ঢাকা, ২৮ মে ২০২২, শনিবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

রকমারি

ক্রমশ বিলীন হয়ে যাচ্ছে প্লুটো

মানবজমিন ডিজিটাল

(১ মাস আগে) ১৯ এপ্রিল ২০২২, মঙ্গলবার, ১০:৫৮ পূর্বাহ্ন

একটি গ্রহ হিসাবে ইতিমধ্যেই নিজের মর্যাদা হারিয়েছে সে, এবার একটি নতুন সমস্যার মুখোমুখি প্লুটো। জানা যাচ্ছে প্লুটোকে ঘিরে থাকা বায়ুমণ্ডল ক্রমশ বিলীন হয়ে যাচ্ছে। পৃথিবী থেকে ৪.৮ বিলিয়ন কিলোমিটার দূরে রয়েছে বরফাবৃত এই গ্রহাণুটি। বিজ্ঞানীরা দেখতে পেয়েছেন, সূর্য থেকে এটি ক্রমশ দূরে সরে যাচ্ছে। প্লুটোর বায়ুমণ্ডল ক্রমাগত পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। প্লুটোর পাতলা বায়ুমণ্ডল অধ্যয়নের জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং মেক্সিকোর একাধিক স্থান থেকে টেলিস্কোপের মাধ্যমে প্লুটোকে পর্যবেক্ষণ করেছেন বিজ্ঞানীরা, জানাচ্ছে স্পেস ডট কম । প্লুটোর বায়ুস্তর সাধারণত তৈরী নাইট্রোজেন দিয়ে। সাউথ-ওয়েস্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানীরা এই গবেষণা করেন।

 

২০১৮ সাল নাগাদ প্লুটো নিয়ে চর্চা শুরু করেন তাঁরা। তাঁরা জানান, সূর্য থেকে প্লুটোর দূরে সরে যাওয়ার সঙ্গেই যোগ আছে প্লুটোর বায়ুমণ্ডলের ঘনত্ব কমে যাওয়াও। সূর্য থেকে দূরে সরে যাওয়ার দরুন এটি ক্রমশ শীতল থেকে শীতলতর হয়ে যাচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞানীরা বলেছেন যে তাপীয় জড়তা নামে পরিচিত একটি ঘটনার কারণে এর পৃষ্ঠের চাপ এবং বায়ুমণ্ডলীয় ঘনত্ব ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই রিপোর্ট থেকে আরো একটি বিষয় জানা গেছে, এতদিন প্লুটোর পৃষ্ঠের নাইট্রোজেন বরফের আধারগুলি পৃষ্ঠের নীচে সঞ্চিত তাপ দ্বারা উষ্ণ ছিল। নতুন তথ্য বলছে, তারা ঠান্ডা হতে শুরু করেছে, বলেছেন বিজ্ঞানী ড. লেসলি ইয়াং৷ পৃথিবীর মতোই প্লুটোর বায়ুমণ্ডলও তার পৃষ্ঠদেশে সঞ্চিত বরফের বাষ্প চাপের দ্বারা সমর্থিত। এর অর্থ হল সারফেস আইস টেম্পারেচারে সামান্যতম পরিবর্তনও বায়ুমণ্ডলের ঘনত্বে বড়সড় প্রভাব ফেলতে পারে। উল্লেখ্য, সূর্যের চারদিকে কক্ষপথে একবার প্রদক্ষিণ করতে প্লুটোর সময় লাগে ২৪৮ আর্থ ইয়ার (পৃথিবীর বছর)।

সূত্র : হিন্দুস্থান টাইমস

রকমারি থেকে আরও পড়ুন

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com