ঢাকা, ২৮ নভেম্বর ২০২২, সোমবার, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিঃ

অনলাইন

ক্ষিপ্ত হয়ে খেলার ট্রফি ভাঙলেন ইউএনও!

অনলাইন ডেস্ক

(২ মাস আগে) ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, শনিবার, ১২:০০ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ৩:০১ অপরাহ্ন

ফুটবল মাঠে অতিথিদের মঞ্চে ক্ষিপ্ত হয়ে খেলার ট্রপি ভেঙে ফেলেন বান্দরবানের আলীকদম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মেহেরুবা ইসলাম। এমন একটি একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পড়েছে। ঘটনাটি ঘটে শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) ২ নম্বর চৈক্ষং ইউনিয়নের রেপারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে।  

জানা যায়, শুক্রবার ওই মাঠে আবাসিক স্বাধীন যুব সমাজের উদ্যোগে জুনিয়র একাদশ বনাম রেপারপাড়া বাজার একাদশ ফুটবল টিমের ফাইনাল খেলায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ইউএনও মেহেরুবা ইসলাম। পরে খেলার সমাপনী বক্তব্যের সময় হঠাৎ ক্ষিপ্ত হয়ে উপস্থিত মানুষের সামনে ট্রফি ভেঙে ফেলেন তিনি।

এদিকে এ ঘটনার একটি ভিডিও শুক্রবার রাতেই ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পড়ে। এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়। এ সময় ইউএনওর এমন আচরণের ঘটনায় তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান স্থানীয়রা।

আলীকদম উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম জানান, শুক্রবার ফুটবল খেলায় টাইব্রেকারে একটা দলকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। এ সময় খেলায় অংশগ্রহণকারীরা বলেছিলেন, টাইব্রেকারের মধ্যে ত্রুটি আছে, আমরা আবারও খেলাটা চাই। তখন ইউএনও বক্তব্য করছিলেন। বক্তব্যের সময় ইউএনও নিজেই ট্রফিগুলো ভেঙে ফেলেন।

আলীকদম উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান কফিল উদ্দিন জানান, ইউএনও উপস্থিত দর্শকদের বলেন খেলার হারজিত থাকবে।

বিজ্ঞাপন
এতে কারো মন খারাপের কারণ নেই। তিনি তখন দর্শকদের কাছে খেলার ফলাফলে সন্তুষ্ট কিনা জানতে চাইলে কয়েকজন খেলার ফলাফলে মানি না বলায় ইউএনও ক্ষিপ্ত হয়ে চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ ট্রফি ভেঙে ফেলেন।

ইউএনও মেহেরুবা ইসলাম বলেন, খেলা শেষে পুরস্কার বিতরণের সময় হঠাৎ একজন এসে বললেন, ৩ গোল ৪ গোল তারা মানে না। এ সময় আমি বললাম, খেলা ফের হবে কিনা। পরে এটা নিয়ে পেছন থেকে খুব আওয়াজ শুরু হলো, তারা ট্রফি নেবে না। তারাই বলল, ট্রফি যতদিন থাকবে একটা আক্রোশ থাকবে। তারা বলল, ট্রফি ভেঙে ফেলা হোক। পরে আমি বললাম, তাহলে ঠিক আছে আপনারা মেডেলগুলো নিয়ে যান। এ সময় তারা সেগুলোও না নেয়ার পরিস্থিতি তৈরি করে। ওরাই বলছে ট্রফিটা ভেঙে ফেলা হোক। তাই ভেঙে ফেলা হয়েছে। ওখানে বহিরাগত কিছু ছেলে এসেছিল। স্থানীয় চেয়ারম্যানও তাদেরকে চেনেন না বলে জানিয়েছেন।

 

পাঠকের মতামত

শক্তিশালী মহিলা! জব টা উনার সাথে মাননসই না। এই মহিলা কারা রক্ষী হলে ভাল করতো ! চোর ডাকাত দের ভেঙে ফেলতে পারত !

wow
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, শনিবার, ৯:৩৭ অপরাহ্ন

Every goverment position has given or distributed not by the qualifications & merit but it's distributed for the pro aowamilg , that's the reason ,official has no tolerances of others no self respect ....

Nannu chowhan
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, শনিবার, ৬:৪৮ অপরাহ্ন

They can do anything coz they are king of bangladesh.

Riaz
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, শনিবার, ১:২৩ অপরাহ্ন

ইউএনও মহাশয়া নিশ্চয়ই ইডেন কলেজ ছাত্র লীগ নেতা ছিলেন।তা না হলেও ছাত্রলীগ করতেন এটা নিশ্চিত।তা না হলে বিসিএস পাশ করতেন না। ছাত্র জীবনে বিরোধীদের মাথা ভেঙেছেন এখন ট্রফি ভাঙছেন।

Nasym
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, শনিবার, ১০:৫২ পূর্বাহ্ন

নাবালিকা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

Md. Abdul Hye
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, শনিবার, ৯:০০ পূর্বাহ্ন

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাহেবার অত রাগ হলে চলে ! Just control yourself mem

nixon tapi
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, শনিবার, ৬:২৯ পূর্বাহ্ন

তারা এখন চাকর থেকে মুনিব বনে গেছেন। দেশটাকে তাদের বাবার তালুক মনে করে করেন আর জনগণ যেন তাদের চাকর। তাদের এখনই রুখে দিতে হবে, নয়তো ভবিষ্যতের জন্য অশনি সংকেত।

ফারুক হোসেন
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, শনিবার, ৪:০১ পূর্বাহ্ন

এই গোয়ার প্রকৃতির প্রথম শ্রেণির যত অফিসার আছে খবর নিলে দেখা যায় ছাত্রজীবন থেকেই ওরা বেপরোয়া বেআদব।

Abul Kalam Azad
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, শনিবার, ৩:৫৬ পূর্বাহ্ন

নিয়ন্ত্রণহিন মহিলা কিভাবে একটা উপজেলার সবচেয়ে বড় পদের দায়িত্ব সামলায়?

রুহুল আমিন
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, শনিবার, ২:১৬ পূর্বাহ্ন

খেলোয়াড়ি মনোভাব একটা শব্দ ভাল অর্থে সব সময় ব্যবহার করা হয় । কিন্ত এখন সেটা অচল । খেলায় হার জিত মেনে নেওয়া উদার মনের পরিচায়ক । খেলাধুলা থেকেই তা শিখে খেলোয়াড় গণ। কিন্ত এখন .......

Kazi
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, শনিবার, ১:০৩ পূর্বাহ্ন

অনলাইন থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

অনলাইন থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status