ঢাকা, ৪ মার্চ ২০২৪, সোমবার, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ২২ শাবান ১৪৪৫ হিঃ

রাজনীতি

অসভ্যতার ঘৃণ্য নজির স্থাপন করেছে ছাত্রলীগ: ছাত্রশিবির

স্টাফ রিপোর্টার

(১ মাস আগে) ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, রবিবার, ৮:৪৫ অপরাহ্ন

mzamin

ছাত্রলীগ নেতা কর্তৃক জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) এক দম্পতিকে ডেকে এনে স্বামীকে আবাসিক হলে আটকে রেখে স্ত্রীকে ধর্ষণ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।  একইসঙ্গে অবিলম্বে ধর্ষণকারীদের সর্বোচ্চ সাজা নিশ্চিতের আহ্বান জানিয়েছে সংগঠনটি। রোববার গণমাধ্যমে দেয়া যৌথ বিবৃতিতে ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি মঞ্জুরুল ইসলাম ও সেক্রেটারি জেনারেল জাহিদুল ইসলাম এ আহ্বান জানান। বিবৃতিতে তারা বলেন, ফ্যাসিবাদী সরকার ও নতজানু প্রশাসনের সরাসরি মদদে লোমহর্ষক, নৃশংসতা ও অসভ্যতার সর্বোচ্চ ঘৃণ্য নজির স্থাপন করে চলেছে ছাত্রলীগ। তারই ধারাবাহিকতায় গত ৩রা ফেব্রুয়ারি রাতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের মীর মশাররফ হোসেন হলসংলগ্ন জঙ্গলে এই ঘৃণ্য কাজটি করে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক ও ৪৫তম ব্যাচের শিক্ষার্থী মোস্তাফিজুর রহমান। এ ঘটনার নিন্দা জানানোর মত কোনো সভ্য ভাষা আমাদের জানা নেই। একটি স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে এমন কলঙ্কজনক ঘটনা শিক্ষাঙ্গন ও ছাত্রসমাজের জন্য চরম অবমাননাকর।

তারা বলেন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ধর্ষণের সেঞ্চুরি পালন করে জাতির জন্য কলঙ্কজনক অধ্যায় রচনা করেছিল ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতা মানিক। ২০২০ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় সিলেট এমসি কলেজ প্রাঙ্গণে স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে জোরপূর্বক গণধর্ষণ করেছিল ছাত্রলীগের চিহ্নিত ৬ সন্ত্রাসী। কিন্তু কোন ঘটনারই দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হয়নি। প্রায় প্রতিদিনই দেশের নানা স্থানে ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগের দ্বারা ধর্ষণ, নির্যাতন, হয়রানির শিকার হচ্ছে নারীরা।

বিজ্ঞাপন
গত কয়েক বছরে ধর্ষণের নজিরবিহীন রেকর্ড হয়েছে বাংলাদেশে। সাথে সাথে রয়েছে ধর্ষণের পর হত্যা ও বীভৎসতা। 

বিবৃতিতে তারা বলেন, শিক্ষাঙ্গনে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের দায় বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ প্রশাসন কোনভাবেই এড়াতে পারেন না। সরকার ও প্রশাসনের প্রত্যক্ষ মদদেই শিক্ষাঙ্গনগুলোকে ধর্ষণ, সন্ত্রাস, মাদক ও অপকর্মের আস্তানায় পরিণত করেছে ছাত্রলীগ। 
তারা বলেন, ধর্ষণ যেন এক মহামারিতে পরিণত হয়েছে। দেশের বেশির ভাগ ধর্ষণ ও খুনের সাথে যে সরকার-দলীয় লোকজন জড়িত, তা বারবার গণমাধ্যমে উঠে এসেছে। কিন্তু কোনটিরই দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হয়নি। ফলে  স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ কোন জনপদেই যেন আজ নারীরা নিরাপদ নয়। সরকারের সরাসরি প্রশ্রয়ে দেশকে ধর্ষণের স্বর্গরাজ্যে পরিণত করেছে সন্ত্রাসীরা। যা গোটা জাতিকে আতঙ্কিত করে তুলেছে। শিশু, তরুণী, শিক্ষার্থী এবং তাদের অভিভাবকরা শঙ্কায় দিন যাপন করছে। এটা কোন সভ্য সমাজ বা দেশের চিত্র হতে পারে না।

তারা বলেন, সরকারের মদদে আওয়ামী সন্ত্রাসীদের ধারাবাহিক অপকর্মে জনগণ চরম ক্ষুব্ধ। দেশবাসী ও ছাত্রসমাজ সন্ত্রাসীদের কাছে তাদের মা-বোনদের সম্ভ্রমহানির এ ধারা কোনভাবেই মেনে নেবে না। সরকারের যদি বিচারহীনতা ও প্রশাসন অনৈতিক মদদ অব্যাহত রাখে তাহলে মোকাবেলা করতে ছাত্রসমাজ দেশবাসীকে সাথে নিয়ে অভিশপ্ত নরপশুদের মোকাবেলায় দৃঢ় সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হবে। আর তখন যে কোনো পরিস্থিতির জন্য সরকার ও প্রশাসনকে তার দায়ভার গ্রহণ করতে হবে। বাংলাদেশে ছাত্রলীগ নামক এই সংগঠনটিকে নিষিদ্ধ করা আজ গণদাবিতে পরিণত হয়েছে। অনতিবিলম্বে জড়িতদের শাস্তির আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া সহ দেশের সকল ক্যাম্পাস নিরাপদ করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2023
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status