ঢাকা, ১৯ জুন ২০২৪, বুধবার, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১২ জিলহজ্জ ১৪৪৫ হিঃ

বিশ্বজমিন

অভিবাসী বিরোধী বিষোদগার ট্রাম্পের

মানবজমিন ডেস্ক

(৩ সপ্তাহ আগে) ২৪ মে ২০২৪, শুক্রবার, ১০:৪৮ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ৯:৪৩ অপরাহ্ন

mzamin

কোনো রকম তথ্যপ্রমাণ ছাড়াই অভিবাসীদের বিরুদ্ধে বিষোদগার করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেছেন, অভিবাসীরা বেআইনিভাবে সংগঠিত হচ্ছে মার্কিনিদের ওপর আক্রমণ করার জন্য। বৃহস্পতিবার তিনি বলেন- আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্য এবং অন্যসব স্থানের অভিবাসীরা এভাবে সংগঠিত হচ্ছে। আরও একবার তিনি অভিবাসীদের নিয়ে জ্বালাময়ী বক্তব্য রাখলেন।  এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

ট্রাম্প এমন বিতর্কিত মন্তব্য করার জন্য ব্যাপক সমালোচিত। ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পর তিনি কোনো তথ্যপ্রমাণ ছাড়াই অভিযোগ করেন, ভোট চুরি করা হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে তাকে পরাজিত করা হয়েছে। তিনি বৃহস্পতিবার নিউ ইয়র্ক সিটির সাউথ ব্রোঙ্কসে এক র‌্যালিতে বক্তব্য রাখছিলেন। ওই এলাকাটি মূলত হিস্প্যানিক এবং কৃষ্ণাঙ্গ অধ্যুষিত। সেখানে ট্রাম্প বলেন, চীন, কঙ্গো এবং অন্য দেশগুলোর অভিবাসীরা সহিংস হুমকি হয়ে উঠেছে।

বিজ্ঞাপন
কিন্তু কোনো গবেষণায় পাওয়া যায়নি যে অভিবাসীরা অপরাধে যুক্ত হচ্ছেন। 

সাউথ ব্রোঙ্কসের ক্রোটোনা পার্কে সমবেত হয়েছিলেন ট্রামের কয়েক হাজার সমর্থক। অভিবাসীদের দিকে ইঙ্গিত করে তিনি সেখানে বলেন, পুরুষদের প্রায় সবাই, যারা লড়াকু বয়সের, আমি মনে করি তারা সংগঠিত হচ্ছে। তারা এদেশের ভিতরে আমাদের ওপর নিয়ন্ত্রণ নিতে চায়। 

নির্বাচনী প্রচারণায় বার বার একই রকম অভিযোগ করে আসছেন ট্রাম্প। তিনি যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসীদের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মক ভাষা ব্যবহার করেছেন। অভিযোগ করেছেন তারা সহিংস অপরাধকে উস্কে দিচ্ছে। অভিবাসীদেরকে তিনিযুক্তরাষ্ট্রের ‘রক্তে বিষ’ মিশিয়ে দেয়ার জন্য দায়ী ‘এনিম্যাল’ হিসেবে আখ্যায়িত করেন। প্রমাণ হিসেবে তিনি বিক্ষিপ্ত কিছু অপরাধের বিষয়কে সামনে টেনে আনেন। ট্রাম্প বলেন, এসব মানুষকে আমরা আমাদের দেশে আসতে দিতে পারি না। আমাদের কাছ থেকে আমাদের শহরকে, আমাদের দেশকে নিয়ে নিতে দিতে পারি না। নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হতে পারলে তিনি ‘যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক অপরাধীকে দেশ থেকে বের করে দেয়ার’ অপারেশন চালানোর অঙ্গীকার করেন। মেক্সিকো-যুক্তরাষ্ট্র সীমান্ত দিয়ে যে অবৈধ অভিবাসী প্রবেশ করছে যুক্তরাষ্ট্রে, তা নিয়ে মন্তব্য করেন ট্রাম্প। তিনি মনে করেন, তাদের কারণে কৃষ্ণাঙ্গ ও হিস্প্যানিক ভোটারদের অর্থনৈতিক দুর্দশা হচ্ছে। তারা এসব মানুষের কাছ থেকে কর্মক্ষেত্রকে নিয়ে নিচ্ছে। 

আগামী ৫ই নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। এই নির্বাচনে রিপাবলিকান দল থেকে ডনাল্ড ট্রাম্পের মনোনয়ন একরকম নিশ্চিত। সব ঠিক থাকলে তিনি ডেমোক্রেট প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের মুখোমুখি হবেন। যদি তা-ই হয়, তাহলে এই নির্বাচনী লড়াই হবে কঠোর। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের জন্য হিস্প্যানিক ও কৃষ্ণাঙ্গদের ভোট দুর্বল করার চেষ্টা হিসেবে ট্রাম্প ব্রোঙ্কসের র‌্যালিতে বক্তব্য রাখেন। সেখানকার শতকরা প্রায় ৫৫ ভাগ মানুষই হিস্প্যানিক এবং এক তৃতীয়াংশ কৃষ্ণাঙ্গ। সাম্প্রতিক জরিপ বলছে, এই দুই শ্রেণির মধ্যে ট্রাম্পের গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ২০২০ সালে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বিজয়ী হওয়ার জন্য তাদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল। তারপরও ট্রাম্প নভেম্বরের নির্বাচনে সুইং স্টেটগুলোতে ভোটের ব্যবধান বাড়ানোর চেষ্টা করছেন।

 

পাঠকের মতামত

ট্রাম্প নিজেও তো ইমিগ্রান্টের ছেলে।

রাশিদ
২৪ মে ২০২৪, শুক্রবার, ৮:৫৮ অপরাহ্ন

বিশ্বজমিন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত

প্রেমের টানে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফেনীতে/ পঞ্চাশোর্ধ নারী ধর্মান্তরিত হয়ে বিয়ে করলেন ২৫ বছরের যুবককে

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status