ঢাকা, ৪ মার্চ ২০২৪, সোমবার, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ২২ শাবান ১৪৪৫ হিঃ

রাজনীতি

‘ডামি সরকারের’ বিরুদ্ধে ‘ডামি আন্দোলন’ করে পতন ঘটানো যাবে না: রাশেদ খাঁন

স্টাফ রিপোর্টার

(৩ সপ্তাহ আগে) ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, রবিবার, ৭:১১ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১১:৫৫ পূর্বাহ্ন

mzamin

ডামি সরকারের বিরুদ্ধে ডামি আন্দোলন করে পতন ঘটানো যাবে না বলে মন্তব্য করেছেন গণঅধিকার পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মো. রাশেদ খাঁন। তিনি বলেছেন, সরকারের বিরুদ্ধে আমাদের শক্ত আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। নির্বাচনের আগে রাজনৈতিক দলগুলো ঐক্যবদ্ধ হয়ে রাজপথে নামতে পারেনি, এটার দায় আমাদের সবার। জনগণ ঐক্যবদ্ধভাবে ডামি নির্বাচন বয়কট করেছে। সুতরাং এখন রাজনৈতিক দলগুলোকে সমস্ত ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ১৯৯০ সালে সমস্ত রাজনৈতিক দল যুগপৎ আন্দোলন করেছে। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ-জামায়াত-জাতীয় পার্টি যুগপৎ আন্দোলন করে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি আদায় করেছে। কিন্তু নির্বাচনের আগে দলগুলোর মধ্যে মতপার্থক্য দলগুলোকে এককাতারে আনতে পারেনি। এখনো পর্যন্ত যদি আমরা বিভেদ ভুলে রাজপথে একতাবদ্ধ হয়ে নামতে না পারি, তাহলে যুগের পর যুগ এই ফ্যাসিবাদ সরকার ক্ষমতায় থেকে যাবে। এবং রাজনৈতিক দলগুলোর  এই ব্যর্থতার জন্য জনগণকে ভুক্তভোগী হতে হবে,  জনগণ যার জন্য দলগুলোর কাছে জবাবদিহিতা চাইতে পারে।

বিজ্ঞাপন
সুতরাং দেশের জনগণের মুক্তি ও ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠায় আসুন ঐক্যবদ্ধ প্লাটফর্ম গড়ে তুলি। রোববার বিকাল ৪টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে এসব কথা বলেন তিনি। বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ এর কেন্দ্রীয় সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লাসহ আটক সকল রাজবন্দির নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ, তিতুমীর কলেজ শাখা।  

রাশেদ খান বলেন,  সরকার সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে ভারতের নির্দেশনায় গৃহবন্দি করে রেখেছে। কারণ বেগম খালেদা জিয়া ভারতের সঙ্গে আওয়ামী লীগের তাঁবেদারি সম্পর্ক নিয়ে বক্তব্য দিয়েছিলেন, ওদের হাতে গোলামির জিঞ্জির, আর আমাদের হাতে স্বাধীনতার পতাকা। তিনি বলেন,  ছাত্র অধিকার পরিষদের সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লাকে ৬ মাস ধরে কনডেম সেলে আটকে রেখে নির্যাতন করা হচ্ছে। কারণ সে ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে ছাত্র ঐক্যের আহ্বান করেছিলো। আজকে বাংলাদেশের নির্বাচন থেকে শুরু করে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নিয়োগেও হস্তক্ষেপ করছে ভারত। ভারতীয় আগ্রাসন দেশের জনগণ মেনে নিচ্ছে না। যেকারণে বাংলাদেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষার আন্দোলন শুরু হয়েছে। গণঅধিকার পরিষদ তার সক্ষমতা অনুযায়ী গত ২৮শে অক্টোবর থেকে ধারাবাহিকভাবে রাজপথে আন্দোলন করে যাচ্ছে। কোটা সংস্কার আন্দোলনের সময় আমরা জাতিকে কথা দিয়েছিলাম, আন্দোলন সফল না হলে ঘরে ফিরে যাবো না। ঠিক এখন বলছি, ফ্যাসিবাদ বিরোধী আন্দোলন সফল না হওয়ার আগ পর্যন্ত আমরা রাজপথে আছি। আপনারা রাজপথে নামুন, অবশ্যই এই আন্দোলন সফল হবে এবং জনগণের মুক্তি মিলবে। তবে এর জন্য রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে জনগণকে নামতে হবে। জনগণের অংশগ্রহণ ছাড়া পৃথিবীর ইতিহাসে কোন আন্দোলন সফল হয়নি।

ছাত্র অধিকার পরিষদের তিতুমীর কলেজ শাখার সভাপতি আফতাব মাহমুদের সভাপতিত্বে  ও সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমানের সঞ্চালনায় গণঅধিকার পরিষদের উচ্চতর পরিষদের সদস্য আবু হানিফ, গণঅধিকার পরিষদের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাসান আল মামুন, ছাত্র অধিকার পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তারিকুল ইসলাম, গণঅধিকার পরিষদের ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক তোফাজ্জাল হোসেন, ঢাকা মহানগর উত্তরের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইমরান, ছাত্র অধিকার পরিষদের সহ সভাপতি সাব্বির হোসেন, নেওয়াজ খান বাপ্পী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের আলম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক সম্রাট প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
 

পাঠকের মতামত

একটি ছোট দলের দামী কথা।

A R Sarker
১১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, রবিবার, ৬:১৬ পূর্বাহ্ন

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2023
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status