ঢাকা, ১৬ জুন ২০২৪, রবিবার, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৯ জিলহজ্জ ১৪৪৫ হিঃ

তথ্য প্রযুক্তি

টিআরএনবির কর্মশালায় তথ্য

দেশি ক্লাউডকে বিদেশ থেকে আক্রমণ করা সম্ভব নয়

স্টাফ রিপোর্টার

(৯ মাস আগে) ২১ আগস্ট ২০২৩, সোমবার, ৬:৩৯ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ৬:৫২ অপরাহ্ন

mzamin

ইন্টারনেট ছাড়াই সারা দেশে ক্লাউড সেবা দেয়া সম্ভব। আর দেশীয় ক্লাউড ব্যবহারের মাধ্যমে ডলার সাশ্রয়ের অপার সম্ভাবনার কথা জানালেন ক্লাউড নিয়ে কাজ করা প্রতিষ্ঠান ওপেনস্ট্যাক বাংলাদেশের কান্ট্রি অর্গানাইজার মোবারক হোসাইন। আজ সোমবার সকালে টেলিকম অ্যান্ড টেকনোলজি রিপোর্টার্স নেটওয়ার্ক বাংলাদেশ (টিআরএনবি)-এর উদ্যোগে আয়োজিত ক্লাউড কম্পিউটিং বিষয়ক এক কর্মশালায় এ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। এতে বাংলাদেশে ক্লাউড কম্পিউটিং-এর প্রয়োজনীয়তা, তথ্যের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে ক্লাউডের ভূমিকা, ইন্টারনেটের সেবা ও মান উন্নয়নের লক্ষ্যে বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত উপস্থাপন করা হয়। এতে অংশ নেন দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে কর্মরত টেলিকমিউনিকেশন বিষয়ক সংবাদকর্মীরা। মানুষ একই তথ্য নিয়ে কাজ করার প্রয়োজনে বাসা, কর্মক্ষেত্র ও যাতায়াতের সময় পথে তিনটি ভিন্ন ডিভাইস ব্যবহার করছেন। ভিন্ন তিন ডিভাইসে এসব তথ্য রাখার বদলে ক্লাউডে রাখলে কম ঝামেলা পোহাতে হয়। ক্লাউডের মতো একটি অভিন্ন ক্ষেত্রে এসব তথ্য রাখা থাকলে যে কোনো জায়গা থেকেই এসব তথ্য ব্যবহার সহজ ও নিরাপদ হয়। এতে মূল্যবান শক্তিশালী ডিভাইস ও সফটওয়্যার না হলেও চলে। পাশাপাশি প্রয়োজন অনুসারে জায়গা বাড়িয়ে বা কমিয়ে কাজ চালিয়ে নেয়া সম্ভব।

বিজ্ঞাপন
এতে একই সঙ্গে বিপুল পরিমান স্টোরেজ কেনার প্রয়োজন নেই। 

এখন আর বিদেশি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে চড়া দামে এই সেবা কিনতে হবে না। ওপেনসোর্স সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান ওপেনস্ট্যাক ক্লাউড-এর মাধ্যমে দেশেই এই সেবা পাওয়া যাচ্ছে অবিশ্বাস্য সাশ্রয়ী দামে। মোবারক হোসাইন বলেন, অন্য প্রতিষ্ঠানগুলো যেখানে ১ গিগাবাইট ডেটার জন্য নিচ্ছে ১৮ থেকে ২৮ টাকা, সেখানে এ ক্লাউড প্লানেট নিচ্ছে মাত্র ৮ টাকা। আর এর সার্ভারগুলো দেশে থাকায় বিদেশের হ্যাকারদের কাছ থেকে নিরাপদে রাখা যাচ্ছে। ওপেনস্ট্যাক পৃথিবীর প্রথম সারির পাঁচটি ওপেন সোর্স প্রকল্পের মধ্যে সর্ববৃহৎ। দেশভিত্তিক প্রযুক্তি উন্নয়ন এবং তথ্য সংগ্রহের প্রয়োজনীয়তার কথা ভেবে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ নিজ অঞ্চলেই তাদের নিজস্ব ডেটা সংরক্ষণ করছে এবং দেশীয় প্রযুক্তি ব্যবহার করছে। এই লক্ষ্যকে সামনে রেখে চীন, রাশিয়া, জার্মানী, ইংল্যান্ড, ফ্রান্স, জাপানের মতো দেশ এই প্রযুক্তি ব্যবহারে জোর দিচ্ছে।

চীনের এনার্জি সেক্টর এসএসজি, মোবাইল টেলিকম অপারেটর চায়না টেলিকম এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠান ইউনিয়ন পে, যুক্তরাজ্য সরকার, যুক্তরাষ্ট্রের ইউএস আর্মি সার্ভার স্কুল, বিশ্বখ্যাত আর্থিক প্রতিষ্ঠান কমনওয়েলথ ব্যাংক, রিটেল শপ ওয়ালমার্ট, জার্মানির গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বক্সসহ বহু প্রতিষ্ঠান এই সার্ভার বিশ্বব্যাপী ব্যবহার করছে। কর্মশালায় জানানো হয়, বাংলাদেশেও নিজেদের ক্লাউড তৈরি করে ব্যবহার করা সম্ভব। এ কাজে দেশীয় প্রতিষ্ঠান এ ক্লাউড প্লানেট তাদের চারটি ডেটা সেন্টার স্থাপন করেছে ঢাকা, কুমিল্লা এবং চট্টগ্রামে। সেখানেও ব্যবহার করা হয়েছে ওপেনস্টেক ক্লাউড। গত পাঁচ বছরে তারা প্রায় ১০ লাখ মানষুকে সেবা দিয়ে আসছে। কর্মশালায় বক্তারা তুলে ধরেন, কীভাবে এই দেশীয় ক্লাউড ব্যবহার করে ডলার সাশ্রয় করা সম্ভব। কারণ দেশীয় ক্লাউড ব্যবহারে বিদেশী সফটওয়্যার বা সেসবের নিরাপত্তার জন্য বাড়তি কোনো সেবার প্রয়োজন নেই।

 দেশীয় ক্লাউডের নিরাপত্তা প্রসঙ্গে মোবারক হোসাইন বলেন, আমাদের এই দেশি ক্লাউড স্থানীয় ইন্টারনেট এক্সচেঞ্জের মাধ্যমে সংযুক্ত বলে বিদেশ থেকে আক্রমণ করা সম্ভব নয়। দেশের ভেতর থেকে কোনো আক্রমণ হলে সেটি তাৎক্ষনিকভাবে প্রতিহত করা ও দেশীয় আইনে দ্রুত বিচারের আওতায় আনা সম্ভব। তাই দেশীয় এ ক্লাউড সেবাকে বলা হচ্ছে শতভাগ নিরাপদ। এ ছাড়া বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা অনুসারে ব্যাংকের সার্ভার দেশের অভ্যন্তরে রাখা বাধ্যতামূলক। একইভাবে এনআইডি, টিকিটিংয়ের মতো সেবার সার্ভারগুলো নিরাপত্তার স্বার্থে দেশের অভ্যন্তরে রাখাও যৌক্তিক। এ ছাড়া স্থানীয় সার্ভারে তথ্য রাখা গেলে সেসব তথ্য নিয়ে কাজ করার জন্য ইন্টারনেটের প্রয়োজন হবে না। এতে গ্রাহকপর্যায়ে খরচ অনেক কমে যাবে।

কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য দেন টেলিকম অ্যান্ড টেকনোলজি রিপোর্টার্স নেটওয়ার্ক বাংলাদেশ (টিআরএনবি)-এর সেক্রেটারি মাসুদুজ্জামান রবিন। কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী সাংবাদিকদের হাতে সনদ তুলে দেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। একুশে আগস্টের গ্রেনেড হামলার ঘটনা স্মরণ করে ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, এ রকম একটি ঘটনা জাতির জন্য লজ্জাজনক। ক্লাউড কম্পিউটিংয়ের গুরুত্ব প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ডেটা আমাদের ব্যবহার করতেই হবে। এটি আমাদের সম্পদ, সুতরাং এটি যেখানে রাখতে হবে সেই জায়গাটি হতে হবে নিরাপদ। বাংলাদেশে এক সময় ক্লাউড বলতে কোনো ধারণা ছিল না। এখন সবকিছু ডিজিটাল হয়ে গেছে, এখন ক্লাউডের কোনো বিকল্প নেই। সাংবাদিকদের এসব বিষয়ে জ্ঞান থাকা জরুরি। তাদের জন্য এ রকম একটি কর্মশালা অত্যন্ত জরুরি।

তথ্য প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

তথ্য প্রযুক্তি সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status