ঢাকা, ৪ অক্টোবর ২০২২, মঙ্গলবার, ১৯ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিঃ

রকমারি

৩ সন্তান পুরোপুরি দৃষ্টিশক্তি হারানোর আগে বিশ্ব ঘুরিয়ে দেখাতে চান বাবা-মা

মানবজমিন ডিজিটাল

(১ সপ্তাহ আগে) ২০ সেপ্টেম্বর ২০২২, মঙ্গলবার, ৩:৩২ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ১২:২৩ পূর্বাহ্ন

সবারই ভ্রমণের পিছনে আলাদা আলাদা উদ্দেশ্য থাকে। কেউ একঘেয়েমি কাটানোর জন্য প্রতিদিনের ব্যস্ততা থেকে অব্যাহতি নিয়ে কোনও পছন্দের জায়গায় ছুটে যান। কেউ আবার এডভেঞ্চারের আশায় বেড়িয়ে পড়েন ব্যাগ পত্র গুছিয়ে। তবে সম্পূর্ণ এক ভিন্ন কারণে বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় ভ্রমণ শুরু করেছে কানাডার এক পরিবার। কানাডিয়ান দম্পতি সেবাসটিয়ান পেল্লেটিয়ার ও এডিথ লেমায়। তাঁদের চার সন্তান। তাদের মধ্যে তিনজন চোখের বিরল রোগের শিকার। সিএনএন রিপোর্ট করেছে যে সেবাস্তিয়ান এবং এডিথের তিনজন শিশু, যাদের বয়স ১২, ৭ এবং ৫ বছর, তাদের রেটিনাইটিস পিগমেন্টোসা রয়েছে। এটি একটি বিরল চোখের রোগ যা রেটিনার কোষগুলির ক্রমান্বয়ে অবক্ষয় ঘটায়, শেষে দৃষ্টিশক্তি নষ্ট করে। লেমায়ের মতে, বর্তমানে এই রোগের কোনো প্রতিকার নেই।

বিজ্ঞাপন
তিনি আরও বলেছিলেন যে মধ্য বয়সে, তাঁদের সন্তানরা সম্পূর্ণ দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলতে পারে। একজন বিশেষজ্ঞ দম্পতিকে বাচ্চাদের চাক্ষুষ স্মৃতি নিয়ে ব্যস্ত রাখার পরামর্শ দিয়েছেন। ওই শিশুদের স্মৃতিতে পৃথিবীতে যাতে নতুন নতুন জিনিস গেঁথে থাকে। তাই তারা সন্তানদের নিয়ে বেরিয়ে পড়েছেন বিশ্ব ভ্রমণে। সেবাস্টিয়ান বলেছেন, “বাড়িতে করার মতো দুর্দান্ত জিনিস রয়েছে, তবে ভ্রমণের চেয়ে ভাল আর কিছুই নেই। শুধু দৃশ্য নয়, বিভিন্ন সংস্কৃতি এবং মানুষও”। কানাডার এই পরিবার কিউবেকে তাঁদের বাড়িতে ফিরে যাওয়ার আগে আরও ছয় মাস বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়াতে চান। এই পরিবারটি গত বছর জুলাই মাসে পূর্ব কানাডা সফরে গিয়েছিলেন। তাঁরা এই বছর মার্চ মাসে নামিবিয়াতে তাঁদের সফর শুরু করেছিলেন। তারপর মঙ্গোলিয়া থেকে ইন্দোনেশিয়ায় যান তাঁরা। দম্পতিদের সঙ্গে বিশ্ব ভ্রমণে মেতে উঠেছে ৪ সন্তান। ফেসবুক এবং ইনস্টাগ্রামে ঘন ঘন পোস্টিংয়ের মাধ্যমে, তারা তাদের বন্ধু এবং অনুগামীদের তাদের ভ্রমণ সম্পর্কে একাধিক তথ্য দিয়ে থাকেন। সেবাস্টিয়ান বলেছেন, “এই ট্রিপটি অন্যান্য অনেক কিছুর প্রতি আমাদের চোখ খুলে দিয়েছে। আমরা সত্যিই আমাদের কাছে যা আছে এবং আমাদের চারপাশে থাকা মানুষগুলিকে উপভোগ করতে চাই।”

সূত্র : এনডিটিভি
 

পাঠকের মতামত

এটি একটি বিরল চোখের রোগ যা রেটিনার কোষগুলির ক্রমান্বয়ে অবক্ষয় ঘটায়, শেষে দৃষ্টিশক্তি নষ্ট করে।---হোমিওপ্যাথির মতে- সিফিলিটিক মায়াজম হল: প্রগতিশীল প্রদাহ - অবক্ষয় - জ্বলন - বিকৃতি - ক্ষয় এবং মারাসমাস। এখানে কোষের ক্রমান্বয়ে অবক্ষয় ঘটে, তাই হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় এই অবক্ষয় রোধ করা যায়।কানাডায় ভালো হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা ব্যবস্থা চালু আছে।(It is a rare eye disease that causes progressive degeneration of retinal cells, eventually leading to vision loss.--- According to Homoeopathy- syphilitic miasm is: progressive inflammation - degeneration - smarting - deformity - decay and marasmus. Here there is gradual degeneration of cells, hence homeopathic treatment can prevent this degeneration. Canada has a good homeopathic treatment system).

Amir
২০ সেপ্টেম্বর ২০২২, মঙ্গলবার, ৫:১০ পূর্বাহ্ন

রকমারি থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

রকমারি থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং স্কাইব্রীজ প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজিং লিমিটেড, ৭/এ/১ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status