ঢাকা, ১৯ জুন ২০২৪, বুধবার, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১২ জিলহজ্জ ১৪৪৫ হিঃ

বিশ্বজমিন

ইসরাইলি সেনা মুসলিমদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ পোড়াল, সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল

মানবজমিন ডেস্ক

(৩ সপ্তাহ আগে) ২৫ মে ২০২৪, শনিবার, ৩:৫৩ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১২:২৬ পূর্বাহ্ন

mzamin

গাজা উপত্যকায় অভিযান চালানোর সময় ইসরাইলি সেনারা মুসলিমদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ পুড়িয়েছে। এমন ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। ফলে তীব্র ক্ষোভ দেখা দিয়েছে মুসলিমদের মধ্যে। এর ফলে শুক্রবার ইসরাইল ডিফেন্স ফোর্সেস (আইডিএফ) জানিয়েছে, মিলিটারি পুলিশ এই ঘটনার তদন্ত করছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন টাইমস অব ইসরাইল। ইসরাইলি সেনারা শুধু মুসলিমদের ধর্মগ্রন্থ পুড়িয়েই ক্ষান্ত হয়নি। আরও বিভিন্ন বই পুড়িয়ে দিয়েছে। ওই ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, সেনারা কিভাবে এসব পবিত্র ধর্মগ্রন্থ ও অন্য বই পোড়াচ্ছে। প্রথমে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করা হয়। পরে তা নতুন করে পোস্ট করেন ফিলিস্তিনের বিভিন্ন একাউন্ট থেকে।

বিজ্ঞাপন
বলা হয়, ওই ভিডিও চিত্র ধারণ করেছে সেনারাই। 

একটি ভিডিও রাফা থেকে ধারণ করা হয়েছে বলে বলা হয়েছে। তাতে দেখা যায়, একজন সেনা সদস্য পবিত্র ধর্মীয় গ্রন্থ হাতে ধরে আছে। তারপরই সে তা আগুনে ছুড়ে মারে। গাজা সিটিতে অবস্থিত আল আকসা ইউনিভার্সিটি থেকে ধারণ করা হয়েছে অন্য একটি ছবি। তাতে দেখা যায়, সেখানে একটি বুকশেলফ জ্বলছে। তার সামনে দাঁড়িয়ে পোজ দিচ্ছে একজন ইসরাইলি সেনা। এ ঘটনার জবাবে আইডিএফের মুখপাত্র ইউনিট বলেছে, মিলিটারি পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। তাদের তদন্ত রিপোর্ট পর্যালোচনার জন্য জমা দেয়া হবে মিলিটারি এডভোকেট জেনারেলের কাছে। আইডিএফ বলেছে, এই ঘটনা আইডিএফের মূল্যবোধ ও প্রোটোকলের সঙ্গে মারাত্মক অসামঞ্জস্যপূর্ণ। বলা হয়, সব ধর্মের প্রতি সমানভাবে শ্রদ্ধাশীল আইডিএফ এবং এই ঘটনায় পুরোপুরি নিন্দা জানায় তারা। 

মুখপাত্র এডমিরাল ডানিয়েল হাগারি কয়েক মাস আগে সেনাদের নির্দেশ দিয়েছিল। বলেছিল, অপারেশনের সঙ্গে সম্পর্কিত না হলে সেনারা যেন তাদের ছবি না তোলেন। এমন কর্মকাণ্ড সামরিক কমান্ডের লঙ্ঘন। তা সত্ত্বেও ওই ছবি ও ভিডিও অনলাইনে প্রকাশ পেয়েছে। এ মাসের শুরুর দিকে একটি ভিডিও ক্লিপ ফাঁস হয়। তাতে দেখা যায় রাফা ক্রসিং দখল করার সময় ইসরাইলি বাহিনী ‘আই লাভ গাজা’ লেখা সাইনের ওপর দিয়ে ট্যাঙ্ক উঠিয়ে দেয়। এর আগে মার্চে আইডিএফ সেনাদের ছবি ও ভিডিওতে দেখা যায় গাজায় নারীদের অন্তর্বাস নিয়ে মস্করা করছে। সেই ছবি ও ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর ব্যাপক নিন্দার ঝড় ওঠে। ফেব্রুয়ারিতে আইডিএফের শীর্ষ আইনজীবী মেজর জেনারেল ইফাত তোমের-ইয়েরুশালমি সেনাদের সতর্ক করে নির্দেশ জারি করে। কিন্তু তা মানছে না সেনারা।

 

পাঠকের মতামত

কোন সম্প্রদায়ের ধ্বংস যখন অনিবার্য কারণে তখন তারা পাপে লিপ্ত হয় । এটাই তাদের ধ্বংস তড়ান্বিত করবে ।

Kazi
২৬ মে ২০২৪, রবিবার, ১০:৫২ পূর্বাহ্ন

এই ঘটনায় মুসলমানদের শরিলে লাগবে।মুনাফিকদের কিছু লাগবে না

kurshed
২৫ মে ২০২৪, শনিবার, ৬:০১ অপরাহ্ন

ওদের ধংস অনিবার্য ওরা এখন আল্লাহর গুজবের পূর্ণ হকদার। যে কোন সময় আল্লাহুই ওদের সমুচিত জবাব দিবেন ইনশাআল্লাহ। যেমনটি দিয়েছিলেন আদ ছামুদ ফেরাউন সম্প্রদায়কে।

নূর মোহাম্মদ এরফান
২৫ মে ২০২৪, শনিবার, ৪:৩৫ অপরাহ্ন

বিশ্বজমিন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত

প্রেমের টানে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফেনীতে/ পঞ্চাশোর্ধ নারী ধর্মান্তরিত হয়ে বিয়ে করলেন ২৫ বছরের যুবককে

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status