ এবং প্রার্থনার জন্য কার্যধারা স্থগিত করেন।

পরে, যখন হাউসের কার্যক্রম পুনরায় শুরু হয়, তখন আইনমন্ত্রী আজম নাজির তারার প্রস্তাবটি পাঠ করেন। বেঁচে থাকার অধিকার পাকিস্তানের সংবিধানে উল্লেখিত সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অধিকার। ফেডারেল ও প্রাদেশিক সরকারকে ধর্মীয় সংখ্যালঘু এবং সমাজের অন্যান্য দুর্বল অংশ সহ সকল নাগরিকের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

রেজ্যুলেশনের মাধ্যমে, ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি বিশেষভাবে ‘খাইবার পাখতুনখোয়া এবং পাঞ্জাবের প্রাদেশিক সরকারগুলিকে প্রাসঙ্গিক আইনের অধীনে এই ঘটনাগুলির সাথে জড়িতদের শনাক্ত, তদন্ত এবং বিচার করার জন্য অবিলম্বে এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আহ্বান জানিয়েছে।  

সূত্র : ডন
 

বিশ্বজমিন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status