ঢাকা, ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, শুক্রবার, ২০ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১১ রজব ১৪৪৪ হিঃ

তথ্য প্রযুক্তি

ফ্রিল্যান্সিংয়ে সায়েমের এগিয়ে যাওয়ার গল্প

স্টাফ রিপোর্টার

(৫ মাস আগে) ২৫ আগস্ট ২০২২, বৃহস্পতিবার, ১২:২৬ অপরাহ্ন

mzamin

চাকরি না করেও যে স্বাধীনভাবে কিছু করা যায়, তাই করে দেখিয়েছেন আবু সায়েম। একটু দুরদর্শিতা, পরিশ্রম ও ধৈর্য বদলে দিতে পারে অনলাইন এবং অফলাইন জীবন। তিনি তরুণদের ফ্রিল্যান্সিং এবং আইটি উদ্যোক্তা তৈরী করতে ইনবক্স আইটি সলিউশনস লিমিটেড নামে একটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রও গড়ে তুলেছেন। রংপুর গঙ্গাচড়া উপজেলার আলমবিদিতর ইউনিয়নের দোলাপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল আউয়ালের ছেলে আবু সায়েম ৪ বোন ২ ভাইয়ের সংসারে দিশেহারা যখন তার বয়স ২০ পার হয়নি, তখনই তার স্বপ্নের শুরু। সময়টা ২০১৩ সাল। এ বয়সেই নিজে কিছু করার ইচ্ছা থেকে ফ্রিল্যান্সিং জগতে ঢুকে পড়েন। যদিও শুরুর অভিজ্ঞতাটা একটু ভিন্ন। মুখোমুখি হতে হয় নানা ধরনের বাধা-বিপত্তির। তবুও হাল ছাড়েননি সায়েম। দীর্ঘ সাত বছরের কঠোর পরিশ্রম ও ধৈর্য।

বিজ্ঞাপন
সঙ্গে একটু একটু এগিয়ে যাবার অনুপ্রেরণা তাকে সফলতার দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে দিয়েছে। অনেক কম বয়সে ও অল্প সময়ে সাফল্য অর্জন করেছেন তিনি । বর্তমানে, আবু সায়েম তার নিজের প্রতিষ্ঠানের ২৩ বছর বয়সী সিইও। তার কোম্পানি "ইনবক্স আইটি সলিউশনস লিমিটেড" এবং "সায়েম একাডেমি" । এখানে অনেক তরুণ তরুণী ফ্রিল্যান্সিং এর প্রশিক্ষণ নিয়ে সাবলম্বী হয়েছেন। রংপুরের বাইরে যারা প্রশিক্ষণ নিতে আগ্রহী তাদের জন্য খুলেছেন অনলাইনে "সায়েম একাডেমী"। তার এই দুটি প্রতিষ্ঠান থেকে ডিজিটাল মার্কেটিং, ওয়েব ডেভেলপমেন্টসহ ফ্রিল্যান্সিং করে জীবনের পথ খুঁজে পেয়েছেন প্রায় চার হাজার তরুণ-তরুণী। প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত এক নারী বলেন, এখানে আমরা আসি, নিরাপত্তার সঙ্গে কাজ করি। সুন্দর একটা পরিবেশ।’ তার ফ্রিল্যান্সিং এ প্রশিক্ষণ নিয়ে বর্তমানে সাবলম্বী হওয়া নড়াইলের এক শিক্ষার্থী শিক্ষার্থী বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সায়েম একাডেমিতে প্রশিক্ষণ নিয়ে ফ্রিল্যান্সিং -ঘরে বসে আয় করার এই সুযোগ দেখে আমি উদ্বুদ্ধ হই। যোগাযোগ করে তিন মাসের একটি কোর্স সম্পন্ন করে আমি বর্তমানে নিজেই এখন প্রতিমাসে ২০-২৫ হাজার টাকা উপার্জন করছি। এটি পরবর্তীতে আরো বাড়িয়ে কয়েক গুনের স্বপ্ন তার। রংপুরের একটি বেসরকারী পলিটেকনিকের শিক্ষার্থী সামিউল ইসলাম বলেন, সায়েম ভাইয়ের "ইনবক্স আইটি সলিউশনস লিমিটেড" থেকে অনেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে উপার্জন করছেন এমন তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখার পর আমি যোগাযোগ করে প্রশিক্ষণ সম্পূর্ণ করেছি । এখন গড়ে ১০ হাজার টাকা উপার্জন করছি প্রতি মাসে। গ্রামের স্বল্প আয়ের পরিবারে বেড়ে ওঠা তরুণদের ফ্রিল্যান্সিং পেশায় দক্ষ করে তুলে বেকার সমস্যা ঘোঁচানোর পথ দেখাতে তার আগ্রহের কমতি নেই। তরুণদের ফ্রিল্যান্সিংয়ে উদ্বুদ্ধ করতে নিজ গ্রামে একটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গড়ে তুলেছেন।

তথ্য প্রযুক্তি থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

তথ্য প্রযুক্তি সর্বাধিক পঠিত

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status