ঢাকা, ১২ জুন ২০২৪, বুধবার, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৫ জিলহজ্জ ১৪৪৫ হিঃ

রকমারি

‘হতাশাগ্রস্ত’ এক শিক্ষকের খোলা চিঠি

১৮ মে ২০২৪, শনিবার
mzamin

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কর্মরত এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের বদলির দাবিটি দীর্ঘদিন ধরেই চলে আসছে। তাদের প্রয়োজনের দিক থেকে এই দাবিটি খুবই মানবিক ও যৌক্তিক। এ বিষয়ে  উত্থাপন করেছি যে, এনটিআরসি এ কর্তৃক সনদপ্রাপ্ত এমপিভুক্ত শিক্ষকদের জন্য পদ শূন্য থাকা সাপেক্ষে সমপদ সমস্কেলে বদলি চালু করা যেতে পারে।  আর এক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানের কোনো ভেদাভেদ থাকবে না।  সমপদ সমস্কেলে পদ শূন্য থাকা সাপেক্ষে নিবন্ধনের মেধাক্রম অনুসারে মাদ্রাসা থেকে স্কুল/কলেজ এবং কলেজ থেকে মাদ্রাসায় যাওয়ার ব্যবস্থা করা যেতে পারে। আর এটিকে ভালো হিসেবে সমর্থন করেছেন প্রায় সকল বদলি প্রত্যাশী নিবন্ধনধারী এমপিওভুক্ত শিক্ষক। কিন্তু সম্প্রতি সময়ে সরকার বেসরকারি শিক্ষকদের বদলির উদ্যোগ নিলেও সেটি কার্যকরী না হওয়ায় হতাশ হয়ে পড়ছেন অনেক শিক্ষক। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্তৃপক্ষকে বলছি, ‘নিজ এলাকা বাদে অন্য শহর বা কোথাও আবেদন করা যাবে না’ এই শর্তে হলেও বদলির ব্যবস্থা করুন। এনটিআরসিএ’র সনদে প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে বদলি চালু করুন। যেকোনো শর্তে বদলি চালু করুন, বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের বাড়ির কাছে পৌঁছে দিন। 

মাত্র ১২৫০০ টাকা বেতনে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের ধরে-বেঁধেও আপনারা ঢাকা/চট্টগ্রাম বা বড় বড় শহরগুলোতে নিতে পারবেন না এক সময়।

বিজ্ঞাপন
শিক্ষকদের অস্বস্তিকর অবস্থায় রেখে, অসচ্ছল অবস্থায় রেখে নতুন কারিকুলাম বাস্তবায়ন করতে চাচ্ছেন? সুশিক্ষা আশা করছেন? তাহলে এই বাংলাদেশের মানুষের সঙ্গে আপনারা প্রতারণা করছেন। শিক্ষকরা আন্তরিকভাবে নিজেকে উজাড় করে দেয়ার জন্য প্রস্তুত থাকে। কিন্তু শিক্ষকরাও মানুষ, তাদেরও আবেগ, দেহ, মন, ক্ষুধা আছে। এগুলো নিয়ে কখনোই তারা ক্লাসরুমে সুন্দর শিখন পরিবেশ গড়ে তুলতে পারেন না। বদলির বিরোধিতা করে আমলা কর্তৃক নতুন কারিকুলামের অগ্রগতি, দেশের অগ্রগতি বাধাগ্রস্ত করছেন। তাই আমি কর্তৃপক্ষের কাছে বিনয়ের সঙ্গে অনুরোধ করবো দ্রুত বদলি অথবা অন্য কোনো উপায়ে বাড়ির কাছাকাছি যাওয়ার ব্যবস্থা চালু করুন। আমি কোনো ভাবেই সকল আমলাগণকে দোষী করছি না। আমি কতক দু/চারজন আমলাকেই দোষারোপ করছি, যারা বদলির বিরোধিতা করছেন। তাই শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সম্মানিত কর্তৃপক্ষের প্রতি অনুরোধ, দ্রুত বেসরকারি শিক্ষকদের বাড়ির কাছাকাছি যাওয়ার সুযোগ-ব্যবস্থা করেন। শিক্ষকদের বদলি যদি জটিল প্রক্রিয়া মনে হয়, তাহলে ইনডেক্সধারী শিক্ষকদের জন্য আলাদা বা বিশেষ গণবিজ্ঞপ্তি দেয়া যায় কিনা, বা আসন্ন গণবিজ্ঞপ্তিতে আবেদনের সুযোগ দেয়া যায় কি না এ ব্যাপারে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করছি। 

মো. সরোয়ার

পাঠকের মতামত

আশাকরি কতৃপক্ষ যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন। এখানে কোনো অন্যায় আবদার করা হয়নি। তাহলে কোন অসৎ আমলারা এর বিরোধিতা করে?

Md Abdullah
৩ জুন ২০২৪, সোমবার, ১০:২২ পূর্বাহ্ন

Bastob kotha bolesen

MD RABIUL
২৫ মে ২০২৪, শনিবার, ১১:২২ পূর্বাহ্ন

সত্য কথা।আমি এক মত।

জাহাঙ্গীর
২৪ মে ২০২৪, শুক্রবার, ১২:৩৫ অপরাহ্ন

He wrote the right. I support him

Tofazzel Hossain
১৮ মে ২০২৪, শনিবার, ২:৪৯ অপরাহ্ন

রকমারি থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

   

রকমারি সর্বাধিক পঠিত

মা-বাবার বিরুদ্ধে মামলা/ 'অনুমতি না নিয়েই কেন জন্ম দিয়েছ?'

Logo
প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2024
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status