ঢাকা, ২৪ জুন ২০২৪, সোমবার, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৭ জিলহজ্জ ১৪৪৫ হিঃ

দেশ বিদেশ

জেডইউএমএস উচ্চ শিক্ষায় ভিন্নমাত্রার প্রয়াস

পিয়াস সরকার
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩, শুক্রবারmzamin

জেডএনআরএফ ইউনিভার্সিটি অব ম্যানেজমেন্ট সায়েন্সেস (জেডইউএমএস) বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের বিশ্বমানের শিক্ষা দেয়ার প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে। শিক্ষার্থীরা দেশি- বিদেশি অভিজ্ঞ ও পিএইচডি ডিগ্রি সম্পন্ন শিক্ষকমণ্ডলীর মাধ্যমে যুগোপযোগী শিক্ষার সুযোগ পাচ্ছেন। বিবিএ, ইংরেজি, অর্থনীতি, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং এবং ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট বিষয়ে স্নাতক ও এমবিএ প্রোগ্রাম চালু আছে। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের নিয়ম মেনে চলছে ছয় মাসের সেমিস্টার। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে তুলনামূলক কম খরচে পড়তে পারছেন শিক্ষার্থীরা। সেইসঙ্গে শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে শতভাগ বৃত্তিসহ বিভিন্ন পরিমাণে বৃত্তির ব্যবস্থা। রয়েছে ছাত্র- ছাত্রীর জন্য নিরাপদ আবাসন ব্যবস্থা। শিক্ষার্থীরা তৃতীয়বর্ষ থেকেই ইন্টার্নশিপ এবং ইন্ডাস্ট্রিয়াল ট্রেনিংয়ের মাধ্যমে পাচ্ছেন বাস্তবসম্মত জ্ঞানার্জনের সুযোগ। যোগাযোগ দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য নানা কার্যক্রমের পাশাপাশি বাধ্যতামূলকভাবে শিক্ষার্থীদের করতে হচ্ছে কমিউনিটি সার্ভিস। ক্যারিয়ার প্রিপারেশনের জন্য রয়েছে ক্যারিয়ার ওয়ার্কশপ, যেখানে ছাত্রছাত্রীরা তাদের কাঙ্ক্ষিত উদ্দেশ্যে পৌঁছাবার পথগুলো জানতে পারেন এবং শিখতে পারেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন পাবলিক সার্ভিস কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান একরাম আহমেদ, এডভাইজরি বোর্ডে রয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. মোহাম্মদ ফরাস উদ্দিন, ইংল্যান্ডের দ্য ফাইন্যান্সিয়াল টাইমস’র সাবেক আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মি. কুয়েন্টিন পিল, বাংলাদেশে ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের সাবেক কান্ট্রি ডিরেক্টর ড. ক্রিসটিন ওয়ালিখ, ম্যানচেস্টার ইউনির্ভাসিটির ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. রবার্ট স্ক্যাপেনস্‌সহ আরও অনেকেই।

বিশ্ববিদ্যালয়টির ভাইস চ্যান্সেলর ও প্রতিষ্ঠাতা ড. এম. জুবায়দুর রহমানের রয়েছে বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ার।

বিজ্ঞাপন
তিনি মাধ্যমিক স্তর থেকে শুরু করে জাতীয় সকল পরীক্ষায় মেধা তালিকায় শীর্ষস্থান অর্জন করেন। এরপর ১৯৭৮ সালে ইংল্যান্ডের ম্যানচেস্টার ইউনিভার্সিটিতে ফিন্যান্স বিষয়ে পিএইচডি গবেষণা শুরু করেন। ১৯৮২ সালে লাভ করেন পিএইচডি ডিগ্রি। ১৯৭৫ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে লেকচারার পদে শিক্ষকতা পেশায় যোগ দেন এবং ১৯৮৩ সালে সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে ফিন্যান্স বিভাগের বিভাগীয় প্রধান নিযুক্ত হন। ১৯৮৫ সালে তিনি স্টেট ইউনিভার্সিটি অব নিউ ইয়র্ক এর প্রফেসর পদে যোগদান করেন। শিক্ষকতা জীবনে তিনি বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিজিটিং প্রফেসর হিসেবে কাজ করেছেন যেমন- ইতালির ইউনির্ভাসিটি অব বোকোনি, রাশিয়ার মস্কো স্টেট ইউনিভার্সিটি এবং লেলিনগ্রাদ ইন্টারন্যশনাল ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউট। ড. জুবায়দুর রহমান ২০০০ সালে বিশ্বব্যাংকের সদর দপ্তর ওয়াশিংটনে একজন সিনিয়র প্রফেশনাল হিসেবে যোগদান করেন। তিনি ২০১৫ সাল অবধি বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলের পঞ্চাশোর্ধ দেশে শিক্ষা, গবেষণা, অর্থনৈতিক সংস্কার-রূপান্তর এবং প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ বৈশ্বিক দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯১ সালে জাতিসংঘের বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধি হিসেবে এবং পরবর্তীতে যুক্তরাষ্ট্রের একটি বৃহৎ প্রফেশনাল সার্ভিসেস ফার্মের পরিচালক হিসেবে তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নে অর্থনৈতিক সংস্কার ও বাজার অর্থনীতি প্রবর্তনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। তিনি ওয়াশিংটনে বিশ্বব্যাংকে কাজ করেছেন। সাংবাদিকতায়ও ছিল তার পদচারণা। তিনি ১৯৭২-৭৫ সালে দৈনিক পূর্বদেশ ও বাংলাদেশ টাইমস-এ সাংবাদিক হিসেবে কাজ করেছেন। আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে প্রফেসর জুবায়দুর রহমানের বহু গবেষণা ও প্রকাশনা রয়েছে।

তারই যোগ্য সহধর্মিণী নার্গিস রফিকা রহমান; তৎকালীন সময়ে নারী শিক্ষাই যেখানে প্রায় অসম্ভব ছিল সেখানে একজন মেধাবী এবং নারী সাংবাদিক হিসেবে তিনি কাজ করেছেন দৈনিক পূর্বদেশ পত্রিকায়। ২০১৬ সালে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের বিলাসবহুল জীবন ছেড়ে অর্জিত জীবনের সঞ্চয় এবং সকল স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি দান করে তৈরি করেছেন ‘জুবায়দুর অ্যান্ড নার্গিস রহমান ফাউন্ডেশন’। এই ফাউন্ডেশনের উদ্যোগেই প্রতিষ্ঠিত হয়েছে বিশ্বমানের শিক্ষাঙ্গন। তিনি বর্তমানে জেডএনআরএফ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

২০১৮ সালে শিক্ষা কার্যক্রমের অনুমতি পায় বিশ্ববিদ্যালয়টি। কোভিডের স্থবিরতা কাটিয়ে ২০২১ সাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়টি শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করে। বিশ্ববিদ্যালয়টির ক্যাম্পাস রাজধানীর মধ্য বাড্ডায় অবস্থিত। উচ্চ শিক্ষায় পরিবর্তনের অঙ্গীকার নিয়ে জাতীয় ও বৈশ্বিক কর্মবাজারের জন্য দক্ষ ও যোগ্য গ্র্যাজুয়েট তৈরির প্রতিশ্রুতি নিয়ে জেডইউএমএস উচ্চশিক্ষা ও গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা করছে। 
ড. জুবায়দুর রহমান বলেন, বাংলাদেশের আইনের মধ্যে আছে যে, শিক্ষানুরাগীরাই বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় উদ্যোগ নেবেন। অনেক ক্ষেত্রেই তা হয়নি। তাই একটু ভিন্নতা নিয়ে আমরা লক্ষ্য স্থির করেছি এবং শিক্ষার্থীদের শুধু সার্টিফিকেটে না, মানসম্মত শিক্ষাও নিশ্চিত করার চেষ্টা করছি। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা শ্রম বাজারের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে পারবে।

বিশ্ববিদ্যালয়টির ট্রাস্টি বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান নার্গিস রহমান বলেন, আমরা বিদেশে থেকে চিন্তা করেছি দেশের মানুষের জন্য কিছু ফেরত দিতে হবে। এইজন্য আমরা নৈতিক দায়িত্ব থেকেই এই কাজে হাত দিয়েছি।

এই দম্পতি বলেন, আমরা শিক্ষার্থীদের নিজ সন্তানের চোখে দেখি। আমরা চাই তারা প্রতিষ্ঠিত হোক। সারা জীবনের সঞ্চিত সম্পদ দিয়ে যদি দেশের জন্য সামান্য অবদান রাখতে পারি- তাহলে আমরা নিজেদের ধন্য মনে করবো।

দেশ বিদেশ থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

দেশ বিদেশ সর্বাধিক পঠিত

১০

মৌলভীবাজারে জাতীয় পার্টির সম্মেলন সম্পন্ন / ‘আমরা আওয়ামী লীগে নেই, বিএনপিতেও নেই

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status