ঢাকা, ২২ জুন ২০২৪, শনিবার, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ জিলহজ্জ ১৪৪৫ হিঃ

শরীর ও মন

সুখী দাম্পত্য জীবনের জন্য

অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আবদুল হাই
১৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩, শনিবার

এ পৃথিবীতে প্রতিটি মানুষেরই আলাদা কিছু বৈশিষ্ট্য থাকে। শক্তি-সামর্থ্য, চাহিদা বা আকাক্সক্ষার বিচারে প্রতিটি মানুষই ইউনিক। দাম্পত্য জীবনে ও মানুষের এই স্বতন্ত্রতা কাজ করে। অন্য দম্পতিদের সঙ্গে আপনার যৌন জীবনের মিল না ও থাকতে পারে। এরপরও মানুষ সব সময় অন্যের সঙ্গে নিজেকে তুলনা করতে চায়। এটা মোটেও বুদ্ধির পরিচায়ক নয়। 

অনেকেই চিকিৎসকের কাছে এসে প্রকাশ করেন যে, তারা সমবয়সীদের তুলনায় কম বার সেক্স করছেন, কিন্তু বৈজ্ঞানিক গবেষণার তথ্য-উপাত্ত এ ধরনের ভাবনাকে প্রায়ই ভুল প্রমাণ করে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ‘প্রতি সপ্তাহে দম্পতিরা কতোবার সেক্স করে থাকেন’- এ নিয়ে অনেকগুলো গবেষণা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে সাম্প্রতিক এক গবেষণায় প্রায় তিন হাজার দম্পতিদের মধ্যে এক বছরজুড়ে পরিচালিত একটি সমীক্ষায় নিম্নলিখিত তথ্যগুলো উঠে এসেছে:
* প্রতি সপ্তাহে একবার বা দু’বার যৌনমিলন করেছেন ৭%
** প্রতি সপ্তাহে একবারও সেক্স করেননি-১০%
*** প্রতি মাসে মাত্র দু’বার বা তিনবার সহবাস করেছেন-১৯%
**** প্রতি মাসে মাত্র একবার সেক্স করেছেন-১৭%
***** সপ্তাহে চার বা তার বেশি বার সেক্স করেছেন- ৫%
****** প্রতি সপ্তাহে দুই বা তিনবার সহবাস করেছেন-১৬%
******* সাপ্তাহিক সেক্স করেছেন-২৫%
উক্ত পরিসংখ্যানটি বিশ্লেষণ করলে বোঝা যাবে, ৪৬% দম্পতি সপ্তাহে একবারের কম সেক্স করেছেন। সপ্তাহে একাধিকবার সেক্স করেছেন মাত্র ২১% লোক। ২০১৯ সালে প্রকাশিত আরেকটি গবেষণায় দেখা গেছে যে, প্রায় ৪৭% বিবাহিত দম্পতি সপ্তাহে একবারেরও কম যৌনমিলন করেন।

বিজ্ঞাপন
অর্থাৎ আমেরিকান দম্পতিরা আগের তুলনায় বর্তমানে কম সেক্স করছেন।

পাঠকদের জন্য এ বিষয়ে কিছু গবেষণালব্ধ তথ্য:
* যৌনতার ফ্রিকোয়েন্সি সুখী বিবাহের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে জড়িত বলে মনে করা হয়। কিন্তু এটা সঠিক নয়। প্রায় ৩০ হাজার লোকের ওপর এক গবেষণায় দেখা যায় যে, বিবাহিত ব্যক্তিরা যারা সাপ্তাহিক বেশি যৌনমিলন করেন, তারা তাদের তুলনায় যারা কম সেক্স করেন, তাদের চেয়ে বেশি সুখী নন। 
* প্রতি মাসে বা সপ্তাহে কতোবার সেক্স স্বাভাবিক, এ প্রশ্নের কোনো নিখুঁত উত্তর নেই। বয়স, রুচি, পারস্পরিক বোঝাপড়া, স্ট্রেস ইত্যাদি কারণে ব্যক্তি ভেদে সেটা ভিন্ন হতে পারে। 
* আপনি যদি আপনার দাম্পত্য জীবনে যতবার সেক্স করেছেন, তাতে খুশি থাকেন, তাহলে সেটাই আপনার জন্য সঠিক পরিমাণে সেক্স। গবেষণা দেখায় যে, সপ্তাহে একবারের বেশি সেক্স ফ্রিকোয়েন্সি প্রয়োজন ছাড়া চাপিয়ে দিলে যৌনতার আকাক্সক্ষা এবং উপভোগ কমে যেতে পারে। এর মানে হলো যে, সেক্সের গুণগতমান, তার পরিমাণের মতোই গুরুত্বপূর্ণ।
যৌন ঘনিষ্ঠতার ফ্রিকোয়েন্সির চেয়ে জীবনে সন্তুষ্টি এবং পারস্পরিক সংযোগ বেশি গুরুত্বপূর্ণ। সুস্থতা, ইতিবাচক আবেগ এবং যৌনতার মধ্যে একটি শক্তিশালী সংযোগ রয়েছে।
পারস্পরিক শ্রদ্ধা যৌন তৃপ্তিতে একটি বিশাল অবদান রাখে। গবেষণায় উত্তরদাতারা জানিয়েছেন যে, তারা একটি উন্নত যৌন জীবনের জন্য নিম্নলিখিত বিষয়গুলো গুরুত্বপূর্ণ মনে করেন: 
১. সঙ্গীর সঙ্গে আরও গুণগত সময়।
২. আরও প্রেম এবং রোমান্স।
৩. কম মানসিক চাপ।
* স্ত্রীর সঙ্গে সবসময়ই খোলামেলা হওয়ার চেষ্টা করুন। কোনো কিছু গোপন না করে খোলামেলা আলোচনা করুন। সমীক্ষায় দেখা গেছে, খোলামেলা যোগাযোগ যৌনতার মধ্যে এক ধরনের পরিপূর্ণতা নিয়ে আসে। অনেকেই যৌনতার সময় আনন্দ পান না, কিন্তু সঙ্গীকে সুখী করার জন্য আনন্দের ভান করেন। পারস্পরিক বোঝাপড়া ভালো হলে নকল অঙ্গভঙ্গির প্রয়োজন হয় না। আপনি যত বেশি নকল তৃপ্তির ভান করবেন, আপনাদের পারস্পরিক বোঝাপড়া তত বেশি কমবে। এটি এই কারণে যে, আপনি ভেতরে ভেতরে বিব্রত বোধ করবেন এবং এ সম্পর্কে কথা না বলা বেছে নেবেন। পরোক্ষভাবে এটা যৌনতায় নেগেটিভভাবে প্রভাব ফেলে। 
* বিবাহিত জীবনে যৌনতার প্রয়োজন সবাই উপলব্ধি করলেও অনেকেই গুরুত্ব দেন না। বেশির ভাগ লোকের কাছে এক সময় যৌনতা করণীয় তালিকার নিচে চলে যায়। অনেকেই ভুলে যান, যৌনতা বিবাহিত জীবনের একটি বড় বন্ধন। আপনি যখন যৌন সম্পর্ক বন্ধ করে দেন, তখন আপনার সম্পর্ক বিচ্ছিন্নতা, রাগ, অবিশ্বাস এবং শেষ পর্যন্ত বিবাহবিচ্ছেদের দিকে চলে যেতে পারে।
তবুও দাম্পত্য জীবনে নানা কারণে যৌনতার অভাব দেখা দিতে পারে: যেমন- বয়স, প্রাকৃতিক লিবিডো মাত্রা, সঙ্গীর স্বাস্থ্যগত অবস্থা, সম্পর্কের সামগ্রিক গুণমান ইত্যাদি। 
* বিবাহিত জীবনে কতো ঘন ঘন সেক্স করা উচিত তা নির্ধারণ করার জন্য কোনো আদর্শ স্কেল নেই। বিবাহ অটুট রাখতে সপ্তাহে অন্তত একবার সহবাস করা আদর্শ। কিন্তু বছরে দশবারের কম যৌনমিলনই যৌনতাবিহীন বিবাহের যোগ্যতা অর্জনের যথেষ্ট কারণ। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে, এটি অসন্তুষ্টির কারণে বিবাহবিচ্ছেদের দিকে নিয়ে যেতে পারে।
* অবশ্যই মনে রাখতে হবে, যৌনতার অভাব সর্বদাই একটি ব্যর্থ বা অকার্যকর বিবাহকে বোঝায় না। যৌন ঘনিষ্ঠতা হলো, আপনি কীভাবে আপনার সঙ্গীর প্রতি আপনার ভালোবাসা এবং ইচ্ছা প্রকাশ করেন। 
* যৌনতার জন্য আপনার ইচ্ছা সবসময় আপনার সঙ্গীর সঙ্গে নাও মিলতে পারে। গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, প্রকৃত তৃপ্তির জন্য প্রতি সপ্তাহে কতোবার আপনাদের যৌনতা প্রয়োজন, তা নিয়ে আলোচনা করা। বিবাহের অন্যান্য ক্ষেত্রের মতো, যৌনতা এবং এর ফ্রিকোয়েন্সিতেও আপস প্রয়োজন। 
* সার কথা হলো, প্রায় সবগুলো গবেষণায়ই দেখা গেছে যে, একটি সাপ্তাহিক ফ্রিকোয়েন্সি অর্থাৎ সপ্তাহে একদিন সহবাসই আপনার বিবাহকে সুখী রাখার জন্য যথেষ্ট।

লেখক: (চর্ম, যৌন ও এলার্জি রোগ বিশেষজ্ঞ) জালালাবাদ রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। 
চেম্বার: ১২, স্টেডিয়াম মার্কেট, সিলেট। 
ফোন: ০১৭১২-২৯১৮৮৭
 

শরীর ও মন থেকে আরও পড়ুন

   

শরীর ও মন সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status