ঢাকা, ১২ আগস্ট ২০২২, শুক্রবার, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৩ মহরম ১৪৪৪ হিঃ

দেশ বিদেশ

সাভারে শিক্ষক হত্যাকারী জিতুকে বহিষ্কার

আজ খুলছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি, নিরাপত্তায় থাকবে পুলিশ টহল

স্টাফ রিপোর্টার, সাভার থেকে
২ জুলাই ২০২২, শনিবার

আশুলিয়ায় হাজী ইউনুস আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক উৎপল কুমার সরকার হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত আশরাফুল ইসলাম জিতুকে স্কুল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। 
গতকাল দুপুরে জিতুকে বহিষ্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন হাজী ইউনুস আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ সাইফুল ইসলাম। সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক ও কলেজের শৃঙ্খলা কমিটির সদস্য উৎপল কুমার সরকার হত্যাকাণ্ড মামলার প্রধান আসামি জিতুকে স্কুল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এ ঘটনায় আমরা জিতুর সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করছি। সাভারের অধিকাংশ স্কুল অ্যান্ড কলেজ এ দাবির সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন। এদিকে শিক্ষক উৎপল কুমার হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে বন্ধ থাকা আশুলিয়ার সেই হাজী ইউনুছ আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজে আজ থেকে ক্লাস শুরু হচ্ছে। গতকাল সকাল সাড়ে ১১টায় আশুলিয়ার চিত্রশাইলে হাজী ইউনুছ আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ঢাকা জেলা পুলিশের মতবিনিময় সভা শেষে এই সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন সরদার। সভায় শিক্ষক উৎপল কুমারের হত্যাকারী বখাটে জিতুকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশকে ধন্যবাদ জানায় প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। পাশাপাশি হত্যাকারীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি, নিহতের পরিবারের ক্ষতিপূরণ ও নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবি করেন। পাশাপাশি নিহত পরিবারের ক্ষতিপূরণের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করার কথাও জানান। 
স্থানীয় প্রভাবশালী পরিবারের এই ছেলে ‘জিতু দাদা’ নামে একটি কিশোর গ্যাং তৈরি করেছিলো সে।

বিজ্ঞাপন
তার বিরুদ্ধে বিচার দেয়া হলে উল্টো ভয়ভীতি দেখাতো এবং বিচারপ্রার্থীর বাড়ির সামনে দিয়ে মোটরসাইকেল নিয়ে শোডাউন দিতো। এজন্য তাকে কিছু বলার সাহস পেতেন না শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ কেউ। এছাড়া জিতু স্কুল প্রাঙ্গণে ধূমপান করতো, অদ্ভুত স্টাইলে চুল রাখতো। বেপরোয়াভাবে মোটরসাইকেল নিয়ে কলেজে প্রবেশ করতো। এসব না করার জন্য জিতুকে অনেকবার নিষেধ করেছিলেন উৎপল। এসব কারণে শিক্ষক উৎপলের ওপর ক্ষোভ ছিল জিতুর। আর সর্বশেষ যোগ হয় বান্ধবীর সঙ্গে অপ্রীতিকর অবস্থায় দেখে ফেলার ঘটনা। পরিবারের দুই ব্যক্তি স্কুল পরিচালনা কমিটির গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে থাকার কারণে জিতু বিভিন্ন সময়ে স্কুলের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করতো। এলাকায় একটি কিশোর গ্যাং গ্রুপও নিয়ন্ত্রণ করতো সে। নানা সভাপতি ও মামা পরিচালক হওয়ায় স্কুলে অভিযুক্ত ওই ছাত্র শিক্ষার্থীদের ওপর প্রভাব খাটাতো। এছাড়া স্কুলের ছাত্রীদেরও উত্ত্যক্ত করতো। প্রসঙ্গত, গত শনিবার ২৫শে জুন দুপুরে আশুলিয়ার চিত্রশাইল এলাকায় হাজী ইউনুস আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের মাঠে প্রকাশ্যে শিক্ষক উৎপলকে ক্রিকেট স্ট্যাম্প দিয়ে পেটানো হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত সোমবার মারা যান তিনি।

 

পাঠকের মতামত

Must be capital punishment.

Khokon
১ জুলাই ২০২২, শুক্রবার, ১:০২ অপরাহ্ন

দেশ বিদেশ থেকে আরও পড়ুন

আরও খবর

দেশ বিদেশ থেকে সর্বাধিক পঠিত

প্রধান সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী
জেনিথ টাওয়ার, ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ এবং মিডিয়া প্রিন্টার্স ১৪৯-১৫০ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা-১২০৮ থেকে
মাহবুবা চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও প্রকাশিত।
ফোন : ৫৫০-১১৭১০-৩ ফ্যাক্স : ৮১২৮৩১৩, ৫৫০১৩৪০০
ই-মেইল: [email protected]
Copyright © 2022
All rights reserved www.mzamin.com
DMCA.com Protection Status